• নিজস্ব সংবাদদাতা
সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে

পাশের হারে নয়া রেকর্ড

Education
প্রতীকী ছবি।

পাশের হারে শতাংশের নিরিখে ৯১.৭৫ থেকে বেড়ে গতবারই হয়েছিল ৯১.৭৮। এ বার তা আরও বৃদ্ধি পেয়ে হল ৯২.১৬। মাধ্যমিকে সাফল্যের হারে এগোচ্ছে পশ্চিম মেদিনীপুর।

বুধবারই প্রকাশিত হয়েছে এ বছরের মাধ্যমিকের ফল। পাশের হারে এ জেলার নতুন রেকর্ড সৃষ্টি হয়েছে এ বার। রাজ্যে পূর্ব মেদিনীপুরের পরই পশ্চিম মেদিনীপুরের স্থান। মধ্যশিক্ষা পর্ষদ সূত্রে খবর, এ বার পাশের হারে প্রথম স্থানে রয়েছে পূর্ব মেদিনীপুর (৯৬.৫৯ শতাংশ)। দ্বিতীয় স্থানে পশ্চিম মেদিনীপুর (৯২.১৬ শতাংশ)। আর তৃতীয় স্থানে রয়েছে কলকাতা (৯১.০৭ শতাংশ)। গতবার একে ছিল পূর্ব মেদিনীপুর। আর দুইয়ে ছিল কলকাতা। পশ্চিম মেদিনীপুরের স্থান ছিল তিনে। এ বার কলকাতাকে টপকে দুইয়ে উঠে এসেছে এ জেলা।

মধ্যশিক্ষা পর্ষদের জেলা মনিটরিং কমিটির আহ্বায়ক রাজীব মান্না বলেন, ‘‘গতবারের থেকে এ বার পাশের হার বেড়েছে। নিশ্চিতভাবে এর সুফল আগামী দিনে মিলবে।’’ পর্ষদ সূত্রে খবর, পশ্চিম মেদিনীপুরে ২৪,৬৯৮ জন ছাত্র মাধ্যমিক দিয়েছিল। ছাত্রদের পাশের হার ৯৫.৩৮ শতাংশ। ২৭,৬৩৪ জন ছাত্রী মাধ্যমিক দিয়েছিল। ছাত্রীদের পাশের হার ৯০.৫৪ শতাংশ।

মেদিনীপুরের বিদ্যাসাগর বিদ্যাপীঠের (বালক) প্রধান শিক্ষক অরূপ ভুঁইয়া মানছেন, ‘‘এ বার পাশের হারে নতুন রেকর্ড সৃষ্টি করল পশ্চিম মেদিনীপুর। এই সাফল্য ধরে রাখতে হবে।’’

জেলার একাংশে জঙ্গলমহল রয়েছে। জঙ্গলমহল এলাকার ফলও ভাল হয়েছে। জেলার এক শিক্ষা আধিকারিকের কথায়, ‘‘জঙ্গলমহল এলাকার ফল ভাল না- হলে তার প্রভাব পড়ত জেলার সার্বিক পাশের হারের উপর।’’ তাঁর কথায়, ‘‘পাশের হারে পূর্ব মেদিনীপুরকে টপকানো কঠিন। কারণ, পশ্চিম মেদিনীপুরের মধ্যে জঙ্গলমহলের একাংশ রয়েছে। যে এলাকা শিক্ষার দিক থেকে একটু পিছিয়ে।’’ তিনি বলেন, ‘‘অবশ্য গত কয়েক বছরে ধীরে ধীরে পরিস্থিতির উন্নতি হয়েছে। ওই সব এলাকায় শিক্ষার আলো পৌঁছতে শুরু করেছে।’’  

পাশের হার বেড়েছে। তবে রাজ্যের মেধা তালিকায় পশ্চিম মেদিনীপুরের একাধিকজনের নাম না-থাকায় অনেকে নিরাশ হয়েছেন। রাজ্যের মেধা তালিকায় এ জেলার একজনই স্থান করে নিতে পেরেছে। দাসপুর বিবেকানন্দ হাইস্কুলের ছাত্র শুভঙ্কর মাইতি।

শুভঙ্করের প্রাপ্ত নম্বর ৬৮৫। মেধা তালিকায় সে অষ্টম স্থানে রয়েছে। জেলার এক শিক্ষা আধিকারিক বলেন, ‘‘রাজ্যের প্রথম দশে জেলার একজন রয়েছে। তবে প্রথম কুড়িতে জেলার বেশ কয়েকজন রয়েছে। সার্বিক ভাবে জেলার ফল ভালই হয়েছে।’’

উচ্চমাধ্যমিকের ফলাফল সম্পর্কিত যাবতীয় আপডেট পেতে রেজিস্টার করুন এখানে |

সবাই যা পড়ছেন

সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে
আরও পড়ুন

সবাই যা পড়ছেন

আরও পড়ুন