টিউশনে যাওয়ার পথে এক স্কুলছাত্রের চুল কেটে নেওয়ার অভিযোগ উঠল। বৃহস্পতিবার সকালে কাঁথির দেশপ্রাণ ব্লকের ডিঙ্গলবেড়িয়ায় ওই ঘটনায় পঞ্চম শ্রেণির ওই ছাত্রের মা কাঁথি থানায় অভিযোগ করেছেন। অভিযোগ পেয়ে তদন্ত করছে পুলিশ।

পুলিশ এবং ছাত্রের পরিবার সূত্রে জানা গিয়েছে, এ দিন সকালে কাঁথি থানার দক্ষিণ সারদা গ্রামের বাসিন্দা সুমন নাগ টিউশনে যাচ্ছিল। তার মা পুলিশকে জানান, ছেলে তাঁকে জানিয়েছে, এ দিন রাস্তায় যাওয়ার সময় এক যুবক এসে তাকে তার বাড়ি কোথায়, কোথায় যাচ্ছে জানতে চায়। ওই যুবকের মুখ ঢাকা ছিল।  ছেলে বলে যে সে পড়তে যাচ্ছে। এরপর ওই যুবক দড়ি দিয়ে সুমনকে বাঁধার চেষ্টা করলে সে তার হাতে কামড়ে দিয়ে ছুটে পালানোর চেষ্টা করে। কিন্তু ওই যুবক সুমনকে ধরে ফেলে ও ক্ষুর জাতীয় ধারাল কিছু দিয়ে তার মাথার পিছনে চুলের কিছুটা কামিয়ে দেয় এবং তারপর বাইকে চেপে চলে যায়।

সুমনের মা মণিদেবীর দাবি, বিশেষ উদ্দেশ্য নিয়েই ওই যুবক এমন কাজ করেছে। স্থানীয় গ্রাম পঞ্চায়েত সদস্য সমীর পাণ্ডব বলেন, “ঘটনাটি শুনেছি। মনে হয় কেউ বদমায়েসি করে এমনটা করে থাকতে পারে। এ বিষয়ে গ্রামের লোকজনকে নিয়ে মিটিং করা হবে। আর যাতে এমন না ঘটে সে জন্য পুলিশের পাশাপাশি এলাকার মানুষও নজরদারি চালাবেন। এই নিয়ে কোনওরকম কানাকানি, গুজব বরদাস্ত করা হবে না।’’ কাঁথির এসডিপিও সৈয়দ মহম্মদ মামদাদুল হাসান বলেন, “তদন্ত শুরু হয়েছে। পুলিশ যথাযথ নজরদারি চালাচ্ছে। এনিয়ে অযথা আতঙ্কের কারণ নেই।’’