• নিজস্ব সংবাদদাতা
সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে

রাস্তায় বিজেপি কর্মীর দেহ, খুনের নালিশ

murder
প্রতীকী চিত্র

বিজেপি দলের বুথ কমিটির এক সদস্যকে বেধড়ক মারধর করে খুনের অভিযোগ ঘিরে ব্যাপক চাঞ্চল্য ছড়িয়ে পড়ল দিনহাটায়। বিজেপির অভিযোগ, তৃণমূলের লোকজনই তাদের ওই কর্মীকে খুন করেছে। যদিও তৃণমূলের পক্ষ থেকে অবশ্য এই ঘটনার সঙ্গে রাজনীতির কোনও সম্পর্ক নেই বলে দাবি করা হয়েছে।

স্থানীয় সূত্রের খবর, সোমবার সকালে দিনহাটা-২ ব্লকের বুড়িরহাট এক গ্রাম পঞ্চায়েতের কুকুর কচুয়া এলাকায় রাস্তার ধারে বিজেপি দলের ওই কর্মী সম্বারু  বর্মণকে (৪৪) পড়ে থাকতে দেখেন এলাকার কয়েকজন। তাঁরাই স্থানীয় পুলিশ এবং দমকল দফতরে খবর দেন। এরপর দুই দফতরের কর্মীরা সেখানে গিয়ে তাঁকে উদ্ধার করে দিনহাটা মহকুমা হাসপাতালে নিয়ে আসেন। এরপর হাসপাতালেই তাঁর মৃত্যু হয়। 

বিজেপির স্থানীয় অঞ্চল নেতা প্রদীপ বর্মণ এ দিন জানান, সোমবার ভোররাতে তাঁদের দলের সক্রিয় কর্মী বুথ কমিটির সদস্য সম্বারু  বর্মণকে তৃণমূল কর্মী-সমর্থকেরা বাড়ি থেকে ডেকে নিয়ে এসে মারধর করে রাস্তায় ফেলে রেখে যায়। মৃত কর্মীর শরীরে একাধিক আঘাত রয়েছে বলেও প্রদীপ জানান। কিছুদিন ধরেই দিনহাটা-২ ব্লকের বুড়িরহাট এবং আশপাশের এলাকায়  বিজেপি ও তৃণমূলের মধ্যে প্রায়ই সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে চলেছে। দুই দলই পরস্পরের কার্যালয় ভাঙচুর করছে বলে অভিযোগ। বিধানসভা ভোট যত এগিয়ে আসছে সংঘর্ষের ঘটনা বেড়েই চলছে।

এদিকে, দলের কর্মীর মৃত্যুর  খবর পেয়েই হাসপাতালে ছুটে আসেন দলের কোচবিহার জেলা সহ-সভাপতি প্রাক্তন বিধায়ক অশোক মণ্ডল, দলের জেডপি ২৫-এর মণ্ডল সভাপতি বিনয় রায় সরকার-সহ অনেকেই।জেলা সহ-সভাপতি অশোক মণ্ডল বলেন, ‘‘বিধানসভা ভোটের সময় যত এগিয়ে আসছে, ততই  বাড়ছে তৃণমূলের  সন্ত্রাস। গত বেশ কিছুদিন ধরে এলাকায় বিজেপির পার্টি অফিস ভাঙচুর থেকে শুরু করে দলের কর্মীদের উপর আক্রমণ চলছে। বাইক ভাঙচুরের ঘটনায় পুলিশকে একাধিকবার অভিযোগ জানানো সত্ত্বেও  কোনও ব্যবস্থা নেওয়া হয়নি। অবিলম্বে দোষীদের গ্রেফতার  করা না হলে  দলের পক্ষ থেকে আন্দোলনে নামা হবে।’’

বিজেপি কর্মীর মৃত্যুর ঘটনা প্রসঙ্গে তৃণমূলের বুড়িরহাট-১ অঞ্চল যুগ্ম আহ্বায়ক খগেশ্বর বর্মণ বলেন, ‘‘ওই কর্মী সর্বক্ষণই মদ্যপ অবস্থায় থাকেন। মারধরের কোনও ঘটনাই ঘটেনি।’’ কোনও দুর্ঘটনা ঘটে থাকতে পারে বলে তাঁর অভিমত। বিজেপি  রাজনীতি করার চেষ্টা করছে। দিনহাটা-২ ব্লকের সাহেবগঞ্জ পুলিশ সূত্রে জানা গিয়েছে, এক ব্যক্তির মৃতদেহ হাসপাতাল থেকে উদ্ধার করে ময়নাতদন্তে পাঠানো হয়েছে। এখনও কোনও অভিযোগ জমা পড়েনি। তবে ঘটনার তদন্ত শুরু হয়েছে। ময়নাতদন্তের রিপোর্টে সব পরিষ্কার হয়ে যাবে।

সবাই যা পড়ছেন

সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে
আরও পড়ুন

সবাই যা পড়ছেন

আরও পড়ুন