দলমার দাঁতালের একটি দল ঘাঁটি  গেড়ে রয়েছে গড়বেতার মাগুরাশোলের জঙ্গলে। সেই দলে ৫০ থেকে ৫৫টি হাতি রয়েছে বলে বন দফতর সূত্রে জানা গিয়েছে। ওই জঙ্গলটি আমলাগোড়া রেঞ্জের মধ্যে পড়ে। বন কর্মীরা মাগুরাশোলের জঙ্গলে হাতিগুলির গতিবিধির উপর নজরদারি চালাচ্ছেন। ইতিমধ্যেই হাতির দলটি ফসলও নষ্ট করেছে।

বন দফতর ও স্থানীয় সূত্রে জানা গিয়েছে, ওই দলে ১৮ থেকে ২০টি শাবক রয়েছে। তাদের আগলে রেখেছে কয়েকটি পূর্ণবয়স্ক দাঁতাল। দলমার হাতিদের দলটি নির্দিষ্ট রুটেই গড়বেতায় এসে গিয়েছে। খাবারের সন্ধানে প্রতি বছরই পুজোর আগে আগে মাগুরাশোলের জঙ্গলে হাতি আসে। এবারও সেই চেনা পথেই শালবনির পিড়াকাটার জঙ্গল হয়ে মিরগা, মঙ্গলপাড়া, টাঙাশোল, পাথরমারি, হদহদি, খড়কাটা, লেদাগামার, জামডোবার জঙ্গল হয়ে আমলাগোড়ার মাগুরাশোলের জঙ্গলে ঘাঁটি গেড়েছে দাঁতালরা। আমলাগোড়া রেঞ্জের এক আধিকারিক জানান, প্রায় ৫০ হেক্টর জমির ধান ও আনাজের ক্ষতি করেছে হাতিরা। ক্ষয়ক্ষতির তথ্য সংগ্রহ করছেন বনকর্মীরা। 

এই সময়ে অনেকে জঙ্গলে বনজ মাশরুম তুলতে যান। কাঠ -পাতাও আনতে যান অনেকে। স্থানীয় সূত্রে জানা গিয়েছে, দুর্ঘটনা এড়াতে বনকর্মীরা মাইকে হেঁকে জঙ্গল সংলগ্ন এলাকার বাসিন্দাদের সতর্ক করছেন। বন সুরক্ষা কমিটির সদস্যদেরও সজাগ থাকতে বলা হয়েছে। বন দফতরের রূপনারায়ণ বিভাগের ডিএফও অসিতাভ চট্টোপাধ্যায় বলেন, ‘‘মাগুরাশোলের জঙ্গলে ৫০-৫৫টি হাতির দল তিন দিন ধরে ঘাঁটি গেড়ে রয়েছে। ফসল-সহ অন্যান্য ক্ষয়ক্ষতি এড়াতে তাদের গতিবিধির উপর সর্বদা নজরদারি চালানো হচ্ছে। এলাকার বাসিন্দাদের সতর্ক করে দেওয়া হয়েছে।’’