বালি বোঝাই বড় ট্রাকের সঙ্গে মিনি ক্যাবের মুখোমুখি সংঘর্ষে মৃত্যু হয়েছে এক মহিলা সহ দুই যাত্রী। শনিবার রাত ৯টা নাগাদ শিলিগুড়ির নকশালবাড়ি এলাকার ঘটনা।

হাতিঘিষা মোড়ের কাছে ৩১ নম্বর জাতীয় সড়কে দুর্ঘটনাটি ঘটেছে। পুলিশ জানিয়েছে, নকশালবাড়ির দিকে যাওয়া একটি দশ চাকার ট্রাকের সঙ্গে উল্টে দিক থেকে আসা মিনিক্যাবের ধাক্কা লাগে। মিনিক্যাবের চালক সহ ৬ জন যাত্রী জখম হয়েছেন। ঘটনাস্থলেই এক মহিলা যাত্রীর মৃত্যু হয়। উত্তরবঙ্গ মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে যাওয়ার পথে আরেক যাত্রীর মৃত্যু হয়েছে বলে জানা গিয়েছে। পুলিশ জানিয়েছেন, মৃতা যাত্রীর নাম আদুরি পাল (৩২)। মৃতার ছেলে দীপন এবং স্বামী গোপালবাবুও মিনি ক্যাবে ছিলেন। তাঁদের উত্তরবঙ্গ মেডিক্যাল কলেজে ভর্তি করানো হয়েছে। এরা সকলেই নকশালবাড়ি এলাকার বাসিন্দা। শিলিগুড়ি থেকে তাঁরা মিনিক্যাবে চেপে নকশালবাড়ি ফিরছিলেন বলে জানা গিয়েছে। পুলিশ জানিয়েছে, মৃত অন্য যাত্রীর নাম রাত পর্যন্ত জানা যায়নি। মিনিক্যাবের অন্য তিন যাত্রীকে নার্সিংহোমে ভর্তি করানো হয়েছে। বাকিরা মেডিক্যাল কলেজে ভর্তি রয়েছেন।

এ দিকে ঘটনার পরেই ক্ষুব্ধ বাসিন্দারা রাস্তায় জড়ো হয়ে ক্ষোভ দেখাতে থাকেন। জাতীয় সড়ক দিয়ে চলাচলকারী পণ্যবাহী ট্রাক বা গাড়ি বেপরোয়া ভাবে চলাচল করে বলে বাসিন্দাদের একাংশের অভিযোগ। পুলিশ জানিয়েছে, এ দিন সংঘর্ষের পরে দশ চাকার ট্রাকটি রাস্তার একদিকে কাত হয়ে পড়ে যায়। ট্রাকে থাকা বালি রাস্তায় ছড়িয়ে পড়ে। ট্রাকটিকে তুলতে ক্রেন নিয়ে আসা হয়। তবে ট্রাকটিকে সরাতে গিয়ে ক্রেনটিও উল্টে যায়। তার ফলে জাতীয় সড়ক জুড়ে যানজট তৈরি পরে। রাতের দিকে পে লোডার নিয়ে ট্রাক এবং ক্রেন সরানো শুরু হয়।

পুলিশের প্রাথমিক অনুমান, ট্রাকটি নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে রাস্তার একপাশে চলে আসায় উল্টো দিক থেকে আসা মিনিক্যাবের সঙ্গে সংঘর্ষ হয়। মিনিক্যাবটি নকশালবাড়ি-মেডিক্যাল রুটে চলাচল করে। মৃত এবং জখমরা সকলেই নকশালবাড়ি এলাকা বাসিন্দা বলে জানানো হয়েছে। ঘটনার পরেই ট্রাকের চালক পালিয়ে গিয়েছে বলে পুলিশ জানিয়েছে।