পার্টি অফিস দখলকে কেন্দ্র করে  তৃণমূলের দুই গোষ্ঠীর মধ্যে সংঘর্ষের অভিযোগ উঠল।  বুধবার শীতলখুচির খলিসামারিতে এই সংঘর্ষে ছ’জন জখম হয়েছেন। সংঘর্ষের জেরে এলাকায় আতঙ্ক ছড়িয়ে পরে। খলিসামারি বাজারের সব দোকান বন্ধ হয়ে যায়। পরে পুলিশ গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে। জখমদের প্রথমে মাথাভাঙা হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।  ঘটনাস্থলে যান মাথাভাঙার এসডিপিও শুভেন্দু মণ্ডল, মাথাভাঙ্গা থানার আই সি প্রদীপ সরকার। পুলিশ ঘটনার তদন্ত শুরু করেছে।

দলীয় সূত্রের খবর, তৃণমূলের খলিসামারি  অঞ্চল সভাপতি আবু বক্কর  সিদ্দিকির অনুগামীদের সঙ্গে  দলের ব্লক সভাপতি আবেদ আলির অনুগামীদের মধ্যে সংঘর্ষ হয়। দলের কর্মী খগেন্দ্রনাথ বর্মণ বলেন, “গত ৯ ফেব্রুয়ারি একটি কমিটি করার কথা ছল। কিন্তু কোনও কমিটি গঠন করা হয়নি। পরে ব্লক সভাপতি আবেদ আলি মিয়াঁর লোকজন পার্টি অফিস দখল নেয়।” অভিযোগ, এ দিন ওই পার্টি অফিস অঞ্চল সভাপতি আবু বক্কর সিদ্দিকির লোকজন দখল নিতে গেলে সংঘর্ষ হয়। ওই ঘটনায় আব্দুল খালেক মিয়াঁ ও ছানুল মিয়াঁকে মাথাভাঙা হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। খলিসামারি গ্রাম পঞ্চায়েতের অঞ্চল সভাপতি আবু বক্কর সিদ্দিকি বলেন, “কর্মীদের নিয়ে দলের পার্টি অফিসে  গিয়েছিলাম। তখন পুলিশ এসে পার্টি অফিস থেকে যেতে বলে। পার্টি অফিস বন্ধ করে যাবার সময় আমাদের উপর আক্রমণ হয়।” 

তৃণমূলের শীতলখুচি ব্লক সভাপতি আবেদ আলি মিয়াঁ বলেন, “আজ সকালে  সিদ্দিক মিয়ার লোকজন এসে দলের পার্টি অফিস দখল করার চেষ্টা করে। এই খবর চার দিকে ছড়িয়ে পড়ায় বেশ কিছু লোকজন আসে। তাদের মধ্যে সংঘর্ষ হয়।  কয়েক জন্য কর্মী আহত হয়। বিষয়টি জেলা নেতৃত্ব কে জানানো হয়েছে।”