তিনি কেন্দ্রীয় মন্ত্রীর দায়িত্ব পাচ্ছেন, তা বৃহস্পতিবারই স্পষ্ট হয়ে গিয়েছিল। সেই থেকেই তাঁকে ঘিরে প্রত্যাশাও বাড়ছিল উত্তর ও দক্ষিণ দিনাজপুরের বাসিন্দাদের মধ্যে। রায়গঞ্জের সেই বিজেপি সাংসদ দেবশ্রী চৌধুরী শুক্রবার কেন্দ্রীয় নারী ও শিশুকল্যাণ মন্ত্রকের প্রতিমন্ত্রীর দায়িত্ব পান। সেই খবর ছড়িয়ে পড়তেই দেবশ্রীকে ঘিরে দুই দিনাজপুরের বাসিন্দাদের প্রত্যাশার পারদ চরমে উঠল। যা শুনে দিল্লি থেকে ফোনে দেবশ্রী বললেন, ‘‘আমার ও নরেন্দ্র মোদীজির সরকারের উপরে ভরসা রাখুন। আমি দিল্লি থেকে ফিরে দুই দিনাজপুরের বাসিন্দাদের সঙ্গে কথা বলে অবশ্যই সব রকম উন্নয়নের আপ্রাণ চেষ্টা করব।’’

রায়গঞ্জ মহকুমা থেকে সকালবেলায় কলকাতাগামী কোনও ট্রেন নেই। দীর্ঘ দিন ধরে বিভিন্ন ব্যবসায়ী সংগঠন, রাজনৈতিক দল ও বাসিন্দারা ওই ট্রেন চালুর দাবিতে আন্দোলন চালিয়ে যাচ্ছেন। ইটাহারের বানবোল হাইস্কুলের সহকারী প্রধানশিক্ষক চন্দ্রনারায়ণ সাহা বলেন, ‘‘কেন্দ্রীয় প্রতিমন্ত্রী ওই ট্রেন চালুর পাশাপাশি রায়গঞ্জ থেকে বিহারের বারসইগামী রাস্তা তৈরির কাজ দ্রুত শেষ করানোর ব্যবস্থা করবেন বলে আমরা আশাবাদী।’’ রায়গঞ্জ মার্চেন্টস অ্যাসোসিয়েশনের সাধারণ সম্পাদক অতনুবন্ধু লাহিড়ী ও পশ্চিম দিনাজপুর চেম্বার অব কমার্সের সম্পাদক জয়ন্ত সোমের দাবি, রায়গঞ্জে ফিরলে তাঁরা দেবশ্রীর হাতে দু’টি দাবিপত্র তুলে দেবেন। ট্রেন ও রাস্তার দাবির পাশাপাশি রাধিকাপুর স্টেশনে আন্তর্জাতিক বাণিজ্যকেন্দ্র তৈরি করা, ডালখোলা, কিসানগঞ্জ ও বারসই স্টেশন হয়ে যাতায়াতকারী দেশের সমস্ত দূরপাল্লার ট্রেনের স্টপ দেওয়ার ব্যবস্থা করারও দাবি জানানো হবে।

অন্য দিকে জেলার মেয়ে দেবশ্রী কেন্দ্রীয় মন্ত্রী হওয়ায় উন্নয়নের আশায় বুক বেঁধেছেন দক্ষিণ দিনাজপুরের বাসিন্দারাও। ইতিমধ্যেই জেলার বিভিন্ন এলাকা থেকে পরিচিত ও আত্মীয়রা তাঁকে ফোন করে বিভিন্ন উন্নয়নের আবদার জানিয়েছেন। দক্ষিণ দিনাজপুর চেম্বার অব কমার্সের সম্পাদক সুদীপ বাগচীর দাবি, উত্তর ও দক্ষিণ দিনাজপুর জেলা তৈরি হওয়ার আগে দুই জেলা নিয়ে গঠিত পূর্বতন পশ্চিম দিনাজপুর জেলা থেকে তিনি উঠে এসেছেন। তাই তাঁর সঙ্গে দুই দিনাজপুরেরই আবেগ জড়িয়ে রয়েছে। রায়গঞ্জে এইমস তৈরি নিয়ে তাঁরাও দেবশ্রীর সঙ্গে কথা বলবেন বলে জানান। পাশাপাশি, জেলার রেল পরিষেবার উন্নয়ন, তপনের পানীয় জলের অভাব দূর করা-সহ বিভিন্ন নাগরিক সমস্যা সমাধানের জন্য তাঁর কাছে প্রয়োজনীয় দাবিও সংগঠনের তরফে জানানো হবে।

উত্তরবঙ্গের বৃহত্তর ব্যবসায়ী সংগঠন ফেডারেশন অব চেম্বার অব কমার্স অ্যান্ড ইন্ডাস্ট্রিজ়, নর্থবেঙ্গল (ফোসিন)-এর তরফেও উত্তরবঙ্গ তথা দুই দিনাজপুরের যোগাযোগ ব্যবস্থা, রেল যোগাযোগের উপরে গুরুত্ব দেওয়ার দাবি জানানো হয়েছে। ফোসিনের সম্পাদক বিশ্বজিৎ দাস জানান, কেন্দ্রীয় অর্থমন্ত্রী, রেল মন্ত্রীর পাশাপাশি উত্তরবঙ্গ থেকে মোদীর মন্ত্রিসভায় যাওয়া নারী ও শিশু কল্যাণ প্রতিমন্ত্রী দেবশ্রীকেও তাঁরা দাবির বিষয়টি জানাতে চান।