সম্প্রীতি যাত্রা করে নিজেদের দলীয় কার্যালয় পুনর্দখল করল তৃণমূল।

রবিবার নারায়ণগড়ের কাশীপুর পঞ্চায়েত এলাকায় সম্প্রীতি যাত্রা করেন স্থানীয় বিধায়ক প্রদ্যোত ঘোষ। তৃণমূলের অভিযোগ ছিল, লোকসভা নির্বাচনের পর তাদের অঞ্চল কার্যালয়টি বিজেপি দখল করে। ভেঙে দেওয়া হয়েছিল কার্যালয় উদ্বোধনের ফলকটিও। ফলে দীর্ঘদিন এলাকার তৃণমূল নেতারা কার্যালয়ে ঢুকতে পারেননি। এলাকায় দলের কাজও তেমন করতে পারছিলেন না তৃণমূল নেতারা। বিজেপির বক্তব্য ছিল, তৃণমূলের সঙ্গে মানুষ নেই তাই এলাকায় কর্মসূচি নিতে পারেনি শাসক দল। সম্প্রীতি যাত্রার মিছিলের পর এ দিন বিধায়ক ও নারায়ণগড় ব্লক তৃণমূলের সভাপতি মিহির চন্দের উপস্থিতিতে কার্যালয়টি খোলা হয়। অশান্তি এড়াতে প্রচুর পুলিশ মোতায়েন ছিল। কার্যালয়ের চারপাশে বাঁধা হয়েছে তৃণমূলের পতাকা। দলীয় পতাকা উত্তোলন করা হয়েছে। বিধায়ক বলেন, ‘‘জোর করে দলীয় কার্যালয়টি দখল করেছিল বিজেপি। বারবার বলার পরেও খুলে দেওয়া হয়নি। এ দিন আমাদের কার্যালয় গণতান্ত্রিক পদ্ধতিতে খুলে নিলাম।’’ 

এ দিন সম্প্রীতি যাত্রা করেছে দাঁতন ২ ব্লক তৃণমূল। জেনকাপুরে মিছিলে উপস্থিত ছিলেন স্থানীয় বিধায়ক বিক্রমচন্দ্র প্রধান ও ব্লক তৃণমূলের সভাপতি শৈবাল গিরি। পথসভায় বিক্রম বিজেপির রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষের সমালোচনা করেন। তিনি বলেন, ‘‘সঙ্কল্প যাত্রার নাম করে দিলীপ এলাকায় উস্কানিমূলক মন্তব্য করে গিয়েছেন। অহিংসার বদলে হিংসা ছড়িয়েছেন। এ মেনে নেওয়া যায় না।’’