প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী বুদ্ধদেব ভট্টাচার্যের অসুস্থতার খবরে উদ্বিগ্ন শিলিগুড়ির মেয়র অশোক ভট্টাচার্য। চিন্তায় রয়েছেন সিপিএম-এর দার্জিলিং জেলা সম্পাদক জীবেশ সরকারও। প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রীর অসুস্থতার খবর সংবাদমাধ্যমে ছড়িয়ে পড়তেই উদ্বেগ বেড়েছে। তাঁকে কলকাতার একটি নার্সিংহোমে ভর্তি করার খবরে উদ্বিগ্ন হয়ে রাত ৯ টার পরে বুদ্ধদেবের মেয়ে সুচেতনাকে ফোন করেন জীবেশ সরকার। ফোনে অল্প কথা হয়। তাতেও চিন্তা দূর হয়নি তাঁদের। 

জীবেশ জানান, প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রীর মেয়ের সঙ্গে ফোনে কথা হয়েছে। জানতে পেরেছেন এ দিন বুদ্ধদেবের প্রচণ্ড শ্বাসকষ্ট হচ্ছিল। কিন্তু তিনি চিকিৎসককে দেখাতে বা নার্সিংহোমে ভর্তি হতে চাইছিলেন না বলে জীবেশের দাবি। পরিবারের লোকেরা তাঁকে বোঝান বলেও জানান তিনি জীবেশ বলেন, ‘‘এরপর আর ঝুঁকি না নিয়ে একপ্রকার জোর করেই পরিবারের লোকেরা চিকিৎসককে দেখাতে তাঁকে নার্সিংহোমে নিয়ে যান। তাঁকে ভর্তি করানো হয়েছে। অবস্থা স্থিতিশীল বলেই জানানো হয়েছে।’’  

সপ্তাহখানেক আগেই হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে কলকাতায় অ্যাঞ্জিয়োপ্লাস্টি করিয়ে বৃহস্পতিবার শিলিগুড়িতে ফিরেছেন শিলিগুড়ির মেয়র। বেশি রাত জাগছেন না অশোক। রাতে প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রীর অসুস্থতার খবরে তিনিও উদ্বিগ্ন হয়ে পড়েন। তিনি বলেন, ‘‘এমন খবর জানা ছিল না। আমি খোঁজ নিচ্ছি।’’ পরে তিনি রবীন দেবকে ফোন করে বিস্তারিত শোনেন। মেয়র বলেন, ‘‘নার্সিংহোমে নিয়ে যাওয়া হয়েছে। সেখানে উপযুক্ত চিকিৎসা পাবেন। উনি দ্রুত সুস্থ হয়ে উঠুন।’’ রাতে শিলিগুড়িতে দলের অন্য নেতারাও জীবেশ সরকারের কাছে ফোন করে খোঁজ-খবর নিতে শুরু করেন। রাত পৌনে দশটা নাগাদ ফের সুচেতনার সঙ্গে কথা বলেন জীবেশ।