• নিজস্ব সংবাদদাতা
সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে

শেষ প্রচারে লক্ষ্য তারকাদের দিয়ে বাজিমাত

বাড়ি বাড়ি গিয়ে জনসংযোগ বাড়ানো থেকে শুরু করে ওয়ার্ডে ওয়ার্ডে কর্মী সভা। প্রচারের প্রাথমিক পর্ব প্রায় সেরে ফেলেছেন মালদহ জেলার দুই পুরসভার ডান বাম সব রাজনৈতিক দলের প্রার্থীরাই। তবে ভোট ব্যাঙ্ক বাড়াতে এখন শেষ সপ্তাহে হেভিওয়েট নেতা নেত্রী থেকে শুরু করে তারকাদের দিয়ে প্রচার করাতে মরিয়া সব দলই। দুই পুরসভা ধরে রাখতে দলের মন্ত্রী ও তারকাদের নিয়ে এসে প্রচারের প্রস্তুতি শুরু করে দিয়েছে তৃণমূল। পিছিয়ে নেই বিজেপিও। তৃণমূল, বিজেপির মতো তারকা না থাকলেও দলের হেভিওয়েট নেতা নেত্রীদের নিয়ে এসে বাজিমাত করতে চলেছে কংগ্রেস ও বামফ্রন্টও।

মালদহে ২৯ আসনের ইংরেজবাজার পুরসভা এবং ২০ আসনের পুরাতন মালদহ পুরসভা দু’টিই তৃণমূলের দখলে। এই দু’টি পুরসভা নিজেদের দখলে রাখতে মরিয়া তৃণমূল। ইংরেজবাজার পুরসভায় মন্ত্রী তথা বিদায়ী চেয়ারম্যান কৃষ্ণেন্দু নারায়ণ চৌধুরী এবং পুরাতন মালদহের বিদায়ী চেয়ারম্যান বিভুতি ভূষন ঘোষকে সামনে রেখে লড়াই করছে রাজ্যের শাসক দল।  কৃষ্ণেন্দু বাবু ও বিভুতি বাবুরা নিজেদের ওয়ার্ডের পাশাপাশি প্রচার চালাচ্ছেন অন্যান্য প্রার্থীদের হয়েও। শেষ সপ্তাহে প্রচারে ঝড় তুলতে এক ঝাঁক তারকাকে  নিয়ে আসার মরিয়া চেষ্টা চালাছে দল। দলীয় সূত্রে জানা গিয়েছে, এই দুই পুরসভায় প্রচারে আসতে পারেন দেব, মুনমুন সেন, তাপস পাল, শতাব্দী রায়ের মতো চেনা মুখ। শুধু অভিনেতা অভিনেত্রী নয়, আসতে পারেন পার্থ চট্টোপাধ্যায়, ফিরহাদ হাকিমদের মতো মন্ত্রীরাও।  তৃণমূলের জেলা সভাপতি মোয়াজ্জেম হোসেম বলেন, ‘‘আমাদের প্রার্থীরা ইতিমধ্যেই মানুষের ঘরে ঘরে পৌঁছে গিয়েছেন। তবে আমরা তারকাদের দিয়ে প্রচারেরও চেষ্টা চালাচ্ছি। দলকে এই বিষয়ে আমরা জানিয়েও দিয়েছি।

প্রচারে তৃণমূলকে টেক্কা দিতে তৈরি বিজেপিও। দলীয় সূত্রে জানা গিয়েছে,দুই পুরসভার প্রচারের জন্য অভিনেত্রী রুপা গঙ্গোপাধ্যায়,লকেট চট্টোপাধ্যায় সহ কেন্দ্রীয় প্রতিমন্ত্রী বাবুল সুপ্রিয়কে আনার চেষ্টা চলছে। বিজেপির জেলা সভাপতি শিবেন্দু শেখর রায় বলেন, ‘‘অভিনেত্রীদের পাশাপাশি আমরা দলের বিধায়ক শমীক ভট্টাচার্য, ও অন্য সাংসদদের প্রচারে আনার জন্য দলের কাছে চিঠি দিয়েছি।’’ তৃণমূল, বিজেপির মতো দলে তেমন সেলুলয়েডের দুনিয়ার ব্যক্তিত্বরা না থাকলেও হেভিওয়েট নেতাদের প্রচারে আনতে চেয়ে রাজ্য নেতৃত্বের কাছে আবেদন করছে কংগ্রেস ও বামফ্রন্টও। কংগ্রেস সূত্রে জানা গিয়েছে, কংগ্রেস নেতা আব্দুল মান্নান, দীপা দাস মুন্সি, প্রদীপ ভট্টাচার্য এবং প্রদেশ কংগ্রেস সভাপতি অধীর চৌধুরীকেও প্রচারে আনা হতে পারে। কংগ্রেসের জেলা সভানেত্রী মৌসম নূর বলেন, ‘‘আমাদের প্রার্থীরা বাড়ি বাড়ি গিয়ে প্রচার করছেন। তবে দুই পুরসভা এলাকাতেই রাজ্যের হেভিওয়েট নেতা নেত্রীদের আনার পরিকল্পনা চলছে। তাঁদের দিয়ে কয়েকটি সভা করার পরিকল্পনা রয়েছে।’’ তবে বামেদের পার্টি কংগ্রেস চলায় জাতীয় স্তরের নেতাদের না পেলেও প্রচারে সুর্যকান্ত মিশ্র, মানব মুখোপাধ্যায়ের মতো নেতাদের আনতে চলেছে। বামফ্রন্টের আহ্বায়ক জীবন মৈত্র বলেন, ‘‘অধিকাংশ নেতা পার্টি কংগ্রেসে ব্যস্ত। তবে কয়েকজন রাজ্য নেতাকে আমরা নিয়ে আসব।’’

আগামী ১৮ তারিখ থেকেই হেবিওয়েট নেতা নেত্রীরা জেলায় প্রচারে আসতে চলেছেন বলে রাজনৈতিক দলগুলির তরফে জানানো হয়েছে।

সবাই যা পড়ছেন

সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে
আরও পড়ুন

সবাই যা পড়ছেন

আরও পড়ুন