• কৌশিক সাহা
সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে

ভোটের লড়াইয়ে নামলেও প্রচারে মন নেই সন্তোষের

Santosh
নির্দল প্রার্থী সন্তোষ দলুই। নিজস্ব চিত্র

Advertisement

ভোটে লড়ছেন। কিন্তু প্রচারে বেরোচ্ছেন না কান্দির উপনির্বাচনে নির্দল প্রার্থী সন্তোষ দলুই।

এমনকি, তিনি যে প্রার্থী, সে কথা জানেন না অনেক পড়শিও। তাঁর সমর্থনে দেওয়াল লিখন নেই। নেই কোনও পোস্টার।

প্রতিপক্ষরা গরম উপেক্ষা করে দাপিয়ে প্রচার করছেন। সেখানে মনোনয়নপত্র জমা দেওয়ার পর থেকেই বাড়িতে চুপটি করে বসে সন্তোষ। কান্দি পুরসভা এলাকায় ৭ নম্বর ওয়ার্ডের রসড়া এলাকার বাসিন্দা সন্তোষ শিক্ষাকর্মী হিসেবে  স্থানীয় একটি বেসরকারি কলেজে কর্মরত। দলুইপাড়ার বাসিন্দা ওই যুবক বর্তমানে এক পড়শির বাড়ি তৈরির দেখাশোনা করতে ব্যস্ত।

চার দিন পর ভোট! তাহলে প্রচার করছেন না কেন? মুচকি হেসে সন্তোষ বললেন, “কর্মীরা তো প্রচার করছে। তাহলেই হবে! আমি বিকেলে মোটরবাইক নিয়ে একবার গোপনে প্রচার করতে যাই।”

মনোনয়নপত্র দাখিলের বিষয়টি জানেন বাবা জয়দেব দলুই এবং স্ত্রী শ্যামলী দলুই। কিন্তু দেওয়াল লিখন বা পোস্টার কোনও কিছুই দেখা যায়নি ওই বিধানসভা কেন্দ্রে। এমনকি নিজের এলাকা রসড়া বা দলুই পাড়াতেও প্রচারের কোনও কিছু নজরে পড়ছে না বলে দাবি বাসিন্দাদের। তবে সন্তোষ বলেন, “মাইকে প্রচারে বিশ্বাস করি না। তাই মানুষের কাছে গিয়ে ভোট দেওয়ার কথা বলছি। এ ছাড়া আমি কোনওদিনই সরাসরি রাজনীতির সঙ্গে জড়িত নই। তেমন পরিচিতিও নেই।” তাহলে লোকে ভোট দেবে কেন? তিনি বলছেন, “মানুষ নির্দল প্রার্থীকে সাধারণত অবিশ্বাস করেন না। তাই ভোট আমি বেশি পাব বলেই মনে করছি।” সন্তোষবাবুর মা রেণুকা দলুই বলেন, “ছেলে বিধানসভা ভোটে দাঁড়িয়েছে। কিন্তু এত বড় কথা আমি জানি না!’’ 

পড়শি জয়দেব দলুই থেকে প্রিয়া দাসেরা বললেন, তাঁরা জানেনই না যে উপনির্বাচনে এবার সন্তোষ প্রার্থী হয়েছেন। প্রচার করতেও দেখেননি তাঁরা। 

তবে শাসকদল থেকে বিরোধী বিভিন্ন রাজনৈতিক দলের প্রার্থীদের সঙ্গে কি টক্কর দিতে পারবেন সন্তোষবাবু? চওড়া হাসি হেসে বলছেন, ‘‘জয় আমারই হবে।’’ 

সবাই যা পড়ছেন

Advertisement

সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে
আরও পড়ুন

সবাই যা পড়ছেন

আরও পড়ুন