পুরসভার কাজে পর্যটন মন্ত্রী হস্তক্ষেপ করছেন বলে অভিযোগ তুললেন শিলিগুড়ির মেয়র অশোক ভট্টাচার্য। মঙ্গলবার এই অভিযোগ করেন তিনি। বরো কমিটির আবেদনে দীনবন্ধু মঞ্চের সামনে জমা জল সাফাই করা, সূর্যনগর মাঠের ধারে ফুটপাথ তৈরি, রাস্তা-নিকাশির মতো কাজ করতেউদ্যোগী হয়েছেন মন্ত্রী। এই প্রসঙ্গ তুলেই মন্ত্রীর বিরুদ্ধে পুরসভার কাজে হস্তক্ষেপ করার অভিযোগ তুলেছেন মেয়র।
এর আগে মেয়রের ‘লেভেল’ নিয়ে পর্যটন মন্ত্রী প্রশ্ন তুলেছিলেন। মেয়র তাঁর লেভেলে পড়েন না বলে কথার জবাবও দিতে চাননি। এ দিন মেয়রের কটাক্ষ,  ‘‘উনি আমাকে পথ দেখাবেন? না আমার দেখানো পথে চলবেন? আজেবাজে বলছেন। ওঁর কাজটা পর্যটন। সেটা ভাল করে করুন। যাতে পুজোর সময় দার্জিলিং যেতে পর্যটকদের হয়রানি না হয়। তিনি নিয়মের বাইরে গিয়ে কাজ করছেন। মাতব্বরি মারছেন।’’
পর্যটনমন্ত্রী পাল্টা বলেন, ‘‘ওঁর বক্তব্যের ভাষা সংযত হওয়া উচিত। উনি একজন প্রবীণ রাজনীতিবিদ। আমি কোনও খারাপ ভাষা বলি না। এটা আমার সংস্কৃতি নয়। ভাষা ব্যবহার একটা মানুষের শিক্ষার পরিচয়। এর বেশিকিছু বলব না।’’ তিনি আরও বলেন, ‘‘আমি কী কাজ করব, কোথায় করব তা মাননীয় মুখ্যমন্ত্রীকে জবাবদিহি করব। আর কারও কাছে নয়।’’ 
তৃণমূলের দখলে থাকা বরোগুলো থেকে কাজের পরিকল্পনা চেয়ে সম্প্রতি পুর দফতর শিলিগুড়ি পুর এলাকার জন্য অর্থ বরাদ্দ করেছে। কিন্তু সেই অর্থ দেওয়া হচ্ছে শিলিগুড়ি জলপাইগুড়ি উন্নয়ন কর্তৃপক্ষকে। এসজেডিএ রাস্তা-নিকাশির নানা কাজ করছে। এই নিয়েই মেয়রের অভিযোগ, পুরসভাকে এড়িয়ে কাজ করা হচ্ছে। যদিও পর্যটনমন্ত্রীর দাবি, তিনি যে কাজ করছেন সেটা শিলিগুড়ির স্বার্থে। তিনি বলেন, ‘‘তাঁর প্রতি শুভেচ্ছা থাকল শরীর স্বাস্থ্য ভাল থাকুক। ক’দিন আগে অ্যাঞ্জিয়োপ্লাস্টি হয়েছে। পুজোয় তো তিনি বাইরে যান। এবা র আগে থেকে শৈলশহরে গিয়ে বিশ্রাম করুন।’’     
মেয়রের দাবি, এরপরে তো কেন্দ্রীয় সরকার এসে বলতে পারে কেন্দ্রের টাকায় তারাই কাজ করবে। বরো শুধু কাজের সমন্বয় করে। প্রচার করতে মন্ত্রী এসব করছেন বলে মেয়ররে অভিযোগ।