একদিকে জেই-তে আক্রান্ত হওয়ার আশঙ্কা যেমন রয়েছে, তেমনই জ্বরের রোগীর সংখ্যা প্রতিদিন পাল্লা দিয়ে বেড়ে চলছে দিনহাটায়। গত কয়েকদিনে দিনহাটা মহকুমা হাসপাতালে জ্বর নিয়ে ভর্তি হয়েছেন বেশ কয়েকজন রোগী। দিনহাটা মহকুমা হাসপাতাল সূত্রে জানা গিয়েছে, বৃহস্পতিবার রাত পর্যন্ত হাসপাতালে ৩২ জন জ্বরের রোগী ভর্তি রয়েছেন।

হাসপাতালে মহকুমার বিভিন্ন এলাকা থেকে আসা জ্বরের রোগীরা ভর্তি থাকলেও, তাঁদের হাসপাতাল থেকে কোনও মশারি দেওয়া হচ্ছে না বলে অভিযোগ। হাসপাতালে ভর্তি থাকা নয়ারহাটের ছপিকুল ইসলাম বলেন, জ্বর নিয়ে গত ২৭ শে অগস্ট তিনি ভর্তি হয়েছেন। হাসপাতাল থেকে মশারি না দেওয়ায়, বাড়ি থেকে মশারি নিয়ে আসেন তিনি। সিতাইয়ের চামটার নবিবক্স আলি, বালাডাঙার শান্তিরাম বর্মণ, নয়ারহাটের নুর বক্তার মিয়াঁ-সহ অনেকেই জানান, কয়েকদিন ধরে জ্বর নিয়ে তাঁরা হাসপাতালে ভর্তি হয়েছেন। চিকিৎসা চললেও, হাসপাতাল থেকে মশারি না দেওয়ায় তাঁদেরও সমস্যা হচ্ছে। বাধ্য হচ্ছেন, বাড়ি থেকে মশারি আনতে।

হাসপাতাল সুপার রঞ্জিত মণ্ডল বলেন, ‘‘বৃহস্পতিবার রাত পর্যন্ত হাসপাতালে ৩২ জন জ্বরের রোগী ভর্তি রয়েছেন। তবে তাঁদের জেই-র কোনও উপসর্গ নেই।’’ পাশাপাশি জ্বরের রোগীদের মশারি না দেওয়া প্রসঙ্গে তিনি বলেন, ‘‘মশারির সরবরাহ রয়েছে। যাঁরা ভর্তির সময়ই বাড়ি থেকে নিয়ে আসেন, তাঁদের না দিয়ে অন্য রোগীদের মশারি দেওয়া হয়।’’ মশারি ছাড়া কোনও রোগীকেই রাখা হয় না বলেও তিনি জানান।

শুধু দিনহাটা মহকুমা হাসপাতালেই নয়। বিভিন্ন চিকিৎসকদের চেম্বারেও জ্বরের উপসর্গ নিয়ে রোগীরা আসছেন বলে চিকিৎসক বিদ্যুৎকমল সাহা জানালেন। তিনি জানান, তাঁদের চেম্বারে যে সব রোগী আসছেন, তাঁদের নানা ভাবে সচেতন করা হচ্ছে।