ভ্যানচালককে গুলি করে খুনের পিছনে ত্রিকোণ প্রেমের ঘটনার সম্পর্ক রয়েছে বলে মনে করছে পুলিশ। তদন্ত শুরু করেছেন পুলিশ আধিকারিকরা। যদিও সেই বিষয় নিয়ে এখনও পর্যন্ত স্পষ্ট ভাবে পুলিশ কিছু খোলসা করেনি। এক জনকে আটক করে জিজ্ঞাসাবাদ শুরু করেছে পুলিশ। আরও কয়েক জনকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য ডাকা হয়েছে বলে পুলিশ জানিয়েছে। ইসলামপুর পুলিশ জেলার পুলিশ সুপার সচিন মাক্কার বলেন,  কয়েক জনকে জিজ্ঞাসাবাদের নামে ডাকা হয়েছে। দুই-এক দিনের মধ্যে দুষ্কৃতীদের গ্রেফতার করা সম্ভব হবে। 

শুক্রবার বাড়ি না ফেরায় তার খোঁজ শুরু করে পরিবারের লোকেরা। গভীর রাতে ইসলামপুর শহরের সুকান্ত পল্লি এলাকাতে ক্যানালের ধারে বাড়ি থেকে মাত্র ৩০০ মিটার দূরে ওই ভ্যানচালকের দেহ উদ্ধার হয়। তাঁর ডান কানের পিছন দিয়ে গুলি করা হয়েছে বলে জানতে পেরেছে পুলিশ। শনিবার ইসলামপুরে তাঁর দেহের ময়নাতদন্ত হয়ে গিয়েছে। তদন্তকারী অফিসারেরা জানিয়েছে, খুব কাছ থেকে তাঁকে গুলি করা হয়েছে। তদন্তকারী পুলিশ অফিসাররা জানিয়েছেন,  ত্রিকোণ প্রেমের জেরেই এই খুন বলে মনে করছেন তারা। তবে খুনের পিছনে কে বা কারা জড়িত, সেই সম্পর্কে এখনও পর্যন্ত পুলিশ স্পষ্ট ভাবে কিছু জানায়নি। 

যদিও শহরের মধ্যে এ ধরনের খুনের ঘটনা ভাবিয়ে তুলেছে এলাকার বাসিন্দাদের। গত মাসেই প্রকাশ্য দিবালোকে এক বেসরকারি স্কুলের সামনে এক যুবতীকে লক্ষ্য করে কয়েক রাউন্ড গুলি করেছিল দুষ্কৃতীরা। সেই ঘটনায় ইসলামপুরে এক ব্যবসায়ী সহ চোপড়ার এক দুষ্কৃতীকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। তার পরে এ দিন রাতেও কয়েক রাউন্ড গুলি করে  খুন করা হয় ওই ভ্যানচালককে। এই ঘটনাতে ব্যবহার করা হয়েছিল আধুনিক পিস্তল। সেই পিস্তলের খোঁজে তল্লাশি চালছে বলে বলে পুলিশ জানিয়েছে। গত পঞ্চায়েত নির্বাচনে আগে থেকে উত্তপ্ত হয়ে উঠেছিল উত্তর দিনাজপুরের চোপড়া। সেখানে প্রায় প্রতিটি গন্ডগোলেই গুলি-বোমার অভিযোগ উঠে।  এ বার ইসলামপুর শহরে পরপর এই গুলির ঘটনায় পুলিশ প্রশাসনের ভূমিকা নিয়ে প্রশ্ন উত্তর শুরু করেছে। তবে এলাকাতে কোন এলাকার কোনও অস্ত্র কারবারি চক্র কাজ করছে কি না, তা নিয়ে প্রশ্ন উঠেছে। পুলিশের পক্ষ থেকে ব্যবস্থা নেওয়া হচ্ছে বলে জানিয়েছে পুলিশ আধিকারিকেরা।