• নিজস্ব সংবাদদাতা
সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে

স্টেশনে শুরু নয়া ফুট ব্রিজের কাজ 

Panskura Station
—ফাইল ছবি

Advertisement

দীর্ঘদিনের দাবি মেনে পাঁশকুড়া রেল স্টেশনে একটি নতুন ফুট ওভার ব্রিজ তৈরির কাজ শুরু করল রেল। ব্রিজটি তৈরি হলে জুড়ে যাবে স্টেশনের দুই প্রান্ত ।

দক্ষিণ-পূর্ব রেলের একটি গুরুত্বপূর্ণ স্টেশন পাঁশকুড়া। জংশন স্টেশন হওয়ায় এখানে সব সময় যাত্রীদের ভিড় লেগেই থাকে। কিন্তু লেভেল ক্রসিংয়ের যানজটের ফলে ঘাটালের দিক থেকে বাস আসা যাত্রীরা অনেক সময় ট্রেন ধরতে পারেন না বলে অভিযোগ। এ জন্য বহু যাত্রীই ক্রসিংয়ের বেশ কিছুটা আগে কনকপুরে বাস থেকে নেমে ঝুঁকি নিয়ে রেললাইন পার হন। এতে মাঝে মধ্যেই ঘটে দুর্ঘটনা।  

রেল যাত্রীদের দাবি ছিল, উত্তরে কনকপুরের দিকে একটি টিকিট কাউন্টার করে ফুট ওভার ব্রিজ দিয়ে জুড়ে দেওয়া হোক স্টেশনের দক্ষিণ দিক তথা পাঁশকুড়া বাজারের দিকের সঙ্গে। তাহলে ঘাটালের দিক থেকে আসা যাত্রীদের ঝুঁকি নিয়ে রেল লাইন পেরিয়ে উল্টো দিকে থাকা টিকিট কাউন্টারে যেতে হবে না। এতে নিরাপত্তার বিষয়টি সুরক্ষিত হওয়ার পাশাপাশি, পুরনো টিকিট কাউন্টারের উপরে চাপ কমবে বলে দাবি নিত্যযাত্রীদের। উল্লেখ্য, বর্তমানে পাঁশকুড়া স্টেশনের দক্ষিণ দিকে টিকিট ঘর রয়েছে। সেখান থেকে একটি ফুট ওভার ব্রিজও রয়েছে। কিন্তু সেটি ৬ নম্বর প্ল্যাটফর্মে এসেই শেষ হয়ে গিয়েছে।  

রেল যাত্রীদের দীর্ঘদিনের ওই দাবি মেনে অবশেষে পাঁশকুড়া স্টেশনে নতুন ফুট ওভার ব্রিজ তৈরির কাজ শুরু হয়েছে। রেল সূত্রে খবর, নতুন ফুট ওভারব্রিজটি উত্তর দিকে ৬ নম্বর প্লাটফর্ম পেরিয়ে শেষ হবে। কনকপুর থেকে একটি নতুন রাস্তা তৈরি করে জুড়ে দেওয়া হবে ৬ নম্বর প্ল্যাটফর্মের কাছ নতুন ফুট ওভার ব্রিজে। এর ফলে  পাঁশকুড়া স্টেশনের পুরনো টিকিট কাউন্টারগুলিতে যেমন চাপ কমবে, তেমনিই চাপ কমবে  পাঁশকুড়া স্টেশন বাজারের রাস্তায়।

পাঁশকুড়ার বাসিন্দা তথা প্রাক্তন কাউন্সিলর কল্যাণ রায় বলেন, ‘‘দীর্ঘদিন ধরে এই বিষয়ে আর্জি জানিয়ে আমরা রেল কর্তৃপক্ষকে চিঠি দিয়ে আসছি। অবশেষে রেল ব্রিজের কাজ শুরু করেছে। নতুন ব্রিজ তৈরি হলে স্টেশনের ঘাটালের দিক থেকে আসা মানুষজনকে আর লেভেল ক্রসিংয়ে আটকে থাকতে হবে না। ঝুঁকি নিয়ে রেল লাইন পারাপারও করতে হবে না।’’

কতদিন লাগবে নতুন ফুট ওভার ব্রিজ এবং টিকিট ঘর তৈরি করতে? এই বিষয়ে রেলের খড়গপুর ডিভিশনের জন সংযোগ আধিকারিক আদিত্য চৌধুরী বলেন, ‘‘দ্রুত কাজ হচ্ছে। আমরা আশা করছি আগামী ছ-মাসের মধ্যে কাজ শেষ হয়ে যাবে।’’ 

সবাই যা পড়ছেন

Advertisement

সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে
আরও পড়ুন

সবাই যা পড়ছেন

আরও পড়ুন