দেবের সভায় মমতা, নিশানায় কি ভারতী!
একসময়ে মুখ্যমন্ত্রী মমতাকে ‘জঙ্গলমহলের মা’ বলে ডেকেছিলেন পশ্চিম মেদিনীপুরের প্রাক্তন পুলিশ সুপার ভারতী। তারপর বদলে গিয়েছে অনেক কিছু।
Mamata

তৃণমূল নেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। —ফাইল চিত্র

দলীয় প্রার্থীর সমর্থনে তো বলবেনই। কিন্তু বিরোধী প্রার্থী সম্পর্কে কিছু বলবেন কি? আগামী ২ মে ঘাটালে তৃণমূল নেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের জনসভা নিয়ে রাজনৈতিক মহলের একাংশে তৈরি হয়েছে আগ্রহ। কারণ, ঘাটালে তৃণমূল প্রার্থী দেবের বিপক্ষে যে রয়েছেন ভারতী ঘোষ!

একসময়ে মুখ্যমন্ত্রী মমতাকে ‘জঙ্গলমহলের মা’ বলে ডেকেছিলেন পশ্চিম মেদিনীপুরের প্রাক্তন পুলিশ সুপার ভারতী। তারপর বদলে গিয়েছে অনেক কিছু। দাসপুর সোনা প্রতারণা মামলায় ভারতীর বিরুদ্ধে হুলিয়া পর্যন্ত জারি হয়েছিল। সুপ্রিম কোর্টের নির্দেশে ভারতীকে এখন গ্রেফতার করা যাবে না। তবে প্রচারের মাঝেই বিজেপি প্রার্থীকে বারবার জিজ্ঞাসাবাদ করছে সিআইডি। এর আগে অডিয়ো টেপে মুখ্যমন্ত্রীর সমালোচনা করেছিলেন প্রাক্তন আইপিএস। তবে মমতা পাল্টা মন্তব্য করেননি। এ বার ভোটের প্রচার পর্বে দেব-ভারতী পারস্পরিক সৌজন্য বজায় রেখেছেন। ফলে ক্ষেত্রপালের মাঠে মমতার সভা নিয়ে তৈরি হয়েছে বাড়তি আগ্রহ। যদিও তৃণমূল শিবিরের বক্তব্য, মুখ্যমন্ত্রী মোদী ও তাঁর নীতির সমালোচনা করলেও সাধারণভাবে রাজ্যের বিজেপি প্রার্থীদের বিরুদ্ধে ব্যক্তিগত আক্রমণ করছেন না।

২০১৬ সালের বিধানসভা ভোটের সময় ক্ষেত্রপালের মাঠেই জনসভা করতে এসেছিলেন মুখ্যমন্ত্রী। লোকসভাতেও একই জায়গা বেছেছেন তিনি। ঘাটাল-চন্দ্রকোনা রাজ্য সড়কের ধারে ক্ষেত্রপাল জনপদ ঘাটাল ও চন্দ্রকোনা-দুটি ব্লকের সংযোগস্থল। কিছুটা গেলেই দাসপুরের সীমানা। ওখানে সভা হলে গোটা মহকুমার তিনটি বিধানসভা এলাকার নেতৃত্বদের কারও কোনও অভিমান থাকবে না। বৃহস্পতিবার মাঠ পরিদর্শন করেন জেলার পুলিশ সুপার অলোক রাজোরিয়া।

গত বুধবার প্রশাসনিক স্তরে খবর পৌঁছতেই দৌড়ঝাঁপ শুরু হয়েছে। তৃণমূলের জেলা সভাপতি অজিত মাইতি ঘাটাল, দাসপুর ও চন্দ্রকোনার বিধায়ক, ব্লক সভাপতি-সহ অন্য নেতৃত্বদের নিয়ে একদফা বৈঠক করে ফেলেছেন। বৃহস্পতিবার থেকে প্রতি ব্লক নেতৃত্ব মুখ্যমন্ত্রীর সভায় লোক ভরানোর প্রস্তুতিও শুরু করে দিয়েছে। তৃণমূলের এক জেলা নেতার কথায়, “মুখ্যমন্ত্রীর সভায় মাঠ ভরাতে হবে। নিবার্চনী প্রচারের সঙ্গে মুখ্যমন্ত্রীর সভার কথাও মাথায় রাখতে ঘাটালের নেতাদের নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।”

ঘাটালে বিজেপি প্রার্থীর সমর্থনে অমিত শাহ, যোগী আদিত্যনাথ মতো হেভিওয়েটদের আসার কথা। তাই স্থানীয় তৃণমূল নেতৃত্বও চাইছিলেন স্বয়ং দলনেত্রী নিজে আসুন। তৃণমূলের জেলা সভাপতি অজিত মাইতি বলছেন, “২মে মুখ্যমন্ত্রী  সভার লোক দেখে সকলে চমকে যাবে।”  

২০১৪ লোকসভা নির্বাচনের ফল

আপনার মত