কুকুরে কামড় নিয়ে আতঙ্ক অব্যাহত আলিপুরদুয়ারে৷ রবিবারও শহরের বিভিন্ন এলাকায় নতুন করে দশ জনকে কুকুর কামড় দিয়েছে৷ যার মধ্যে একজনকে আলিপুরদুয়ার জেলা হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে৷ এই আতঙ্কের পরিবেশের মধ্যেই এতদিনেও কেন কুকুর ধরার ক্ষেত্রে সরকারি কোনও পরিকাঠামো আলিপুরদুয়ারে গড়ে ওঠেনি তা নিয়ে বিভিন্ন মহলে ক্ষোভ দানা বাঁধতে শুরু করেছে৷ এ দিন থেকে শহরের পথ কুকুরদের ভ্যাকসিন দেওয়া শুরু করেছে একটি স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন৷

বৃহস্পতিবার থেকে আচমকাই কুকুরের কামড় নিয়ে আতঙ্ক ছড়াতে শুরু করে আলিপুরদুয়ার শহর ও শহর লাগোয়া একাধিক এলাকায়৷ ওই দিন শহরের কয়েকটি জায়গায় বেশ কয়েকজনকে কামড় দেয় কুকুর৷ শুক্রবার কুকুরের কামড়ে মানুষের জখম হওয়ার সংখ্যা আরও বেড়ে যায়৷ শনিবারও কয়েকজনকে কুকুর কামড়ায়৷ একই ঘটনা ঘটল রবিবারেও৷

সূত্রের খবর, বৃহস্পতিবার থেকে শনিবার পর্যন্ত কুকুরের কামড় খেয়ে আলিপুরদুয়ার জেলা হাসপাতালে ৪২ জনকে ভর্তি করতে হয়৷ আরও ৩০ জনকে প্রাথমিক চিকিৎসার পর ছাড়া হয়৷ এ ছাড়াও ওই দিন থেকেই কুকুর কামড়ের প্রতিষেধক নিতে হাসপাতালে রোগীদের লম্বা লাইন পড়তে শুরু করে৷ যা অব্যাহত ছিল এ দিনও৷ হাসপাতাল সূত্রের খবর, এদিন আলিপুরদুয়ারে দশ জনকে নতুন করে কুকুর কামড়েছে৷ যার মধ্যে আলিপুরদুয়ার জংশনের এক বাসিন্দাদাকে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়৷ আলিপুরদুয়ার শহরের বাসিন্দা বাকি ন’জনকে ভ্যাকসিন দিয়ে ছাড়া হয়৷ 

এ দিকে, কুকুরের কামড়ে গত চারদিনে এত মানুষ জখম হওয়ার ঘটনার পর কুকুর ধরতে পরিকাঠামো তৈরি না হওয়া নিয়ে বিভিন্ন মহলে ক্ষোভ বাড়তে শুরু করেছে৷ অভিযোগ, ৬২ বছরের পুরানো আলিপুরদুয়ার শহরে নানা সময় নানা দল ক্ষমতায় থেকেছে৷ কিন্তু এই পরিকাঠামো গড়ে তোলার ক্ষেত্রে কেউই কোন পদক্ষেপ করেনি বলে অভিযোগ৷

কয়েক মাস আগে মেয়াদ ফুরোনো তৃণমূল পুরবোর্ডের চেয়ারম্যান আশিস দত্তের কথায়, ‘‘আমাদের সময় আলিপুরদুয়ার শহরে কুকুরের কামড় নিয়ে এত বড় ঘটনা ঘটেনি৷ তাই বিষয়টি নিয়ে পরিকল্পনাও করা হয়নি৷ তাছাড়া রাজ্যে কোনও পুরসভায় পাগল কুকুর ধরার পরিকাঠামো রয়েছে বলেও জানা নেই৷’’

পুরসভার আরেক প্রাক্তন চেয়ারম্যান তথা সিপিএম নেতা অনিন্দ্য ভৌমিকও দাবি করেন, ‘‘আমরা যখন পুরসভার ক্ষমতায় ছিলাম, তখন শহরে এত মানুষও ছিলেন না, আর এখনকার সময়ের সঙ্গে তখনকার চাহিদারও মিল ছিলনা৷ তবে আমি যখন চেয়ারম্যান ছিলাম, তখন বিষয়টা নিয়ে একবার ভেবেছিলাম৷ কিন্তু খুব কম সময় দায়িত্বে থাকায় তা করতে পারিনি৷’’ আলিপুরদুয়ার পুরসভার প্রশাসক তথা মহকুমাশাসক কৃষ্ণাভ ঘোষ জানান, “যে কুকুরগুলি মানুষকে কামড়াচ্ছে তাদের ধরতে স্বেচ্ছাসেবী সংগঠনের খোঁজ জারি রয়েছে৷” 

এ দিন আলিপুরদুয়ারের একটি স্বেচ্ছাসেবী সংগঠনের তরফে বাড়ির কুকুরদের পাশাপাশি পথ কুকুরদেরও ভ্যাকসিন দেওয়া হয়৷ সংগঠনের সম্পাদক কৌশিক দে জানান, এ দিন কুড়িটি পথ কুকুরকে ভ্যাকসিন দেওয়া হয়৷ ধাপে ধাপে এই কাজ জারি থাকবে৷