• সামসুদ্দিন বিশ্বাস
সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে

শান্তির বার্তা ইমামদেরও

1
প্রতীকী চিত্র

Advertisement

দিল্লি থেকে যাঁরা নাগরিকত্ব আইন পাশ করিয়েছেন, তাঁদের গায়ে রেল লাইনের পাথর লাগবে না। ট্রেনে করে যে সাধারণ মানুষ যাতায়াত করছেন তাঁদের গায়েই সেই পাথর লাগবে। তাই নাগরিকত্ব আইনের প্রতিবাদ হিংসাত্মক ভাবে নয়, শান্তিপূর্ণ ভাবে করুন। শনিবার সকালে ইমাম-মোয়াজ্জিনদের সংগঠনের পক্ষ থেকে এমন আবেদন জানানো হল। 
এ দিন অল ইন্ডিয়া ইমাম-মোয়াজ্জিন অ্যান্ড সোশ্যাল ওয়েলফেয়ার অর্গানাইজেশনের মুর্শিদাবাদের সম্পাদক আব্দুর রাজ্জাক বলছেন, ‘‘নাগরিকত্ব আইন, এনআরসির বিরুদ্ধে আমরা লাগাতার আন্দোলন চালিয়ে যাব। তবে আন্দোলন হবে শান্তিপূর্ণ।’’ 
শুক্রবার বিকেলে নাগরিকত্ব আইনের প্রতিবাদে বেলডাঙায় অশান্তি ছড়ায়। সেখানে রেল স্টেশনে হামলার পাশাপাশি বিডিও অফিস, থানায় আক্রমণ করে আন্দোলনকারীরা। শনিবার জঙ্গিপুর, লালবাগ ও ডোমকলের একাধিক জায়গায় সরকারি সম্পত্তিতেও আগুন লাগানো হয়েছে। এমন পরিস্থিতিতে ইমাম-মোয়াজ্জিন সংগঠনের জেলা সম্পাদক বলেন, ‘‘জেলায় যে সব জায়গায় সরকারি সম্পত্তি নষ্ট হয়েছে, তার জন্য আমাদের খুব খারাপ লাগছে। আগামী দিনে আন্দোলন যেন শান্তিপূর্ণ থাকে সে বিষয়ে আমাদের সংগঠনের পক্ষ থেকে ব্লকে ব্লকে বোঝানো শুরু করেছি। ইমাম, মোয়াজ্জিনেরাও এলাকায় এলাকায় সেই বার্তা দিচ্ছেন।’’
ওই সংগঠনের জেলা সভাপতি ওলিউল্লাহ বিশ্বাস শনিবার সন্ধ্যায় নওদার আমতলা বাজারে শান্তিপূর্ণ আন্দোলন করতে বৈঠক করেন। সেখানে ওই ব্লকের বিভিন্ন মসজিদের ইমাম-মোয়াজ্জিন-সহ এলাকার বেশ কিছু লোকজন উপস্থিত ছিলেন। বৈঠকে শান্তিপূর্ণ ভাবে আন্দোলন করার কথা বলা হয়েছে।
ওলিউল্লাহ বিশ্বাস বলছেন, ‘‘ইসলাম হিংসাকে প্রশ্রয় দেয় না। ইসলাম শান্তির কথা বলে। তাই নাগরিকত্ব আইনের প্রতিবাদে যেন হিংসাত্মক আন্দোলন না হয় তা আমরা জেলাবাসীকে বোঝাচ্ছি।’’ তাঁর দাবি, ‘‘নাগরিকত্ব আইন যত দিন না বাতিল হচ্ছে, ততদিনই প্রতিবাদ আন্দোলন কর্মসূচি করব, কিন্তু সেটা অবশ্য শান্তিপূর্ণ ভাবে হবে। দলমত, ধর্ম, নির্বিশেষে সকলকে নিয়ে আমরা আন্দোলন করব।’’ 
জেলা ইমাম তথা ওয়াকফ বোর্ডের জেলার কোঅর্ডিনেটর নিজামুদ্দিন বিশ্বাস বলছেন, ‘‘শান্তিশৃঙ্খলার সঙ্গে আন্দোলন করুন। অন্যের প্ররোচনায় হিংসাত্মক আন্দোলনে যাবেন না। আমরা শান্তিপূর্ণ ভাবে 
আন্দোলনের পক্ষে।’’  
শুধু ইমাম মোয়াজ্জিনেরাই নন, জেলার বাসিন্দাদের একটা বড় অংশ নাগরিকত্ব আইনের প্রতিবাদে অহিংস আন্দোলনের কথা বলছেন। সোশ্যাল মিডিয়াতেও তাঁরা সে বিষয়ে সরব। বেলডাঙার সারগাছির সেলিমউর রমহান নাগরিকত্ব আইনের প্রতিবাদে কোথাও কোথাও যে হিংসাত্মক আন্দোলন হয়েছে তার বিরোধিতা করে শান্তিপূর্ণ আন্দোলনের 
কথা বলেছেন। 
শনিবার সেলিমউর বলছেন, ‘‘সরকারি সম্পত্তি আমাদেরই। তাই সরকারি সম্পত্তি নষ্ট করে, বাস-ট্রেনে আগুন লাগিয়ে হিংসাত্মক আন্দোলন করা উচিত নয়। সবাই সংযত হোন। শান্তিপূর্ণ ভাবে আন্দোলন করুন।’’ 
অন্য দিকে জেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে শান্তির বার্তা দিতে রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দোপাধ্যায়ের কয়েক মিনিটের ভিডিয়ো বার্তা জেলার বিভিন্ন এলাকায় দেওয়া হচ্ছে। এ দিন জেলাশাসক জগদীশপ্রসাদ মিনা বলেন, ‘‘জেলার রাজনৈতিক ও অন্য সংগঠনগুলোর সঙ্গে আমরা বৈঠক করে শান্তি বজার রাখতে বলেছি। তারাও সহযোগিতার 
আশ্বাস দিয়েছে।’’

সবাই যা পড়ছেন

Advertisement

সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে
আরও পড়ুন

সবাই যা পড়ছেন

আরও পড়ুন