বিজেপির বিরুদ্ধে সাম্প্রদায়িক বিভাজনের অভিযোগ তুলে তৃণমূলের সদভাবনা যাত্রা’র কর্মসূচিতে সিপিএমের প্রাক্তন কাউন্সিলারের যোগদান নিয়ে প্রশ্ন দেখা দিয়েছে। আজ, সোমবার খড়িবাড়ি থেকে শিলিগুড়ি অবধি তৃণমূল যুব কংগ্রেসের ডাকে ওই র‌্যালি হবে। রবিবার দুপুরে শিলিগুড়িতে কর্মসূচির ঘোষণা করেন জেলা তৃণমূল সভাপতি তথা মন্ত্রী গৌতম দেব। মন্ত্রীর পাশেই সিপিএম নেতা তথা চার বারের প্রাক্তন কাউন্সিলর স্বপন দে’কে দেখা যায়। যা নিয়ে জেলা সিপিএমের অন্দরেই নানা আলোচনা শুরু হয়েছে।

তাহলে কি স্বপনবাবু লাল শিবির ছেড়ে ঘাস ফুল শিবিরে পা দিতে চলছেন‌—এই প্রশ্নই দেখা দিয়েছে সিপিএমের নেতাদের মধ্যে। দলের জেলার নেতারা রাজ্য কমিটির বৈঠকে যোগ দিতে কলকাতা গিয়েছেন। বিকেল নাগাদ সেখানেও খবর পৌঁছয়। বিষয়টি জানতেন না বলে জানিয়েছেন সিপিএমের জেলা সম্পাদক জীবেশ সরকার। তিনি বলেন, ‘‘আমি জানি না। খোঁজ নিয়ে দেখছি কী হয়েছে।’’

সিপিএমের কয়েকজন নেতা জানান, সরকারি স্তরে কোনও অনুষ্ঠান হলে তাতে প্রাক্তন খেলোয়াড় হিসাবে স্বপনবাবু যোগ দিতে পারেন। কিন্তু এই র‌্যালিটি পুরোপরি শাসক দলের শাখা সংগঠনের। অন্য খেলায়াড়ের তাতে থাকলেও তাঁরা সরাসরি দল করেন না। শাসক দলের অনুষ্ঠানে বা কর্মসূচিতে তাঁদের যোগ দেওয়ার সঙ্গে স্বপনবাবুর তাই পার্থক্য রয়েছে। তিনি পুরোপুরি পার্টি সদস্য বলে শহরে পরিচিত। বাম আমলে ২৬ ও ২৭ নম্বর ওয়ার্ড থেকে চার বার কাউন্সিলর নির্বাচিত হয়েছেন। গত ভোটে অবশ্য তৃণমূল প্রার্থীর কাছে হেরেছেন। দল ছাড়াও কথাও বলেননি।

দলীয় সূত্রের খবর, দলে থাকলেও স্বপনবাবুকে অবশ্য ইদানিং পার্টির সমস্ত কর্মসূচিতে দেখা যায় না। দেশবন্ধুপাড়া-বাবুপাড়া এলাকাতে অবশ্য আগের মতো রাস্তায় নেমে খুব একটা রাজনীতি করছেন না। স্বপনবাবুর কথায়, ‘‘আমি প্রাক্তন খেলোয়াড়, অ্যাথলিট। আমার মতো অনেকেই বিজেপির বিরুদ্ধে এই র‌্যালিতে থাকছেন। তাই এসেছি। দলটল নয়, ওসব পরে দেখা যাবে।’’

স্বপনবাবু-সহ খেলোয়াড়দের প্রসঙ্গে গৌতমবাবুর বক্তব্য, ‘‘শাখা সংগঠনের কর্মসূচি হলেও আমরা একটু অরাজনৈতিকভাবে তা করার চেষ্টা করছি। তাই বিভিন্ন স্তরের লোককে সামিল করা হচ্ছে।’’

সকালে খড়িবাড়ির রবীন্দ্রমূর্তির সামনে থেকে র‌্যালি শুরু হবে। বাইক, গাড়ি নিয়ে সদভাবনা যাত্রা শিলিগুড়ির বাঘাযতীন পার্কে পৌঁছবে। জেলা তৃণমূল যুব সভাপতি বিকাশ সরকার বলেন, ‘‘সমস্ত ব্লক মিলিয়ে ৫ হাজারের বেশি বাইক, গাড়ি থাকবে। প্রাক্তন ও বর্তমান খেলোয়াড়েরা সামনের সারিতে থাকবেন।’’