লোকসভা ভোটের আগে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর সভা ভন্ডুলের চেষ্টার অভিযোগ উঠেছিল রাজ্যের শাসক দলের বিরুদ্ধে। ভোটের পরে ফের বিজেপির শ্রমিক সংগঠন ভারতীয় মজদুর সংঘের রাজনৈতিক কর্মসূচি ভন্ডুলের চেষ্টার অভিযোগ উঠল সেই তৃণমূলের বিরুদ্ধে।

সোমবার সকাল থেকে ভারতীয় মজদুর সংঘের (বিএমএস) সভা ঘিরে দফায় দফায় উত্তপ্ত হয়ে ওঠে হলদিয়ার টাউনশিপ এলাকা। সভা শুরুর কিছু আগে থেকেই এলাকায় তৃণমূল লোক জড়ো করতে শুরু করে বলে অভিযোগ। উল্লেখ্য, এদিন হলদিয়ার বি বি ঘোষ অডিটোরিয়ামে সভার আয়োজন করেছিলেন বিএমএস-এর জেলা নেতৃত্ব। অনুষ্ঠান ভবনটি হলদিয়া বন্দর কর্তৃপক্ষের অধীনে রয়েছে। তাদের অনুমোদন নেওয়া হয়েছিল বলে বিএমএস নেতৃত্বর দাবি।

এ দিন সভায় বিজেপি কর্মীদের আসতে বাধা দেওয়ার পাশাপাশি অডিটোরিয়ায়ের সামনে জমায়েত হয়ে শাসক দলের লোকজন বিজেপিকে উদ্দেশ্য করে গালিগালাজ করতে থাকে বলে অভিযোগ। বিএমএস-এর জেলা সম্পাদক প্রদীপ কুমার বিজলির অভিযোগ, হলদিয়ার ১০ টি কারখানার এক হাজারেরও বেশি শ্রমিকের এদিন তৃণমূল ছেড়ে সংগঠনে যোগ দেওয়ার কথা ছিল। তাদের আটকাতে বিভিন্ন এলাকায় বাধা দেওয়া হয়।

দুর্গাচক, হেলিপ্যাড ময়দান চত্বর সহ একাধিক এলাকায় বিজেপি কর্মী-সমর্থকদের গাড়ি ঘুরিয়ে দেওয়া হয় বলে অভিযোগ। এমনকী সংগঠনের কয়েক জন কর্মীকে মারধরও করা হয়। অভিযোগ প্রথমে পুলিশ না থাকলেও পরে পরিস্থিতি উত্তপ্ত হতে থাকলে ঘটনাস্থলে পৌঁছয় কেন্দ্রীয় শিল্প নিরাপত্তা রক্ষীবাহিনী। পরে বেলা দেড়টা নাগাদ সম্মেলন শুরু হয়। সভায় অল্প সংখ্যক কর্মী-সমর্থক আসায় কিছুক্ষণের মধ্যে সম্মেলন শেষ করে দেওয়া হয়।সংগঠনের রাজ্য সম্পাদক উজ্জ্বল মুখোপাধ্যায় এবং রাজ্য সভাপতি তরুণ কান্তি ঘোষ প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

সংগঠনের জেলা সম্পাদক প্রদীপ কুমার বিজলির অভিযোগ, তৃণমূল যে ভাবে জমায়েত করে অশান্তি পাকানোর চেষ্টা করল তা হলদিয়া শিল্পাঞ্চলের পক্ষে নিন্দনীয় ঘটনা। পুলিশ প্রশাসনের কাছে সম্মেলন শুরু করতে বারবার সহযোগিতা চাওয়া হলেও সাড়া মেলেনি।

শাসকদলের শ্রমিক সংগঠন আইএনটিটিইউসি-র জেলা কার্যকরী সভাপতি শিবনাথ সরকারের দাবি, ‘‘হলদিয়ায় বিএমএস-এর কোনও স্বীকৃতি নেই। শুধুমাত্র প্রচারের আলোয় আসতেই এ সব করা হচ্ছে।’’ তবে লোকজন জড়ো করে অশান্তি পাকানোর অভিযোগ প্রসঙ্গে কোনও মন্তব্য করতে চাননি আইএনটিটিইউসি নেতৃত্ব। বিএমএসের অভিযোগ, শাসক দলের লোকজনেরা এ দিন যে জমায়েত করেছিল, তার জন্য পুলিশ প্রশাসনের কাছে অনুমতি নেওয়া হয়নি। এ ব্যাপারে হলদিয়ার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার পারিজাত বিশ্বাস বলেন, ‘‘বিএমএস-এর সম্মেলন ঘিরে কোনও গোলমালের খবর আমাদের কাছে নেই। এলাকায় পুলিশ মোতায়েন ছিল। ওখানে অন্য কোনও রাজনৈতিক দল লোকজন জড়ো করেছিল কিনা খতিয়ে দেখা হচ্ছে।’’