রামনবমীকে কেন্দ্র করে জনসংযোগ বাড়াতে বিজেপির পাশাপাশি ময়দানে নেমে পড়েছিল তৃণমূলও, বিজেপিকে টেক্কা দেওয়ার প্রচেষ্টাও ছিল বলে খবর। তবে জন্মাষ্টমীতে বিশ্বহিন্দু পরিষদ এবং বিজেপি ঘটা করে জন্মাষ্টমী পালন করলেও, তৃণমূলকে তা নিয়ে সমারোহ করতে দেখা যায়নি উত্তর দিনাজপুর, দক্ষিণ দিনাজপুর বা মালদহে।

রবিবার বিশ্ব হিন্দু পরিষদের নেতৃত্বে শোভাযাত্রা বের হয় বালুরঘাট, রায়গঞ্জ, মালদহের মতো বিভিন্ন এলাকায়। অংশ নেন বিজেপির নেতা ছাড়াও কর্মী সমর্থকরাও। রায়গঞ্জের মহাত্মাগাঁধী রোড এলাকার সংগঠনের উত্তর দিনাজপুর জেলা কার্যালয় থেকে পদযাত্রায় ছিলেন বিজেপির জেলা সভাপতি শঙ্কর চক্রবর্তী।

বিশ্বহিন্দু পরিষদের কার্যালয়ে দিনভর চলে অনুষ্ঠান। খাওয়ানো হয় খিচুড়ি-তরকারি। সন্ধ্যায় ছিল নামগান-কীর্তনের ব্যবস্থা। শহরের বিভিন্ন স্কুলের পড়ুয়াদের নিয়ে নাচ, গান-সহ বিভিন্ন সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানও হয়। অন্য দিকে, তৃণমূল সূত্রে খবর, জন্মাষ্টমী উপলক্ষ্যে জেলায় কোনও অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়নি।

মালদহে ইংরেজবাজারে শোভাযাত্রা শুরু হয় জুবিলি রোডে পরিষদের কার্যালয়ের সামনে থেকে, শ্রীকৃষ্ণের মূর্তি নিয়ে। শহরের এনএসরোড, বিজিরোড, গৌররোড, কেজে স্যান্যাল রোড, রাজমহল রোড হয়ে ফের পরিষদের কার্যালয়ের সামনেই শোভাযাত্রা শেষ হয়। সেই শোভাযাত্রায় সামিল হন বিজেপির জেলা সভাপতি সঞ্জিত মিশ্র।

বালুরঘাটে মঙ্গলপুর এলাকার কার্যালয় থেকে বর্ণাঢ্য শোভাযাত্রায় আরএসএস এবং বিজেপির কর্মী সমর্থকেরা সামিল হন। বিজেপির জেলা সভাপতি শুভেন্দু সরকার জেলে। তাই আলাদা করে কোনও কর্মসূচি করেনি বিজেপি। আজ, সোমবার বালুরঘাটে আসছেন বিজেপির মহিলা শাখার রাজ্য সভানেত্রী দেবশ্রী রায়চৌধুরী। দলের সাধারণ সম্পাদক বাপি সরকার বলেন, ‘‘অন্যায় ভাবে তাঁকে জেলে রাখা হয়েছে। আন্দোলনের রূপরেখা ঠিক করতে আসছেন দেবশ্রীদেবী।’’

 শোভাযাত্রা হয়েছে পুরাতন মালদহের বাচামারি, গাজোল, বৈষ্ণবনগরের মতো বিভিন্ন ব্লকেও। সেই শোভাযাত্রায় ছিলেন বিজেপির নেতা-কর্মীরাই। তবে তৃণমূলের তরফে মালদহ জেলায় পাল্টা কোনও শোভাযাত্রা বা কর্মসূচি ছিল না। চাঁচলে রাজনৈতিক উদ্যোগে জন্মাষ্টমীর অনুষ্ঠান হয়নি। তবে মঙ্গলবার, বিশ্ব হিন্দু পরিষদের উদ্যোগে নন্দোৎব পালিত হবে বলে খবর। প্রতি বছর জন্মাষ্টমীর দু’দিন পর এই আয়োজন হয়। রাজবাড়ি লাগোয়া ঠাকুরবাড়ি থেকে শোভাযাত্রা বের হয়। ইসলামপুরে, চোপড়ার সোনাপুরে পদযাত্রা করে বিশ্ব হিন্দু পরিষদ।

চোপড়ায় তৃণমূল কর্মী খুনের প্রতিবাদে ধিক্কার সমাবেশের কথা থাকলেও জন্মাষ্টমী থাকায় তা বাতিল করা হয় বলে জানান চোপড়া পঞ্চায়েত সমিতির সহকারী সভাপতি জাকির আবেদিন।