সপ্তমীতে পালাজো

সপ্তমী উৎসবের শুরু। সকাল হোক বা রাত, পোশাক হালকা হলেই ভাল। পালাজোর সঙ্গে কুর্তা চলতে পারে। দু’ধরণের পালাজোর কথা জানালেন অগ্নিমিত্রা। একরকম যার ঘের কম। গোড়ালি পর্যন্ত লম্বা। আরেক ধরণের পালাজো যার ঘের বেশি। পালাজোর সঙ্গে কুর্তা ছাড়া তেমন কিছুই মানানসই হবে না।

অষ্টমীতে শাড়ি-গাউন

‘‘অষ্টমীর সাজ হবে জাঁকজমকপূর্ণ। তবে তাতো শুধু জেল্লা বা চটকদারি নয়, থাকবে অভিনবত্বও। তাই অষ্টমীর দিন গাউন চলতেই পারে। সঙ্গে ট্র্যাডিশনাল শাড়ি।’’ বলছেন অগ্নিমিত্রা। হ্যান্ডলুমের শাড়ির আঁচলে নানা রঙের কাজ। বাকি অংশ ‘সলিড কালার’ হলে জেল্লায় টেক্কা দেওয়া যাবে দামী বেনারসীকেও। সঙ্গে কাঞ্জিভরম, খাদি, ‘সফট’ ঢাকাই জামদানি, ঘিচা তসরও রয়েছে।

জ্যাকেট ব্লাউজ নবমীতে

তাঁতের শাড়ির ওপরেও কেপ চাপিয়েও অনায়াসে ঢুকে পড়া যাবে কিটি পার্টিতে। এমনটাই দাবি অগ্নিমিত্রার। ফ্যাশনের জগতে এবার নতুন সংযোজন জ্যাকেট ব্লাউজ। এই ব্লাউজের গলা দেখতে অনেকটা পাঞ্জাবির গলার মতো। হাতা বেশ ঢিলেঢালা। এই ব্লাউজের সঙ্গে শাড়ি পরা যেতে পারে সাবেকি কায়দায়।

দশমীর লুকে মেখলা

দশমীতে মেখলাই হোক। সিঁদুর খেলা, দেবী বরণের মতো নানান রীতি থাকে এ দিন। তাই হালকা ঢিলেঢালা পোশাকই ভাল বলে মনে করেন অগ্নিমিত্রা। দশমীতে একটু ওয়েস্টার্ন লুক থাকলেও ভাল। হাফ প্যান্ট শুনে ভ্রু কোঁচকালে জিনস চলতে পারে। অগ্নিমিত্রার পরামর্শ, জিনস বা শাড়ি যাই হোক না কেন দশমীতে মেখলাও রাখুন।