ফের ছেলেধরা সন্দেহে এক যুবককে মারধরের ঘটনায় চাঞ্চল্য ছড়াল ইসলামপুরে। রবিবার সকালে ইসলামপুর থানার মিলনপল্লি এলাকায় ঘটনাটি ঘটেছে। ওই যুবক পুলিশকে জানিয়েছে, সে বিহারের কিসানগঞ্জের লোহাপট্টি এলাকার বাসিন্দা। ইসলামপুর থানার পুলিশ তাকে উদ্ধার করে। 

পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে খবর,  এ দিন মিলনপল্লি এলাকার এক বাড়িতে ওই যুবককে ঢুকতে দেখে এলাকার লোকজন চিৎকার-চেঁচামেচি শুরু করেন। স্থানীয় বাসিন্দারা তাঁকে ধরে চড় থাপ্পর মারে। তবে জনতার রোষ থেকে বাঁচাতে তাঁকে আটকে রাখে স্থানীয় বাসিন্দাদের একাংশই। 

ইসলামপুর পুলিশ জেলার পুলিশ সুপার সচিন মক্কার বলেন, ‘‘ঘটনার খবর পেয়ে এলাকায় পুলিশ পাঠানো হয়েছিল। মারধর হয়নি, তার আগেই পুলিশ তাকে উদ্ধার করেছে। এলাকাতে লাগাতার প্রচার চলছে।’’

পুলিশের ধারণা, ওই যুবক নানা ধরনের নেশা করে। সেই জন্যই সে ওই বাড়িতে ঢুকে পড়েছিল বলে মনে করছে ইসলামপুর থানার পুলিশ। তাকে আটক করে রেখেছে পুলিশ। যদিও রাজু কুমার জানিয়েছেন, তিনি ভিক্ষাবৃত্তি করেন। প্রায়ই ইসলামপুরে আসেন।

তবে ইসলামপুরে গণপিটুনির ঘটনা নতুন নয়। গত কয়েক দিনে একের পর এক এমন ঘটনা ঘটেছে। গ্রাম্য এলাকার পাশাপাশি শহরেও ছেলেধরা সন্দেহে গুজব চলছে। শনিবারে ইসলামপুর থানার বেশ কিছু এলাকায় ছেলেধরা সন্দেহে মারধরের ঘটনা ঘটেছে। সোশ্যাল মিডিয়াতেও বিভিন্ন ছবি ভিডিও ভাইরাল হওয়ায় ছেলেধরার নিয়ে গুজব আরও বেশি ছড়াচ্ছে বলে মনে করছে অনেকেই। আর সেই গুজব এর ফলে এ দিনও মিলন পল্লি এলাকাতে ওই যুবক আক্রান্ত হয়েছে। পুলিশ জানিয়েছে, সোশ্যাল মিডিয়ার উপরে কড়া নজর রাখা হচ্ছে। কোনও উস্কানিমূলক বার্তা দেখলেই ব্যবস্থা নেওয়া হবে।