• নিজস্ব সংবাদদাতা
সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে

জোড়া পদ্মের আড়ালে কি জোট

BJP
—প্রতীকী চিত্র।

দিল্লি বহুদূর, কলকাতাও।

কেন্দ্রে-রাজ্যে মারকাটারি শত্রুতা থাকলেও তাই তৃণমূল স্তরে সেই শত্রুই পরম মিত্র হয়ে উঠছে। এমনকী যুযুধান বিজেপি-তৃণমূলের মধ্যেও।

তৃণমূলের ঘোষিত ‘অচ্ছুৎ’ বিজেপি কিন্তু মাটির কাছাকাছি, স্কুলের পরিচালন সমিতির নির্বাচন থেকে শুরু করে সমবায় সমিতির পরিচালন কমিটির নির্বাচনে পরম মিত্রের হয়ে উঠছে।

সৌজন্য মুর্শিদাবাদ-জিয়াগঞ্জ ব্লকের প্রসাদপুর গ্রাম পঞ্চায়েতের ‘মৌজা বালি কৃষি সমবায় সমিতি’র পরিচালন কমিটির আসন্ন নির্বাচন। বছর পাঁচেক আগে সিপিএমের বিরুদ্ধে লড়াই করে ওই সমবায় সমিতি দখল করেছিল কংগ্রেস। এ বার সেই সিপিএমের সঙ্গেই গাঁটছড়া বেঁধে আসরে নেমেছে কংগ্রেস।

বিজেপি-র সঙ্গে গাঁটছড়া বাঁধার কথা অবশ্য তৃণমূল মানতে চাইছে না। সমবায় সমিতির পরিচালন কমিটির ৬ সদস্য পদের নির্বাচন রয়েছে আগামী ১৩ ডিসেম্বর। মনোনয়ন পত্র প্রত্যাহারের শেষ দিন ছিল গত ১ ডিসেম্বর। ওই ৬টি পদের জন্য প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন মোট ১২ জন। মুর্শিদাবাদ-জিয়াগঞ্জ ব্লক কংগ্রেস সভাপতি তথা ওই সমবায় সমিতির বিদায়ী চেয়ারম্যান কংগ্রেসের আব্দুল ওয়াহাব বলেন,  ‘‘তৃণমূলের প্রার্থী রয়েছে পাঁচটি। বিজেপি-র সঙ্গে অলিখিত জোট বেঁধে আমার বিরুদ্ধে প্রার্থী করা হয়েছে বাবুলাল পালকে।’’ এলাকায় দীর্ঘ দিন ধরে বাবুলাল বিজেপি-র পরিচিত কর্মী। বিজেপির মুর্শিদাবাদ জেলা কমিটির সহ-সভাপতি শাখারভ সরকার বলেন, ‘‘কংগ্রেসের অভিযোগ মিথ্যা। তৃণমূলের সঙ্গে বিজেপির সমঝোতা, বা জোট হয়নি।’’ তৃণমূলের মুর্শিদাবাদ-জিয়াগঞ্জ ব্লক সভাপতি মসরৎ শেখ বলেন, ‘‘বিজেপি নয়, বাবুলাল তৃণমূলেরই প্রার্থী।’’ 

সবাই যা পড়ছেন

সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে
আরও পড়ুন

সবাই যা পড়ছেন

আরও পড়ুন