এক নাবালিকাকে গণধর্ষণ করার অভিযোগ উঠল তার পরিচিত চার যুবকের বিরুদ্ধে। মঙ্গলবার রাতের ঘটনা। অনেক রাতে ১৫ বছরের ওই মেয়েটিকে তাঁর বাড়ির কাছে রাস্তায় পড়ে থাকতে দেখে তার বাড়িতে খবর দেয় প্রতিবেশীরা। পরিবারের তরফে বুধবার আশিঘর ফাঁড়িতে অভিযোগ দায়ের করার পরে তিন অভিযুক্তকে আটক করে জিজ্ঞাসাবাদ করা হচ্ছে। ঘটনায় চার জন যুবক জড়িত রয়েছে বলে পুলিশের দাবি, বুধবার রাত পর্যন্ত চতুর্থ ওই অভিযুক্তের খোঁজে তল্লাশি চালায় পুলিশ। মেয়েটিকে উত্তরবঙ্গ মেডিকেল কলেজে নিয়ে গিয়ে তার ডাক্তারি পরীক্ষা করা হয়েছে। 

আশিঘর ফাঁড়ি এলাকার বাসিন্দা ওই মেয়েটির বাবা বলেন, ‘‘অনেক রাত পর্যন্ত মেয়ে ফিরছিল না দেখে চিন্তায় ছিলাম। কিন্তু রাত সাড়ে এগারোটা নাগাদ প্রতিবেশী এসে খবর দেয়, মেয়ে রাস্তায় পড়ে রয়েছে। আমরা তখন গিয়ে তাকে নিয়ে ফাঁড়িতে যাই।’’ অভিযোগ, মেয়েটিকে তার এক পরিচিত যুবক মঙ্গলবার বিকেলে একটি গাড়িতে করে ডেকে নিয়ে গিয়েছিল ঘোরার নাম করে। পরে অন্য এক বন্ধুর বাড়িতে নিয়ে গিয়ে মেয়েটিকে মাদক খাইয়ে তাকে চার জন মিলে ধর্ষণ করে বলে দাবি মেয়েটির পরিবারের। পরে তাকে বাড়ির কাছে ছেড়ে দেওয়া হয় বলে অভিযোগ। কিন্তু আচ্ছন্ন অবস্থায় থাকা মেয়েটি আর বাড়ির দরজা পর্যন্ত যেতে পারেনি। রাস্তাতেই পড়ে সংজ্ঞা হারিয়ে ফেলে। শিলিগুড়ি কমিশনারেটের ডিসি (পূর্ব) ইন্দিরা মুখোপাধ্যায় বলেন, ‘‘মেয়েটির পরিবারের তরফে অভিযোগ পেয়েছি। চার জন ঘটনায় যুক্ত রয়েছে বলে জানতে পারছি। তবে এখনও জিজ্ঞাসাবাদ চলছে।’’ 

নাবালিকাকে সঙ্গে নিয়েই এ দিন পুলিশ অভিযান চালায় এক যুবকের বাড়িতে। পরে তাকে নিয়ে বাকি আরও দু’জনকে ধরে আনা হয় ফাঁড়িতে। মেয়েটিকে উত্তরবঙ্গ মেডিকেল কলেজে নিয়ে গিয়ে তার ডাক্তারি পরীক্ষা করানো হয়েছে বলে জানিয়েছে পুলিশ। রাতে দফায় দফায় ওই দুই যুবককে সঙ্গে নিয়ে তল্লাশি অভিযান চালায় পুলিশ।