খুনের পর ২৪ ঘণ্টার বেশি কেটে গিয়েছে, বাদকুল্লার সিপিএম কর্মী বাবুলাল বিশ্বাসকে খুনের ঘটনায় কেউ ধরা পড়েনি। রবিবার সকালেই স্থানীয় বাসিন্দা সঞ্জিত ঘোষ, তার দুই ছেলে-সহ কয়েক জনের বিরুদ্ধে তাহেরপুর থানায় একটি অভিযোগ জমা দিয়েছেন নিহতের পরিবার। অভিযুক্তেরা পলাতক।

নিহতের পরিবার সূত্রের খবর, বাবুলাল বিশ্বাসের প্রায় প্রতিদিনের অভ্যাস ছিল সন্ধ্যার দিকে স্থানীয় পাচবেরিয়া বাজারে যাওয়া। সেখান থেকে রাতে ফিরতেন বাড়ি। শনিবারও বেরিয়েছিলেন। তাঁকে গুলিবিদ্ধ অবস্থায় উদ্ধার করা হয় বাদকুল্লা হাঁসখালি রোডের পারুয়ার কাছে। 

প্রাথমিক তদন্তে জানা গিয়েছে, বাপুজিনগরের দিক থেকে বাইক নিয়ে বাড়ির দিকে ফিরছিলেন বাবুলাল। পারুয়া ও দোসতিনার মাঝে রাস্তার ওপরেই একটি বাইকে চেপে এসে দুষ্কৃতীরা তাঁর বাইক থামিয়ে গুলি করে পালিয়ে যায়। বাবুলালের স্ত্রীর দাবি, বাজারে বসে খবরের কাগজ পড়ার সময়ে একটি ফোন পেয়ে বাবুলাল বাপুজিনগরের দিকে চলে যান। সেখান থেকে ফেরার পথে তাঁকে গুলি করা হয়। রানাঘাট পুলিশ জেলার সুপার ভি এস আর অনন্তনাগ বলেন, “আমরা সমস্ত বিষয়ই খতিয়ে দেখছি।” 

প্রশ্ন উঠছে, বাজার এলাকায় ভিড় বলেই কি তাঁকে অন্যত্র ডেকে পাঠানো হয়েছিল? চায়ের দোকান থেকেই কি কেউ তাঁর উপরে নজর রেখেছিল? এই সব প্রশ্নেরই উত্তর 

খুঁজছেন তদন্তকারীরা।