• সম্রাট চন্দ
সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে

বাবুলালের স্মরণসভায় কটাক্ষ রামের

Ramchandra Dome
রামচন্দ্র ডোম। ফাইল চিত্র।
তৃণমূল-বিজেপি ‘ভাই-ভাই’ বলে নদিয়ায় নিহত দলীয় কর্মীর স্মরণসভায় এসে কটাক্ষ করলেন সিপিএমের কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য তথা বীরভূমের প্রাক্তন সাংসদ রামচন্দ্র ডোম। মঙ্গলবার বিকেলে বাদকুল্লার দোসতিনা গ্রামে স্মরণসভায় তিনি দাবি করেন, “আজ যারা তৃণমূলে, কাল তারাই বিজেপিতে। লাভপুরের বিধায়ক মনিরুল ইসলাম, এক বছর আগে তিনি ছিলেন তৃণমূলের নেতা। তিনি খুনের অভিযোগে অভিযুক্ত। তার থেকে পরিত্রাণ পাওয়ার জন্য তৃণমূলের নেতারা তাঁর নাম খারিজ করেছিল চার্জশিট থেকে। কিন্তু আইনি লড়াইয়ে আদালতের নির্দেশে সেখানে আবার তদন্ত হয়েছে। তাঁর ভাই গ্রেফতার হয়েছেন।” তৃণমূল ছেড়ে বিজেপিতে যাওয়া মুকুল রায় খুনিদের মদতদাতা বলেও প্রবীণ সিপিএম নেতা দাবি করেছেন। 
গত বছর ৭ সেপ্টেম্বর দুষ্কৃতীদের গুলিতে খুন হয়েছিলেন সিপিএমের দলীয় সদস্য তথা কৃষক সভার কর্মী, বাদকুল্লার দোসতিনা বাগদিপাড়ার বাসিন্দা বাবুলাল বিশ্বাস। এ দিন দোসতিনা গ্রামে একটি স্মৃতিস্তম্ভের উন্মোচন হয়। বাবুলালের ছেলের নামে দলের তরফে দেড় লক্ষ টাকার বিমা করে দেওয়া হয়। এ দিনই দলের তাহেরপুর এরিয়া কমিটির দফতরে কোভিড সহায়তা কেন্দ্রও চালু হয়।
বাবুলাল খুনের মামলায় ছ’জনকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। রানাঘাট আদালতে চার্জশিটও জমা পড়েছে। বাবুলালের বাবা নন্দ দিনমজুর, ভাই দেবাশিস স্থানীয় একটি দোকানে কাজ করেন। এ ছাড়া বাড়িতে আছেন বাবুলালের মা শেফালি। বাবুলালের স্ত্রী মৌসুমি পঞ্চায়েত নির্বাচনে সিপিএমের প্রার্থীও ছিলেন। তাঁর কথায়, মৌসুমি বলেন, “আমার স্বামী তো এই দলটাই করতেন, তা ছাড়ব কী ভাবে?” সোমবার বর্ষপূর্তি হলেও লকডাউনের কারণে স্মরণসভা করা যায়নি। তাই মঙ্গলবার সেই আয়োজন করা হয়। সভায় তৃণমূলকে নিশানা করে রামচন্দ্র বলেন, “মানুষের প্রতি আস্থা থাকলে খুনখারাপির রাজনীতি করতে হয় না, তথাকথিত উন্নয়ন বাহিনী দিয়ে নির্বাচনকে প্রহসনে পরিণত করতে হয় না। মানুষের তথাকথিত পরিবর্তনের মোহ ছুটে গিয়েছে।” তাঁর দাবি, “প্রশান্ত কিশোর তৃণমূলকে ক্ষমতায় টিকিয়ে রাখার জন্য আজ টাকার বস্তা নিয়ে গ্রামে গ্রামে ঘুরে বেড়াচ্ছেন। লালঝান্ডার মানুষদের দরজায় দরজায় ঘুরছেন।”
এই ২১ সেপ্টেম্বর দু’বছর পূর্ণ হবে  বাবুলালের ছেলে অর্পণের। বাবা মারা যাওয়ার সময়ে তার বয়স ছিল মোটে ১১ মাস। মৌসুমি বলেন, ““ছেলেটা এখনও ওর বাবার ছবি দেখলে ঠিক চিনতে পারে। জিজ্ঞাসা করে, বাবা কোথায়। কী উত্তর দেব? ওকে মানুষ করাই এখন বড় কাজ।” 

সবাই যা পড়ছেন

সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে
আরও পড়ুন

সবাই যা পড়ছেন

আরও পড়ুন