• নিজস্ব সংবাদদাতা
সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে

মনোনয়ন তুলে নিতে বিজেপি প্রার্থীকে ৭ লক্ষের ‘টোপ’

Money

হুমকি, হামলার অভিযোগ তো আছেই। এ বার মনোনয়ন তুলে নিতে বিরোধী প্রার্থীকে মোটা টাকার টোপ দেওয়ার অভিযোগ উঠল শাসক দলের বিরুদ্ধে। বালুরঘাটের ভাটপাড়া পঞ্চায়েতে ওই অভিযোগ ঘিরে শোরগোল পড়ে গিয়েছে।

ভাটপাড়া পঞ্চায়েতের কলাইবাড়ি সংসদ আসনের বিজেপির মহিলা প্রার্থীকে এলাকার বিদায়ী পঞ্চায়েত সদস্য তথা তৃণমূল প্রার্থী মনোনয়ন তুলে নিতে ৭ লক্ষ টাকা দেওয়ার প্রস্তাব দিয়েছেন বলে অভিযোগ বিজেপির জেলা কার্যালয়ে পৌঁছেছে। ওই অঞ্চলের আরও দু’টি আসনে বিজেপি প্রার্থীদের মনোনয়ন তুলে নিলে লক্ষাধিক টাকার ‘অফার’ দেওয়া হয়েছে বলে অভিযোগ উঠেছে। অভিযোগ অবশ্য সম্পূর্ণ অস্বীকার করেছেন ভাটপাড়া অঞ্চলের বিদায়ী তৃণমূল প্রধান লগিন দাস।

বিজেপি জেলা সভাপতি শুভেন্দু সরকারের দাবি, বালুরঘাটের ভাটপাড়া, ডাঙা, পতিরাম পঞ্চায়েত এলাকায় দলীয় প্রচারে বাসিন্দাদের মধ্যে থেকে ভাল সাড়া মিলছে।  এলাকাগুলোয় শাসকদল পরিচালিত গত পঞ্চায়েতের কাজকর্ম নিয়ে সাধারণ মানুষ ক্ষুব্ধ। ফলে বেছে বেছে তাঁদের দলের প্রার্থীদের মোটা টাকার টোপ দেওয়া হচ্ছে। কলাইবাড়ি আসন থেকে তাঁদের দলের মহিলা প্রার্থীকে প্রতিদ্বন্দ্বিতা থেকে সরে দাঁড়াতে ৭ লক্ষ টাকার টোপ দেওয়া হলেও লোভে পড়ে তিনি বা অন্য কোনও প্রার্থী মনোনয়ন তুলতে রাজি হননি বলে তাঁর দাবি। তবে পরবর্তী কালে প্রার্থীদের উপরে চাপ ও হুমকির আশঙ্কা বাড়তে পারে বলে উদ্বেগ প্রকাশ করেছেন শুভেন্দু।

এলাকার বাসিন্দাদের একাংশের অভিযোগ, গত পাঁচ বছরে কেন্দ্রের স্বচ্ছ ভারত মিশন, জৈব সার প্রকল্প, বৃক্ষরোপণ খাতে প্রচুর টাকা পেয়ে পঞ্চায়েতগুলো নিজস্ব প্রকল্প বলে চালিয়েছে। কিন্তু রাজ্যের খাতে রাস্তা, কালভার্ট, পানীয় জল, নিকাশি নালা তৈরির মতো উল্লেখযোগ্য কোনও কাজ হয়নি। এই খাতে গত পাঁচ বছরে বরাদ্দের কোটি কোটি টাকা নয়ছয় হয়েছে বলে তাঁদের অভিযোগ। ওই সব আসনে এ বার হেরে যেতে পারেন আশঙ্কায় মোটা টাকা দিয়ে প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থীকে ভোটের লড়াই থেকে সরিয়ে দিতে পারলে ফের পাঁচ বছর নিশ্চিন্ত। তাই ত্রিস্তর পঞ্চায়েতে বিরোধী প্রার্থীদের মনোনয়ন তুলতে সাত কেন, সতের লক্ষ টাকার ‘অফার’-ও দেওয়া হচ্ছে বলে বাসিন্দারা শুনেছেন বলে দাবি করেন।

তৃণমূল নেতা তথা ভাটপাড়ার বিদায়ী প্রধান লগিন অবশ্য বলেন, ‘‘পঞ্চায়েত ভোটের আগে বিরোধীরা এই ধরনের অভিযোগ করেন। যার কোনও ভিত্তি নেই। ভাটপাড়া পঞ্চায়েত এলাকা জুড়ে গ্রাম উন্নয়নের কাজ হয়েছে। ফলে ফের ভোটে জেতাটা সময়ের অপেক্ষা। দলীয় প্রার্থীরা কেন বিরোধী প্রার্থীদের মনোনয়ন তুলে নিতে অহেতুক ওই টাকার অফার দেবেন? বিজেপির অভিযোগ মিথ্যা।’’

সবাই যা পড়ছেন

সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে
আরও পড়ুন

সবাই যা পড়ছেন

আরও পড়ুন