পাঁচ হাজার লিড, নির্দেশ শুভেন্দুর
পঞ্চায়েত নির্বাচনে ব্যাপক সাফল্যের পর মালদহের দু’টি লোকসভা আসনে নজর তৃণমূলের। দলীয় সূত্রের খবর, ভাল ফলের আশায় দলীয় কর্মী-সমর্থকদের চাঙ্গা করতে  ইতিমধ্যে জেলায় তিনটি বড় বুথ স্তরের কর্মিসভাও হয়েছে। 
Subhendu

তৃণমূলের মালদহ জেলা পর্যবেক্ষক শুভেন্দু অধিকারী।—ফাইল চিত্র।

গ্রাম পঞ্চায়েত পিছু অন্তত পাঁচ হাজার ভোটের ‘লিড’ দিতে হবে বলে নির্দেশ তৃণমূলের মালদহ জেলা পর্যবেক্ষক শুভেন্দু অধিকারী। কর্মিসভা তো বটেই, দলীয় বৈঠকেও দলীয় গ্রাম পঞ্চায়েত প্রধানদের এই নির্দেশ দেন তিনি। আগামী ১৮ তারিখ আবার সেই দলীয় প্রধানদের নিয়ে বৈঠকে ফের একই নির্দেশ দেবেন বলে মনে করা হচ্ছে।  

পঞ্চায়েত নির্বাচনে ব্যাপক সাফল্যের পর মালদহের দু’টি লোকসভা আসনে নজর তৃণমূলের। দলীয় সূত্রের খবর, ভাল ফলের আশায় দলীয় কর্মী-সমর্থকদের চাঙ্গা করতে  ইতিমধ্যে জেলায় তিনটি বড় বুথ স্তরের কর্মিসভাও হয়েছে।  প্রথম সভা হয়েছিল নভেম্বরে কালিয়াচক ২ ব্লকের মোথাবাড়িতে। দ্বিতীয়টি ডিসেম্বরে বামনগোলা ব্লকের পাকুয়াহাটে ও জানুয়ারিতে সভা হয়েছে পুরাতন মালদহ ব্লকের নিত্যানন্দপুর। মোথাবাড়ির সভায় শুভেন্দু ঘোষণা করেছিলেন, মালদহ জেলার ১৪৬টি গ্রাম পঞ্চায়েতের মধ্যে যে ১১০টি আসন দলের দখলে রয়েছে সেই প্রধানদের লোকসভা ভোটে অঞ্চল পিছু  অন্তত পাঁচ হাজার ভোট করে লিড দিতে হবে। গত ডিসেম্বরেও দলীয় গ্রাম পঞ্চায়েত প্রধানদের উদ্দেশে একই নির্দেশ দেন শুভেন্দু। সূত্রের খবর, লোকসভা ভোটে দলের প্রার্থীর পক্ষে নির্ধারিত ‘লিড’ দিতে না পারলে প্রধান পদ কেড়ে নেওয়া হতে পারে বলেও হুঁশিয়ারি  দেওয়া হয়েছে। দলীয় সূত্রে জানা গিয়েছে, আগামী ১৮ তারিখ মালদহ জেলা সফরে ফের আসছেন শুভেন্দুবাবু। এবং সেদিনও সন্ধ্যায় ফের দলীয় গ্রাম পঞ্চায়েত প্রধানদের নিয়ে বৈঠক করবেন তিনি। 

এদিকে, গত মঙ্গলবার সন্ধ্যায় তৃণমূল নেত্রী মালদহের দু’টি লোকসভা আসনের দলীয় প্রার্থীদের নাম ঘোষণা করেন। উত্তর মালদহের প্রার্থী মৌসম নুর ও দক্ষিণ মালদহের প্রার্থী মোয়াজ্জেম হোসেন। প্রার্থীদের নাম ঘোষণা হতেই শুভেন্দুর সেই নির্দেশের কথা মাথায় রেখে গ্রাম পঞ্চায়েত স্তরে ভোট প্রচারে নেমে পড়েছেন একাধিক গ্রাম পঞ্চায়েত  প্রধান। গঙ্গাপ্রসাদ গ্রাম পঞ্চায়েতের প্রধান আমিরুল ইসলাম বলেন, ‘‘দক্ষিণ মালদহ আসনে মোয়াজ্জেম হোসেনের নাম ঘোষিত হয়েছে। আমরা প্রচার শুরু করে দিয়েছি।’’ কালিয়াচক ২ ব্লকের দলীয় পর্যবেক্ষক ছোটন মৌলিক বলেন, ‘‘গ্রাম পঞ্চায়েত পিছু অন্তত পাঁচ হাজার ভোটে দলীয় প্রার্থীদের লিড করানোর ব্যাপারে  প্রধানদের উপর দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে। তা মাথায় রেখে এই ব্লকে সব প্রধানই প্রচারে নেমে পড়েছেন।’’

২০১৪ লোকসভা নির্বাচনের ফল

আপনার মত