• নিজস্ব সংবাদদাতা
সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে

বৃষ্টি থামলেই জাঁকিয়ে শীত 

Rain
গায়ের চাদর মাথায় দিয়েই বৃষ্টি থেকে বাঁচার চেষ্টা। শুক্রবার দাসপুরের টালিভাটায়। ছবি: কৌশিক সাঁতরা

Advertisement

অকাল বৃষ্টি শুরু হয়েছে পশ্চিম মেদিনীপুরেও। বৃহস্পতিবার গভীর রাত থেকে বৃষ্টি শুরু হয়। শুক্রবার দিনভর বৃষ্টি চলেছে। এ দিন দিনভর মেঘলা আবহাওয়া ছিল। তার জেরে তাপমাত্রা খানিক বেড়েছে। তবে এই পরিস্থিতি কেটে গেলে ফের জাঁকিয়ে শীত পড়ার সম্ভাবনা রয়েছে।  

শুক্রবার সকাল থেকেই মেদিনীপুরে আকাশের মুখ ভার ছিল।  বৃষ্টির পরিমাণ আরও কিছুটা বাড়তে পারে। এদিন বিকেলেই প্রশাসনের তরফে জানানো হয়, আবহাওয়ার পূর্বাভাস অনুযায়ী, রাজ্যের অন্য কয়েকটি জেলার সঙ্গে পশ্চিম মেদিনীপুরেরও দু’এক স্থানে বজ্রবিদ্যুৎ-সহ বৃষ্টিপাতের সম্ভাবনা রয়েছে। জানা যাচ্ছে, বৃহস্পতিবার মধ্যরাত থেকে শুক্রবার রাত পর্যন্ত মেদিনীপুরে ২০ মিলিমিটারের বেশি বৃষ্টিপাত হয়েছে। বিদ্যাসাগর বিশ্ববিদ্যালয়ের সেন্টার ফর এনভায়রনমেন্টাল স্টাডিজ সূত্রে খবর, শুক্রবার দুপুর ১২টা থেকে বিকেল ৪টের মধ্যে বৃষ্টি হয়েছে ১০.১৫ মিলিমিটার। এই সময়ে মেদিনীপুরের সর্বোচ্চ তাপমাত্রা ছিল ১৮.৪৩ ডিগ্রি সেলসিয়াস। সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ছিল ১৫.৯৮ ডিগ্রি সেলসিয়াস। অন্য দিকে, বৃহস্পতিবার রাত ১২টা থেকে শুক্রবার দুপুর ১২টা পর্যন্ত বৃষ্টি হয়েছে ৮.৩৮ মিলিমিটার। দিনের বেশিরভাগ সময়েই অবশ্য বিক্ষিপ্তভাবে ঝিরঝিরে বৃষ্টি হয়েছে। বৃষ্টির জেরে এ দিন জেলার জনজীবন ব্যাহত হয়েছে। তবে ভারী বৃষ্টি হয়নি।   দিন কয়েক আগেই মেদিনীপুরের সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ৭ ডিগ্রি সেলসিয়াসের নীচে নেমে গিয়েছিল। এই পরিস্থিতি কেটে গেলেই ফের জাঁকিয়ে শীত পড়তে পারে। 

এ দিকে, অসময়ের বৃষ্টিতে মেলা প্রস্তুতিতে ব্যাঘাত ঘটেছে ঘাটালে। আজ, শনিবার থেকে বীরসিংহে বিদ্যাসাগর মেলা শুরুর কথা। কিন্তু শুক্রবারের বৃষ্টিতে বীরসিংহ ভগবতী হাইস্কুলের মাঠ জল-কাদায় ভরেছে।  সমস্যায় পড়েছেন দোকানিরাও। স্টল তৈরিতে সমস্যা হচ্ছে। যাঁরা দোকানে মালপত্র সাজিয়ে ফেলেছেন, তাঁরা আরও সমস্যায় পড়েছেন। তবে বসে নেই উদ্যোক্তরা। নালা কেটে জল বের করা হচ্ছে। মেলা কমিটির পক্ষে সুজিত বন্দ্যোপাধ্যায় বলেন, “বৃষ্টিতে  উদ্বোধনে সমস্যা হবে না। শনিবার  আকাশ পরিষ্কার থাকবে বলে আশা।

সবাই যা পড়ছেন

Advertisement

সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে
আরও পড়ুন

সবাই যা পড়ছেন

আরও পড়ুন