মিছিল কই, এ তো রেকর্ড করা কথা গো!
প্রথমে শোনা যাচ্ছে— ‘আরএসপি-র প্রার্থী ইদ মহম্মদকে ভোট দিন।’ তার পরে সমস্বরে মহিলা ও পুরুষকণ্ঠ ধুয়ো তুলছে, ‘ভোট দিন, ভোট দিন।’
campaign

প্রচার এ ভাবেই: নিজস্ব চিত্র

দূর থেকে শুনলে মনে হচ্ছে, বড় কোনও মিছিল আসছে বুঝি!

প্রথমে শোনা যাচ্ছে— ‘আরএসপি-র প্রার্থী ইদ মহম্মদকে ভোট দিন।’ তার পরে সমস্বরে মহিলা ও পুরুষকণ্ঠ ধুয়ো তুলছে, ‘ভোট দিন, ভোট দিন।’

কেউ বলছেন, ‘‘এই বাজারেও আরএসপি-র মিছিলে বেশ ভিড় হয়েছে তো!’’ কেউ আবার বেশ উৎসাহী, ‘‘যাই, এক বার দেখে আসি!’’

কিন্তু বাইরে বেরিয়ে আসতেই ভুল ভাঙল। মিছিল কোথায়! বেলডাঙার রাস্তা দিয়ে ধীর গতিতে গড়িয়ে চলেছে মাইকবাঁধা একটি টোটো। যা বক্তব্য শোনা যাচ্ছে তা সবটাই রেকর্ড করা।

বেলডাঙা থেকে নওদা সর্বত্র ছবিটা কমবেশি একই রকম। বেলডাঙার ১৪ নম্বর ওয়ার্ডের বাসিন্দা রেণুকা মণ্ডল বলছিলেন, ‘‘ভরদুপুরে এই রোদে মিছিল বেরিয়েছে। বিকেলে মিছিল করলেই তো পারত! আমাকে হাজার অনুরোধ করলেও আমি বাবা এই সময় হাঁটতাম না।’’ পাশে থেকে রেণুকার স্বামী হাসতে হাসতে বললেন, ‘‘মিছিল কই, এ তো রেকর্ড করা কথা গো!’’

আরএসপি-র এক কর্মী বলছে‌ন, ‘‘সে ভাবে দেওয়াল দখল করা যায়নি। নেতা-কর্মীরা এখনও সে ভাবে রাস্তায় নামতে পারেননি। এ দিকে ভোটও চলে এসেছে। ফলে ভোট ময়দানে টিকে থাকতেই এই ব্যবস্থা। এটা বেলডাঙা বা নওদা নয়, বহু এলাকাতেই এ ভাবে টোটো ঘুরছে।’’

টোটোর প্রচারে ঈদ মহম্মদকে বামফ্রন্টের প্রার্থী বলা নিয়ে আপত্তি রয়েছে সিপিএমের। সিপিএমের জেলা কমিটির সদস্য শমিক মণ্ডল বলেন, ‘‘বামফ্রন্টের প্রার্থী বলাতে আমাদের আপত্তি আছে। সিদ্ধান্তের বাইরে গিয়ে আরএসপি নানা কায়দায় এই আসনে প্রার্থী দিয়েছে।’’

 দিল্লি দখলের লড়াই, লোকসভা নির্বাচন ২০১৯

আরএসপি-র বেলডাঙা জোনাল কমিটির সম্পাদক মৃণাল সাহা বলেন, ‘‘আমরা কি বামফ্রন্টের বাইরে নাকি! তা হলে বামফ্রন্ট বলতে আপত্তি কোথায়? আসলে আমরা প্রার্থী দেওয়ার বিষয়ে সিদ্ধান্ত নিতে দেরি করেছি। তাই আপাতত টোটোয় প্রচার চলছে। ২০ এপ্রিল বেলডাঙার বেশ কিছু এলাকায় প্রার্থী আসবেন। ২২ থেকে ২৬ মার্চ বিভিন্ন এলাকায় পথসভাও হবে।’’