কুনারের প্রচারে মোদী!
রাজনৈতিক মহলের একাংশ মনে করছেন, আদিবাসী ভোট বিভাজনের অঙ্কই এই কেন্দ্রের ফলাফল নির্ধারণ করবে। এই পরিস্থিতিতে মোদী ঝাড়গ্রামে এসে কী বার্তা দেন সে দিকে নজর থাকবে রাজনৈতিক মহলের।
modi

ছবি: পিটিআই।

শেষ মুহূর্তে কোনও বদল না হলে ঝাড়গ্রাম লোকসভা কেন্দ্রের বিজেপি প্রার্থী কুমার হেমব্রমের সমর্থনে জনসভা করতে পারেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। আগামী ৫ মে ঝাড়গ্রামে ওই সভা হওয়ার কথা। তবে মোদীর সভাটি কোন মাঠে হবে, সেটা এখনও চূড়ান্ত হয়নি বলে জানিয়েছেন বিজেপি-র ঝাড়গ্রাম জেলা সভাপতি সুখময় শতপথী। সুখময় বলেন, ‘‘প্রধানমন্ত্রীর সভাস্থলের জন্য মাঠ দেখা চলছে। এখনও ঠিক হয়নি সভাস্থলটি কোথায় হবে। তবে ৫ মে ঝাড়গ্রাম জেলায় সভাটি হওয়ার কথা।’’ তার আগে আজ, বুধবার দুপুরে গোপীবল্লভপুরের যাত্রা ময়দানে কুনারের সমর্থনে নির্বাচনী জনসভা করবেন কেন্দ্রীয় প্রতিরক্ষামন্ত্রী নির্মলা সীতারমন।

ঝাড়গ্রাম লোকসভা কেন্দ্র আদিবাসী অধ্যুষিত। তৃণমূল বিরবাহা সরেনকে প্রার্থী করায় আদিবাসী সংগঠনে ফাটল তৈরি হয়েছে। বাম, কংগ্রেস ছাড়াও প্রার্থী দিয়েছে দুই ঝাড়খণ্ডী পার্টির জোট। রাজনৈতিক মহলের একাংশ মনে করছেন, আদিবাসী ভোট বিভাজনের অঙ্কই এই কেন্দ্রের ফলাফল নির্ধারণ করবে। এই পরিস্থিতিতে মোদী ঝাড়গ্রামে এসে কী বার্তা দেন সে দিকে নজর থাকবে রাজনৈতিক মহলের।

আজ, বুধবার মনোনয়ন পরীক্ষা। তার আগে মনোনয়ন পরীক্ষার আগের রাতে সাংবাদিক বৈঠক করে আশঙ্কা প্রকাশ করলেন বিজেপির ঝাড়গ্রাম জেলা সভাপতি সুখময় শতপথী। তাঁর আশঙ্কা, বুধবার মনোনয়ন পরীক্ষার দিনে বিজেপি প্রার্থী কুনার হেমব্রমের প্রার্থী পদ বাতিল করা হতে পারে। কেন এমন আশঙ্কা করছেন সুখময়? কারণ ব্যাখ্যা করে বিজেপি-র জেলা সভাপতি জানিয়েছেন, কুনার মনোনয়নপত্র জমা দেওয়ার পর যেভাবে নানা বিষয়ে তাঁকে হয়রান করা হয়েছে, মনোনয়নপত্রের বিভিন্ন জায়গায় অসঙ্গতি রয়েছে বলে বারবার ঘোরানো হয়েছে, ্ তার থেকেই এই আশঙ্কা । সুখময়ের দাবি, মঙ্গলবার ফের নির্বাচন আধিকারিকের কাছে কুনারের মনোনয়নপত্রের খুঁটিনাটি বিষয় গুলি খতিয়ে দেখার জন্য তাঁরা গিয়েছিলেন এবং সব দেখে নির্বাচন দপ্তর থেকে জানিয়ে দেওয়া হয় মনোনয়নপত্রের সবকিছু যথাযথ রয়েছে। তারপরও সুখময় মনে করছেন, বিজেপিকে ঠেকানোর জন্য নানাভাবে নানা মহল থেকে চাপ আসছে। সেই কারণে কুনারের প্রার্থী পদ বাতিল করে দেওয়া হতে পারে। সেই জন্যই তাঁরা সোমবার ডামি প্রার্থী ও দিয়ে রেখেছেন।