• নিজস্ব সংবাদদাতা 
সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে

ঘরেই মৃত্যু স্ত্রীর, জানেন না স্বামী

dead body
—প্রতীকী চিত্র।

একই বাড়িতে ছিলেন স্বামী ও স্ত্রী। তা সত্ত্বেও অসুস্থ স্ত্রী-র যে মৃত্যু হয়েছে তা স্বামী বুঝতে পারেননি বলে দাবি করেছেন। চাকদহ থানার মদনপুর পূর্বপাড়া এলাকার এই ঘটনায় পুলিশ অস্বাভাবিক মৃত্যুর অভিযোগ রুজু করে ঘটনার তদন্ত শুরু করেছে।

ঘরের মধ্যে থেকে যে মহিলার দেহ উদ্ধার হয়েছে তাঁর নাম ভারতী দত্ত (৪৮)। বৃহস্পতিবার মৃতদেহ যখন উদ্ধার করা হয় তখন সেটিতে পচন ধরেছিল। কল্যাণী জওহরলাল নেহরু মেমোরিয়াল হাসপাতালে দেহের ময়না তদন্ত হয়েছে। তাঁর স্বামী বাচ্চু দত্ত পেশায় গাড়িচালক। মদ খেয়ে অধিকাংশ সময় মত্ত থাকেন বলে এলাকায় দুর্নাম রয়েছে। তিনি দাবি করেন, “কিডনির সমস্যা ছিল ওর। বুধবার সন্ধ্যাতেই ওর সঙ্গে কথা হয়েছিল। অসুস্থ ছিল বলে ঘরে শুয়ে থাকত। আমি বারান্দায় শুতাম। অনেক দিনই ও লেপ মুড়ি দিয়ে ঘুমিয়ে থাকত। এ দিনও ওই ভাবেই শুয়ে ছিল। মারা গিয়েছে বুঝতে পারিনি।”

প্রতিৈৈবেশী বুলা চৌধুরী বলেন, “মাস নয়েক হয়েছে ওঁরা দু’জন এই বাড়িতে ভাড়া এসেছেন। প্রায় প্রতিদিন ওই মহিলার সঙ্গে আমার কথা হয়। গত তিন দিন থেকে ওঁকে দেখতে পাচ্ছিলাম না। তাই খোঁজ নিতে ওঁদের বাড়ি যাই। বাচ্চুবাবুকে জিজ্ঞাসা করি, ‘দিদি কোথায়? তাঁকে দেখতে পাচ্ছি না!’ উনি জানান, স্ত্রী ঘরে শুয়ে রয়েছে। উঁকি মেরে দেখি, কম্বল চাপা দেওয়া অবস্থায় শুয়ে রয়েছেন। আমার কথায় ওঁর স্বামী কম্বল সরিয়ে দেন। দেখেই আমার মনে হয়, তিনি আর বেঁচে নেই। সঙ্গে সঙ্গে স্থানীয় পঞ্চায়েতে খবর দিই। পরে পুলিশ এসে দেহ নিয়ে যায়।”

সবাই যা পড়ছেন

সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে
আরও পড়ুন

সবাই যা পড়ছেন

আরও পড়ুন