পানশালায় যৌনব্যবসা চালানোর অভিযোগে গ্রেফতার হওয়া ধর্ম পাসোয়ানকে বুধবার জেলা আদালতে তোলা হল। এ দিন আদালত অভিযুক্তকে ফের জেল হেফাজতের নির্দেশ দেয়। আগামী ২৭ সেপ্টেম্বর ধর্মকে ফের আদালতে তোলার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।

এ দিন সদর হাসপাতালের ক্রিটিকাল কেয়ার ইউনিট থেকে ধর্মকে আদালতে নিয়ে আসে পুলিশ। পুলিশের দাবি, এতদিন অসুস্থ থাকায় কারণে মূল অভিযুক্ত ধর্মকে জেরা করতে পারেনি তারা। পুলিশের একাংশ জানাচ্ছে, ধর্মকে ফের নিজেদের হেফাজতে নেওয়ার জন্য আদালতে আবেদন জানান হবে।

সম্প্রতি সার্কিট বেঞ্চের সিঙ্গল বেঞ্চ পানশালা খুলে দেওয়ার নির্দেশ দেয়। তার সঙ্গে পানশালা মামলার তদন্তভার সিআইডির হাতে তুলে দেওয়ারও নির্দেশ দেয়। সেই রায়ের বিরুদ্ধে সার্কিট বেঞ্চের ডিভিশন বেঞ্চে মামলা করেছিল জেলা পুলিশ। এ দিন সেই মামলার শুনানিও হয়েছে।

১৬ জুলাই শহরের থানা মোড়ের পানশালায় যৌনব্যবসা চালানোর অভিযোগে সেখানকার ২৮ জন কর্মীকে গ্রেফতার করে পুলিশ। বাকিরা জামিন পেলেও এখনও এক মহিলা ও দুই যুবক জেল হেফাজতে রয়েছেন। পালিয়ে যায় মূল অভিযুক্ত ধর্ম। এরপরে জেলা পুলিশের একটি দল কলকাতা থেকে ধর্মকে গ্রেফতার করে। ২১ অগস্ট আদালতে তুলে ছ’দিনের জন্য নিজেদের হেফাজতে নেয়। পুলিশি হেফাজতের দ্বিতীয় দিনে অসুস্থ হয়ে পড়ে ধর্ম। তারপর থেকে সদর হাসপাতালে চিকিৎসা চলছিল তাঁর। সুস্থ হওয়ার পরে বুধবার ধর্মকে আদালতে তোলা হলে ১০ দিনের জেল হেফাজতের নির্দেশ হয়।

পুলিশের দাবি, ধর্মকে জেরা করলে পানশালার মামলার আরও তথ্য পাওয়া যাবে। যদিও অভিযুক্তপক্ষের আইনজীবী সৈকত চট্টোপাধ্যায় বলেন, ‘‘নতুন করে পুলিশ এই মামলার তদন্ত করতে পারবে না। কারণ আদালত বলেছে পানশালার মামলার তদন্ত করবে সিআইডি।’’ অভিযুক্ত পক্ষের আরও এক আইনজীবী অভিজিৎ সরকার বলেন, ‘‘ধর্মকে সিসিইউ থেকে আদালতে তোলা হয়। এতদিন তিনি অসুস্থ ছিলেন। আদালতে বন্ধ থাকায় জামিনের আবেদন করা হয়নি।’’

পুলিশ সুপার অভিষেক মোদী বলেন, ‘‘ধর্ম অসুস্থ থাকায় পুলিশ জেরা করতে পারেনি। আজকে আদালতে তোলা হয়। ফের তাঁকে পুলিশ হেফাজতে নেওয়ার জন্য আবেদন জানানো হবে।’’