• নিজস্ব সংবাদদাতা 
সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে

বিরিয়ানি খেতে বেরিয়ে পরীক্ষার্থী উধাও, উদ্বেগ

student
নিখোঁজ পড়ুয়া। নিজস্ব চিত্র

দু’দিন পরেই পরীক্ষা। পড়াশোনার ফাঁকে ‘বিরিয়ানি খেতে ইচ্ছা করছে বলে’ বাবার কাছ থেকে টাকা নিয়ে দোকানে গিয়েছিল। কিন্তু রাত গড়ালেও বাড়ি ফেরেনি। উচ্চমাধ্যমিক পরীক্ষার আগে এ ভাবেই এক পড়ুয়া নিখোঁজ হওয়ার অভিযোগ উঠেছে।

পুলিশ জানায়, ওই ছাত্রের বাড়ি মালদহের হরিশ্চন্দ্রপুরের তুলসিহাটায়। চাঁচল সিদ্ধেশ্বরী স্কুলের বিজ্ঞান বিভাগের ছাত্র সে। বৃহস্পতিবার উচ্চমাধ্যমিক পরীক্ষা শুরু হচ্ছে। তার ‘সিট’ পড়েছে চাঁচলের বীরস্থল হাইস্কুলে। কিন্তু বুধবারও নিখোঁজ ছেলের হদিস না পেয়ে পুলিশের দ্বারস্থ হন পরিবারের লোকজন। পুলিশ জানায়, ওই পরীক্ষার্থীর নাম আশিসকুমার রাম। রহস্যজনক ভাবে তার নিখোঁজ হওয়ার ঘটনা ঘিরে পরিজনদের পাশাপাশি উদ্বিগ্ন স্কুল কর্তৃপক্ষও।

হরিশ্চন্দ্রপুরের আইসি সঞ্জয়কুমার দাস বলেন, ‘‘ওই ছাত্রের খোঁজে পুলিশের তরফে যা করণীয় সব করা হচ্ছে। সে নিজে কোথাও গিয়েছে, নাকি এর পিছনে অন্য কোনও কারণ রয়েছে তা খতিয়ে দেখা হচ্ছে।’’

পুলিশ ও পারিবারিক সূত্রে জানা গিয়েছে, সোমবার রাতে বাবার কাছ থেকে টাকা নিয়ে বিরিয়ানি কেনার কথা বলে বের হয় আশিস। কিন্তু আর বাড়ি ফেরেনি। কয়েক ঘণ্টা পরেও আশিস বাড়ি না ফেরায় তার খোঁজ শুরু করেন উদ্বিগ্ন পরিজনেরা। পরের দিনও আত্মীয়দের পাশাপাশি পরিচিতদের বাড়িতে গিয়ে খোঁজ করা হয়। কিন্তু কোথাও তার হদিস মেলেনি। এর পরেই এ দিন তাঁরা পুলিশের দ্বারস্থ হন। পরীক্ষায় মনের মতো প্রস্তুতি না হওয়ায় সে স্বেচ্ছায় কোথাও গিয়েছে, নাকি রাস্তা থেকে কেউ তাকে অপহরণ করেছে— তা নিয়ে সংশয় তৈরি হয়েছে। আশিসের পরিজনদের বক্তব্য, যেখানে সে বিরিয়ানি কিনতে গিয়েছিল, সেই এলাকাটি ৮১ নম্বর জাতীয় সড়কের ধারে। এলাকাটি সন্ধ্যার পরে তুলনামূলক ভাবে নির্জন।

স্কুলের প্রধান শিক্ষক আসরারুল হক বলেন, ‘‘ও তো স্কুল থেকে অ্যাডমিট কার্ডও নিয়ে গিয়েছে। পরীক্ষার মুখে এমন ঘটনায় আমরাও চিন্তিত।’’

পেশায় ব্যবসায়ী আশিসের বাবা জয়প্রকাশ রাম বলেন, ‘‘বিরিয়ানি খাবে বলে আমার কাছ থেকে ১০০ টাকা নিয়ে বের হয়। কিন্তু ছেলেটা কোথায়, কী ভাবে উধাও হল বুঝতে পারছি না।’’ 

সবাই যা পড়ছেন

সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে
আরও পড়ুন

সবাই যা পড়ছেন

আরও পড়ুন