• নিজস্ব প্রতিবেদন
সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে

অশান্তি এড়াতে পুলিশি প্রচার

অশান্তি এড়াতে সোশ্যাল মিডিয়ায় পুলিশি সতর্কবার্তা

Social Media
প্রতীকী ছবি।

সত্যি সত্যিই সত্যিটা কী?

শৈশবে মা জানে। হালে গুগল। আর এখন সোশ্যাল মিডিয়া!

—‘জানিস কী কাণ্ড ঘটেছে?’

—‘কী রে?’

—‘দাঁড়া, ফরওয়ার্ড করছি।’

—‘এ বাবা, এমনটা হয় নাকি!’

—‘কত লাইক, শেয়ার, কমেন্ট হয়েছে জানিস? সত্যি না হলে এত মানুষ প্রতিক্রিয়া জানাত?’

—‘তাহলে গ্রুপে শেয়ার করি।’

ঠিক-ভুল বিলকুল ভুলে, সত্যি-মিথ্যে শিকেয় তুলে কয়েক মূহূর্তে লেখা-ছবি-ভিডিও ছড়িয়ে পড়ল ‘ওয়ালে-ওয়ালে’, মোবাইল স্ক্রিনে। অন্তর্জালে হইহই কাণ্ড। ট্রেনে, বাসে, রিকশায়, পার্কে, অফিসের বারান্দায়, ক্লাবে, খাওয়ার টেবিলে, হাই তুলতে তুলতে শরীর নেতিয়ে পড়ছে। কিন্তু আঙুল থামছে না। কী-বোর্ড, টাচ স্ক্রিনে ঝড় তুলে চলছে পোস্ট, পাল্টা পোস্ট। সব্বাই জিততে চায়!

কিন্তু সে ‘লড়াই’ শুধু অন্তর্জালে আটকে থাকলে এক রকম হতো। কিন্তু জাল ছিঁড়ে সে কখনও কখনও আছড়ে পড়ছে বাস্তবের রুখু জমিতে। গোল বাধছে তখনই। পরিস্থিতি টালমাটাল। চারদিকে সামাল সামাল।

বেশ কয়েকটি ঘটনা থেকে শিক্ষা নিয়ে এ বার লিফলেট তৈরি করে প্রচারে নামছে নদিয়া-মুর্শিদাবাদের পুলিশ। সেই লিফলেটে পুলিশের পক্ষ থেকে স্পষ্ট জানানো হচ্ছে— সোশ্যাল মিডিয়ায় কী করবেন, কী করবেন না। বিস্তারিত ভাবে বলা হয়েছে, কোন ধরনের পোস্ট, ছবি, ভিডিও বা মন্তব্য অপরাধের মধ্যে পড়ে, সে ক্ষেত্রে কোন ধারা প্রযোজ্য এবং তার শাস্তি কী হতে পারে।

মুর্শিদাবাদ জেলা পুলিশ প্রশাসন সোশ্যাল মিডিয়া নিয়ে কিছু দিন থেকেই স্কুল-কলেজ পড়ুয়া, সাধারণ মানুষকে সচেতন করছে। মুর্শিদাবাদের পুলিশ সুপার মুকেশ কুমার বলছেন, ‘‘লিফলেট বিলি, হোর্ডিং-ব্যানার টাঙানো হয়েছে। পাশাপাশি সোশ্যাল মিডিয়াতেও আমরা প্রচার চালাচ্ছি।’’

প্রচার চলছে নদিয়াতেও। সেই সঙ্গে কড়া পদক্ষেপও করছে পুলিশ। সোশ্যাল মিডিয়ায় আপত্তিকর ও উস্কানিমূলক পোস্ট করার অভিযোগে শুক্রবার রাতে নদিয়ার এক যুবককে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। শনিবার কৃষ্ণনগর আদালতে হাজির করানো হলে বিচারক তাঁকে দু’দিনের পুলিশ হেফাজতের নির্দেশ দেন। পুলিশ সুপার শীষরাম ঝাঝারিয়া বলেন, “আইনি ব্যবস্থা নেওয়ার পাশাপাশি মানুষকে সচেতনও করছি। যাতে ভুল করেও কেউ এমন কাজ না করেন।”

জেলা পুলিশের এক কর্তা ধরিয়ে দিচ্ছেন, একটা ভুল ক্লিকে গোটা পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণের বাইরে চলে যেতে পারে। এই সত্যিটা মনে রাখা সব থেকে বেশি জরুরি।

সবাই যা পড়ছেন

সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে
আরও পড়ুন

সবাই যা পড়ছেন

আরও পড়ুন