• নিজস্ব সংবাদদাতা
সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে

ধর্মীয় অনুষ্ঠানে ঝুঁকছে কংগ্রেসও

Congress
প্রতীকী ছবি।

বিজেপির সঙ্গে পাল্লা দিয়ে হনুমান জয়ন্তী, রামনবমীর শোভাযাত্রা, নগর সঙ্কীর্তন, ‘পবিত্র যাত্রা’র মতো পাল্টা অনুষ্ঠান করেছে তৃণমূল। কিন্তু এতদিন কংগ্রেসকে কোনও ধর্মীয় অনুষ্ঠানের দিকে ঝুঁকতে দেখা যায়নি। কংগ্রেসের দলীয় অনুষ্ঠান, সমাবেশেও নানা ধর্মের প্রতিনিধিদের সামিল করার ছবিও তেমন দেখা যায়নি। এ বার দলের প্রতিষ্ঠা দিবসে খানিকটা ধর্মীয় অনুষ্ঠানের জায়গা রাখছে কংগ্রেসও।
মঙ্গলবার শিলিগুড়িতে দলীয় অফিসে কংগ্রেসের উত্তরবঙ্গের অন্যতম পর্যবেক্ষক বিজয়েন্দ্র প্রতাপ সিংহ বলেন, ‘‘আগামী ২৮ ডিসেম্বর দলের প্রতিষ্ঠা দিবসে সব ব্লকে অনুষ্ঠান হবে। শিলিগুড়িতে কেন্দ্রীয় অনুষ্ঠান হবে। দিনভর নানা অনুষ্ঠান হবে। বিদ্বজ্জনদের সংবর্ধনা দেওয়া হবে। নানা ধর্মের প্রতিনিধিরা মঞ্চে থাকবেন। তাঁরা বক্তৃতা দেবেন। দিনভর হবে অনুষ্ঠান।’’
তা হলে কংগ্রেসও কি ধর্মীয় অনুষ্ঠানকে হাতিয়ার করে পাল্লা দিতে চাইছে বিজেপিকে? বিপি সিংহের পাশে বসে প্রদেশ কংগ্রেসের কার্যকরী সভাপতি শঙ্কর মালাকার বলেন, ‘‘আমরা সব ধর্মের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। সে জন্যই আমাদের দলের প্রতিষ্ঠা দিবসে নানা ধর্মের প্রতিনিধিদের আমন্ত্রণ জানাব। সকলকে নিয়ে এগোব। আমরা যে ধর্মীয় ভেদাভেদের রাজনীতি করি না, সেটা সারা দেশ জানে।’’ তিনি জানান, সারা দিন ধরে নানা অনুষ্ঠানের সময় বিভিন্ন ধর্মের প্রতিনিধিদের সামিল করা হবে।
দল সূত্রের খবর, এ দিন শিলিগুড়িতে বুথ পর্যায়ের নেতা-সদস্য-সদস্যাদের সঙ্গে বৈঠক করেন কেন্দ্রীয় পর্যবেক্ষক সহ জেলা ও প্রদেশের নেতারা। সেখানেই সকলের মোবাইল নম্বর নিয়ে ডেটা ব্যাঙ্ক তৈরির নির্দেশ দেন বিপি সিংহ। পরে তিনি জানান, একেবারে গ্রামস্তরের নেতা তথা কংগ্রেস কর্মীর সঙ্গে যেন সরাসরি জেলা, প্রদেশ ও দিল্লির যোগাযোগ থাকে, সে জন্যই ডেটা ব্যাঙ্ক তৈরি হচ্ছে। যাতে প্রত্যন্ত গ্রামে থাকা কংগ্রেসের একেবারে নীচুতলার নেতা কিংবা কর্মী নিজেকে কখনও দল থেকে বিচ্ছিন্ন মনে না করেন।
 

সবাই যা পড়ছেন

সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে
আরও পড়ুন

সবাই যা পড়ছেন

আরও পড়ুন