সাড়ে চার বছরের শিশুকন্যাকে ধর্ষণের চেষ্টার অভিযোগ উঠল জলপাইগুড়ির দিনবাজার এলাকায়। এ নিয়ে মহিলা থানায় অভিযোগ দায়ের করেছে শিশুটির পরিবার। ঘটনায় পরে অভিযুক্ত ব্যক্তি পলাতক। পুলিশ সূত্রে জানা গিয়েছে, এখনও পর্যন্ত এক মহিলাকে গ্রেফতার করা হয়েছে এবং পলাতক অভিযুক্তের খোঁজ চলছে। পকসো ধারায় অভিযুক্তের বিরুদ্ধে মামলা করেছে পুলিশ।

স্থানীয় সূত্রে জানা গিয়েছে, ওই এলাকার একটি বাড়িতে প্রায় ১৫টি পরিবার ভাড়া থাকে। অভিযুক্ত ব্যক্তি এবং নিগৃহীত শিশুর পরিবার একই বাড়িতে ভাড়া থাকে। শুক্রবার বিকেলে শিশুটিকে খুঁজে পাওয়া যাচ্ছিল না বলে অভিযোগ। তখনই প্রতিবেশীদের সাহায্য নিয়ে শিশুটির খোঁজ করতে শুরু করেন তার পরিবারের লোকজন। এলাকায় সব জায়গায় তন্নতন্ন করে খোঁজা হয়। কিন্তু শিশুটির সন্ধান পাওয়া যায় না। শেষে সন্ধে নাগাদ স্থানীয়েরা অভিযুক্ত ব্যক্তির দরজার সামনে শিশুকন্যাটির জুতো দেখতে পান বলে অভিযোগ। কিন্তু দরজা ধাক্কা দিলেও অভিযুক্ত ব্যক্তি দরজা খোলেননি বলে অভিযোগ। এর পরে অভিযুক্তের ঘরের দরজা ভেঙে ফেলে সেই ঘরে ওই শিশুকন্যাকে দেখা যায় বলে স্থানীয়দের দাবি।

ঘটনাটি প্রকাশ্যে আসতেই স্থানীয়রা ক্ষোভে ফেটে পড়েন। ঘটনায় পরেই অভিযুক্ত ব্যক্তি এলাকা ছেড়ে পালায় বলে স্থানীয় সূত্রে খবর। শিশুকন্যার বাবা বলেন, ‘‘আমার মেয়েকে অত্যাচারের চেষ্টা করে ও। ধরা পড়ে যাওয়ায় এলাকা ছেড়ে পালিয়ে গিয়েছে। আমরা যে বাড়িতে ভাড়া থাকি, সেই বাড়িওয়ালাই অভিযুক্তকে পালিয়ে যেতে সাহায্য করেছে। থানায় আমরা অভিযোগ দায়ের করেছি। কঠিন শাস্তি চাই।’’ পুলিশ সূত্রে জানা গিয়েছে, অভিযোগ পেয়েই ওই বাড়ির এক মহিলাকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। শিশুটির মেডিক্যাল পরীক্ষা করা হচ্ছে। 

স্থানীয় এক বাসিন্দা বলেন, ‘‘অভিযুক্ত ব্যক্তি অন্য জেলার বাসিন্দা। এখানে লটারির ব্যবসা করত। পাঁচ বছর ধরে আমাদের এখানে ভাড়া থাকে। ওই লোকটার শাস্তি চাই।’’ মহিলা থানার ওসি উপাসনা গুরুঙ্গ বলেন, ‘‘শিশুকে ধর্ষণের চেষ্টা চালানোর অভিযোগ পেয়েছি। পকসো আইনি মামলা করে তদন্ত শুরু হয়েছে। অভিযুক্ত ব্যক্তির খোঁজ চলছে।’’