• নিজস্ব সংবাদদাতা
সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে

চাকরি দেওয়ার নামে ‘প্রতারণা’, ধৃত যুবক

সতীশ গ্রেন
ধৃত: সতীশ গ্রেন। নিজস্ব চিত্র

চাকরি দেওয়ার নাম করে টাকা নিয়ে আন্তঃরাজ্য জালিয়াতি চক্র চালানোর অভিযোগে গ্রেফতার করা হল এক যুবককে। বৃহস্পতিবার রাতে খড়্গপুরের ইন্দা থেকে সতীশ গ্রেন নামে ওই যুবককে গ্রেফতার করে টাউন থানার পুলিশ। ধৃতের বাড়ি শহরের ইন্দায়। 

পুলিশ সূত্রে জানা গিয়েছে, গত ১২ ডিসেম্বর তাঁর বিরুদ্ধে টাউন থানায় অভিযোগ জানিয়েছিলেন শহরের ভগবানপুরের কর্মপ্রার্থী যুবক রূপেশ পাসোয়ান। অভিযোগ, ওই যুবকের থেকে টাকা নিয়ে চাকরি দেওয়ার কথা বলে প্রতারণার করে সতীশ। এমনকী টাকা ফেরত চাওয়ায় আগ্নেয়াস্ত্র দেখিয়ে খুনের হুমকি দেওয়ার অভিযোগও উঠেছে। ঘটনায় টাকা নিয়ে প্রতারণা, নকল স্ট্যাম্প ব্যবহার, অস্ত্র আইন-সহ নানা ধারায় মামলা রুজু করেছে পুলিশ। 

পুলিশ সূত্রে জানা গিয়েছে, গত কয়েক বছর ধরেই নিজেকে বিটেক উত্তীর্ণ বলে পরিচয় দেওয়া বছর একত্রিশের সতীশ ইন্দায় একটি চাকরির বিষয়ে পরামর্শ দেওয়ার ফার্ম খুলে বসেছিলেন। এমনকী স্থানীয় বহু যুবককে উপযুক্ত চাকরির পরামর্শও দিচ্ছিলেন তিনি। বহু কর্মপ্রার্থীকে বিভিন্ন সংস্থায় ইন্টারভিউয়ের জন্য পাঠিয়ে তিনি খুব কম সময়েআস্থা অর্জন করেছিলেন। গত এক বছর ধরে নিজেকে একটি বহুজাতিক সংস্থার এজেন্ট পরিচয় দিয়ে তিনি টাকার বিনিময়ে চাকরি দেওয়ার ফাঁদ পেতেছিলেন। সেই ফাঁদে পা দিচ্ছিলেন বহু যুবক। অনলাইনেও চলছিল কারবার। 

অভিযোগ, শহরের যুবকদের থেকেও চাকরি দেওয়ার নাম করে লক্ষ-লক্ষ টাকা হাতিয়ে নেন সতীশ। ওই যুবকদের মধ্যে ছিলেন রূপেশ পাসোয়ানও। রূপেশের দাবি, ২০১৭সালের ফেব্রুয়ারিতে তিনি সতীশকে ২ লক্ষ টাকা নগদ ও ১ লক্ষ টাকার চেক দেন। তারপরেই ওই বহুজাতিক সংস্থায় চাকরির নিয়োগপত্র দেয় সতীশ। সেই নিয়োগপত্র নিয়ে জামশেদপুরে যান রূপেশ। কিন্তু সেখানে গিয়েই জানতে পারেন ওই নিয়োগপত্র জাল। তার পরেই সতীশকে এসে বিষয়টি জানাতেই অন্য একটি মেডিসিন সংস্থায় চাকরির সুযোগ করে দেওয়ার প্রতিশ্রুতি দেওয়া হয়। 

রূপেশের অভিযোগ, এই চাকরির জন্য রূপেশ-সহ বেশ কয়েকজন যুবকের থেকে ফের টাকা নিয়ে গোয়া নিয়ে যায় সতীশ। এমনকী গোয়াতে চাকরির পরামর্শ দেওয়ার ওই ফার্মের প্রধান কার্যালয় বলেও জানানো হয়। এমনকী ওই যুবকদের গোয়ায় নিয়ে গিয়ে স্থানীয় বাসিন্দা এক যুবককে সতীশ নিজের ঊর্ধ্বতন আধিকারিক বলে পরিচয় দিয়ে আলাপ করিয়ে দেন। তার পরে ওই যুবকদের চাকরি না হলে ধাপে-ধাপে টাকা ফেরত দিয়ে দেওয়া আশ্বাস দেন গোয়ার ওই যুবক। কিন্তু তার পরেও চাকরি না হওয়ায় রূপেশ সতীশের থেকে সম্প্রতি টাকা চাওয়া শুরু করে।

অভিযোগ, গত ৩ ডিসেম্বর টাকা দেওয়ার নাম করে গিরি ময়দান রেল স্টেশনের কাছে ডেকে তাঁকে আগ্নেয়াস্ত্র দেখায় সতীশ। 

এমনকী রূপেশকে গত কয়েকদিন ধরে নিয়মিত হুমকি দেওয়া হচ্ছিল। পরিস্থিতি বেগতিক বুঝে গত ১২ ডিসেম্বর থানায় সতীশের বিরুদ্ধে অভিযোগ দায়ের করেন রূপেশ। এই জালিয়াতি চক্রে আরও অনেকে যুক্ত রয়েছে বলে মনে করছে পুলিশ। এমনকী গোয়া ছাড়াও অন্য রাজ্যেও এই জাল ছড়িয়ে রয়েছে বলে মনে করা হচ্ছে। এ জন্য ধৃতকে নিজেদের হেফাজতে নিয়ে তদন্ত চালানো হবে বলে জানিয়েছে পুলিশ।

সবাই যা পড়ছেন

সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে
আরও পড়ুন

সবাই যা পড়ছেন

আরও পড়ুন