স্কুলের গেট বন্ধ করে বিক্ষোভ দেখাল বংশীহারি উচ্চ বিদ্যালয়ের ছাত্রছাত্রীরা। শনিবার সকাল ১১ টা থেকে প্রায় তিন ঘণ্টা ধরে বিক্ষোভ দেখায় স্কুলের শতাধিক পড়ুয়া। তাদের দাবি, স্কুলের প্রধান শিক্ষক অলক সরকারকে ফিরিয়ে আনতে হবে। সূত্রের খবর, পড়ুয়ারা এও বলে যে অবিলম্বে প্রশাসন এ বিষয়ে সিদ্ধান্ত না নিলে তারা স্কুল পরিদর্শকের অফিসও ঘেরাও করবে। এর ফলে, স্কুলের ভিতরে আটকে পড়েন শিক্ষকরা। অবশেষে তাদের বুঝিয়ে বিক্ষোভ তুলে দেন শিক্ষকরাই।

সমস্যার সূত্রপাত উচ্চ মাধ্যমিক পরীক্ষার দিন। ফেব্রুয়ারির ২৭ তারিখে স্কুলে পরীক্ষা পরিচালনা নিয়ে প্রধান শিক্ষক অলক সরকারের সঙ্গে বচসা হয় সেন্টার ইন চার্জ সফিউর রহমানের। অভিযোগ, পরীক্ষা পরিচালনা নিয়ে বচসার সময়ে সেন্টার ইন চার্জ প্রধান শিক্ষককে মদ্যপ রয়েছেন কি না—এই প্রশ্ন তুলে সকলের সামনে অপমান করেন, যা নিয়ে দুই পক্ষের মধ্যে হয় তীব্র বাদানুবাদ। জেলা বিদ্যালয় পরিদর্শকের কাছে তারপরই সফিউর প্রধান শিক্ষকের নামে নালিশ করেন বলে খবর। সূত্রের মতে, পরিস্থিতি স্বাভাবিক করতে ওইদিন সন্ধ্যায় পাথরঘাট উচ্চ বিদ্যালয়ে দুই পক্ষকে নিয়ে প্রশাসনের আধিকারিক ও মাধ্যমিক পরীক্ষা পরিচালন কমিটির সদস্যরা বৈঠক করেন। অভিযোগ, সেখানেও প্রধান শিক্ষককে চরম অপমান করা হয়। তারপরেই অভিমানে প্রধান শিক্ষক ইস্তফা দেন।

সেই ঘটনার পর দফায় দফায় স্কুলের শিক্ষক ও প্রাক্তন ছাত্রছাত্রীরা বুনিয়াদপুর শহরে প্রতিবাদ মিছিল করে প্রধান শিক্ষককে ফিরিয়ে আনতে প্রশাসনের কাছে স্মারকলিপি দেন। কিন্তু ঘটনার পরে প্রায় একমাস পেরোতে চললেও প্রশাসন এ বিষয় নিয়ে কোনও সিদ্ধান্ত নেয়নি বলে দাবি পড়ুয়াদের। প্রশাসন সূত্রেই খবর, পদত্যাগপত্র গ্রহণ করা হবে কি না, তা নিয়ে হয়নি কোনও বৈঠকও। এই পরিস্থিতিতে প্রধান শিক্ষককে স্কুলে ফেরাতে এ দিন বিক্ষোভ দেখায় পড়ুয়ারা। তাদের দাবি, প্রধান শিক্ষক স্কুলের উন্নতিতে অনেক পরিশ্রম করেন। তাই স্কুলের স্বার্থেই তাঁকে ফিরিয়ে আনা হোক।

জেলা স্কুল পরিদর্শক (ভারপ্রাপ্ত) মৃণালকান্তি রায়সিংহ বলেন, ‘‘বিষয়টি নিয়ে পরিচালন সমিতি সিদ্ধান্ত নেবে। এখানে আমার কিছু করার নেই।’’

এ বিষয়ে কোনও মন্তব্য করতে চাননি প্রধান শিক্ষক অলক সরকার।