সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে

খাবারে কম তেল, চলুক হালকা ব্যায়াম

একে ঋতু বদল, তার উপরে করোনার হানা। ‘লকডাউন’ হওয়ার ফলে সকলে মিলে গৃহবন্দিও। চট করে ডাক্তারের কাছে যাওয়ার উপায় নেই। তাই এখন কী করবেন, কী করবেন না— এই নিয়ে বিভিন্ন বিষয়ে রইল বিশেষজ্ঞ চিকিৎসকদের পরামর্শ।

Oil
প্রতীকী ছবি

এই সময়ে কী ভাবে ওজন নিয়ন্ত্রণে রাখবেন তা নিয়ে পরামর্শ দিয়েছেন আলিপুরদুয়ার জেলা হাসপাতালের চিকিৎসক পার্থপ্রতিম দাস।

• এই ক’দিন বাড়িতে থেকেই নিজেকে সক্রিয় রাখতে হবে। বাড়িতেই অনেক কাজ রয়েছে যা করলে সক্রিয় থাকা যায়। নিজের কাজ নিজের করা উচিত। নিজের জামা-কাপড় ধোয়া থেকে শুরু করে বাগানের কাজও হতে পারে।

• শারীরিক কসরত করতে হবে। সারাদিন টিভি, মোবাইল বা সোশ্যাল মিডিয়ায় ডুবে না থেকে বাড়িতে স্কিপিং করা যেতে পারে। যাঁরা নাচ জানেন তাঁরা বাড়িতেই অনুশীলন করতে পারেন। নিয়ম করে খালি হাতে ব্যায়াম করতে পারেন। দোতলা বা তিনতলা বাড়িতে যে বয়স্করা থাকেন তাঁরা নিজেদের সাধ্যমত কয়েকবার সিঁড়ি দিয়ে ওঠানামা করতে পারেন। এছাড়া নিয়ম করে বাড়ির উঠোনে হাঁটা যেতে পারে। কিছুক্ষণের জন্য নাক দিয়ে জোরে নিঃশ্বাস নিয়ে মুখ দিয়ে ছাড়লেও কাজে দেবে।

• লকডাউন চললেও অনেককেই বাজারে কিংবা ওষুধ কিনতে বেরতে হচ্ছে। এই একুশদিন তাঁরা যতটা সম্ভব বাইক বা গাড়ি ছাড়া চলুন। হেঁটে বা সাইকেলে চেপে কাজগুলি করা উচিত। যা ওজন বৃদ্ধি রোধে সাহায্য করবে।  

• ওজন বৃদ্ধির সঙ্গে খাদ্যাভাসের সম্পর্ক রয়েছে। এই একুশদিন গৃহবন্দি থাকার সময় কম তেল-মশলা দিয়ে খাবার খেতে হবে। প্রচুর পরিমাণে আনাজ খেতে হবে। এরফলে যেমন ওজন ঠিক থাকবে, তেমনি আনাজ থেকে আসা ভিটামিন শরীরের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতাও বাড়াবে। আর একটা কথা মাথায় রাখতে হবে, যাদের অভ্যাস রয়েছে তাঁদের এই ক’টাদিন মদ্যপান একটু কমাতে হবে।

• এখন ঘুম থেকে উঠে আর কাজের তাড়া নেই। ফলে সকলেরই পর্যাপ্ত পরিমাণে ঘুমনো উচিত। কিন্তু দুপুরে খাওয়া-দাওয়া করেই বিছানা শুয়ে ঘুমিয়ে পড়লে চলবে না। তার আগে অবশ্যই কিছুক্ষণ বাড়িতেই পায়চারি করতে হবে।

সবাই যা পড়ছেন

সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে
আরও পড়ুন

সবাই যা পড়ছেন

আরও পড়ুন