রাতভর অভিযানে পুলিশ। তল্লাশিতে নেমে পড়েছে ভূমি দফতরও। খাদান কারবার বন্ধে গঠিত ব্লকের বিশেষ টাস্ক ফোর্সই বা পিছিয়ে থাকে কেন। মাঠে নেমেছে তারাও।

মন্ত্রীর নির্দেশের পর সোমবার গড়বেতায় ‘চোখের বালি’ সরাতে এমনই তৎপরতা দেখা গেল পুলিশ-প্রশাসনের মধ্যে। যা দেখে স্থানীয় তৃণমূল নেতার তির্যক মন্তব্য, ‘‘আসলে ভোট পালালে টনক নড়ে। সকলে যদি আগে এ ভাবে সক্রিয় হত তা হলে ভোটে এই হাল হত না। আমাদেরও হেনস্থা হতে হত না।’’ 

এবারের ভোটে গড়বেতায় অন্যতম প্রচারের বিষয় ছিল বেআইনি বালি ও খাদান কারবার। বিরোধীরা এ নিয়ে লাগাতার প্রচার করে। ভোটের ফলে শাসকদল তৃণমূল গড়বেতায় পিছিয়ে পড়তেই অবৈধ বালি কারবারে রাশ টানা শুরু হয়। জেলার দায়িত্ব হাতে নিয়েই শুভেন্দু অধিকারী গড়বেতায় বেআইনি বালি কারবার বন্ধে তৎপর হন। কয়েকদিন আগেই গড়বেতায় এসে এই কারবার বন্ধে নিজের দল তৃণমূল সহ প্রশাসনকে উদ্যোগী হতে বলেন। সোমবার রাতভর গড়বেতা থানার ওসি মদনমোহন রায়ের নেতৃত্বে বিশাল পুলিশবাহিনী সন্ধিপুর, চমকাইতলা, কাদড়া, উত্তরবিল প্রভৃতি এলাকায় গিয়ে অবৈধ বালি, মোরাম, বোল্ডার খাদানে তল্লাশি অভিযান চালায়। রাতের অন্ধকারে খাদান থেকে বালিচুরি ঠেকাতে নদীঘাট ও রাস্তায় চলে পুলিশের টহল। রাতেই বেশ কিছু গাড়ির বৈধ কাগজপত্র ঠিকঠাক আছে কি না, দেখা হয়। পরীক্ষা করে দেখা হয় গাড়ি ‘ওভারলোড’ রয়েছে কি না। আটক করা হয় কয়েকটি বালির গাড়ি। পুলিশ সূত্রের খবর, অভিযানের খবর পেয়ে কারবারের সঙ্গে যুক্ত অনেকে রাতেই গা ঢাকা দিয়েছে। পুলিশ জানিয়েছে, এরকম তল্লাশি অভিযান লাগাতার চলবে।

গড়বেতা ১ ব্লক ভূমি ও ভূমি সংস্কার দফতরও অবৈধ বালি- মোরামের বিরুদ্ধে অভিযান শুরু করেছে। শিলাবতী নদীতে যেসব অবৈধ বালি খাদান রয়েছে সেগুলিতে অভিযান চালানো হচ্ছে। পাশাপাশি সন্ধিপুর, খড়কুশমা প্রভৃতি এলাকায় অবৈধ মোরাম - বোল্ডার খাদানেও চলছে তল্লাশি। এই অভিযানে ৩ টি অবৈধ বালি গাড়ি, কয়েকলক্ষ টাকা জরিমানা বাবদ আদায় করা হয়েছে বলে ভূমি দফতর সূত্রে জানা গিয়েছে। এই অভিযান অংশ নিয়েছে বালি - মোরাম খাদান কারবার দেখাশোনার জন্য গঠিত ব্লক প্রশাসনের বিশেষ টাস্ক ফোর্স। ব্লক ও পুলিশ প্রশাসনের সাথে বিএলআরও দফতরকে নিয়ে গঠিত এই টাস্ক ফোর্সের সদস্যেরা নজরদারি করা শুরু করেছেন। অতিরিক্ত জেলাশাসক (ভূমি ও ভূমি সংস্কার) উত্তম অধিকারী বলেন, ‘‘গড়বেতা সহ অন্যত্র অবৈধ বালি-মোরাম কারবারের বিরুদ্ধে অভিযান চলছে, ধারাবাহিকভাবেই চলছে। অবৈধ কারবার ধরা পড়লেই কড়া ব্যবস্থা নিতে বলা হয়েছে প্রশাসনকে।’’

গড়বেতায় এই কারবার বন্ধে উদ্যোগী হয়েছে পঞ্চায়েত প্রশাসনও। গড়বেতা ১ পঞ্চায়েত সমিতির সহ সভাপতি তথা তৃণমূলের ব্লক সভাপতি সেবাব্রত ঘোষ বলেন, ‘‘আমরা প্রশাসনকে বলেছি এইসব অবৈধ কারবারের বিরুদ্ধে কড়া ব্যবস্থা নিতে, ইতিমধ্যে পুলিশ প্রশাসন জোরদার অভিযান শুরু করেছে। এই অবৈধ কারবার বন্ধ করতে নির্বাচিত পঞ্চায়েত প্রতিনিধিদেরও উদ্যোগী হতে বলা হয়েছে।’’