দু’সপ্তাহেই উল্টো ছবি, দেব-দর্শনে উপচে পড়ল ভিড়
এ দিন তৃণমূলের তারকা প্রার্থী দীপক অধিকারী (দেব)-র সভায় ভিড় হল লক্ষ্যণীয়।
Dev

শনিবার পাঁশকুড়ার কর্মিসভায় তৃণমূলের প্রার্থী দেব। নিজস্ব চিত্র

সপ্তাহ দু’য়েক আগে এলাকায় এসে ‘ম্যারাথন’ কর্মিসভা করেছিলেন ঘাটাল কেন্দ্রের তৃণমূল প্রার্থী দীপক অধিকারী (দেব)। পরিকল্পনা ছিল আটটি কর্মিসভা করার। কিন্তু বাধ সেধেছিল প্রকৃতি। ঝড়-বৃষ্টির ফলে দু’টি সভা বাতিল হয়েছিল দেবের। সে দিনের সেই বাতিল সভা থেকেই শনিবার প্রচার শুরু করলেন দেব।    

এ দিন পাঁশকুড়ার গোবিন্দনগর গ্রাম পঞ্চায়েত এলাকার গোবিন্দপুরে প্রথম কর্মিসভা করেন দেব। গতবার সভা পণ্ড হওয়ায় এলাকার তৃণমূল কর্মী-সমর্থকদের মধ্যে কার্যত হতাশা দেখা দিয়েছিল। সেই হতাশা কাটিয়ে এ দিন তৃণমূলের এই তারকা প্রার্থীর সভায় ভিড় হল লক্ষ্যণীয়। গোবিন্দপুর অঙ্গনওয়াড়ি কেন্দ্রের মাঠের ওই সভায় জন সমাগম দেখে আপ্লুত দেবও। 

পাঁশকুড়া ব্লকের গোবিন্দনগর এলাকাটি এক সময় বাম দূর্গ হিসাবে পরিচিত ছিল। এদিন বিকেল ৫টা নাগাদ সেখানের কর্মিসভায় হাজির হন দেব। মাঠে তখন কয়েক হাজার তৃণমূল কর্মী-সমর্থক হাজির। চেনা তারকাসুলভ ভঙ্গিতে হাত নেড়ে সকলকে অভিবাদন জানান দেব। এ দিনের কর্মিসভা কার্যত জনসভায় পরিণত হয়। সেই সভায় দেব বলেন, ‘‘আমি গত পাঁচ বছরে মানুষের জন্য কাজ করেছি। সাংসদ হিসাবে এক টাকাও চুরি করিনি। এলাকায় প্রচুর উন্নয়ন হয়েছে। এবার আপনারাই ভাবুন ভোটটা কাকে দেবেন।’’

দিল্লি দখলের লড়াই, লোকসভা নির্বাচন ২০১৯

সোনা প্রতারণা মামলায় শুক্রবার ঘাটাল কেন্দ্রের বিজেপি প্রার্থী ভারতী ঘোষকে দাসপুরে টানা জেরা করে সিআইডি। এই ঘটনাকে তাঁর বিরুদ্ধে রাজ্য সরকারের চক্রান্ত বলে অভিযোগ করেন ভারতী। এ দিন ভারতীর সেই অভিযোগের উত্তরে দেব বলেন, ‘‘ভারতী ঘোষকে সিআইডি জেরা করলে যদি চক্রান্ত হয়, তাহলে আগের নির্বাচনগুলির সময় রাজ্য সরকারকে সিবিআই যেভাবে বিভিন্ন তদন্তের নামে বিরক্ত করেছিল, তাহলে সেটাও চক্রান্ত ছিল। ওঁদের দাবি অনুযায়ী তখন সিবিআই যদি সিবিআইয়ের কাজ করে থাকে তাহলে এখন সিআইডি সিআইডির কাজ করছে।’’ 

গোবিন্দপুরের সভার পরে দেব যান খণ্ডখোলা গ্রাম পঞ্চায়েত এলাকার বাহারপোতায়। সেখানেও দেবকে দেখার জন্য এখানেও উপচে পড়ে ভিড়। এরপর রঘুনাথবাড়ি গ্রাম পঞ্চায়েত এলাকার খসরবনে এবং সেখান থেকে পুরুষোত্তমপুর গ্রাম পঞ্চায়েত এলাকার বৈদিবাড়ের কর্মিসভায় যান দেব। 

এ দিন দেবের প্রত্যেকটি সভায় যে পরিমাণ জনসমাগম দেখা গিয়েছে, তা তাঁর আগের কর্মিসভাগুলি থেকে অনেক বেশি। এতে সাময়িক স্বস্তিতে স্থানীয় তৃণমূল নেতৃত্ব। এ দিন তৃণমূলের পাঁশকুড়া ব্লক সভাপতি দীপ্তিকুমার জানা বলেন, ‘‘আজ দেবের কর্মিসভায় যেভাবে মানুষ উপস্থিত হয়েছেন, তাতে একটা বিষয় পরিস্কার— দেব ইতিমধ্যেই জিতে গিয়েছেন। ফল ঘোষণা শুধু সময়ের অপেক্ষা।’’