বেশ কিছুদিন বন্ধ থাকার পরে বৃহস্পতিবার থেকে চালু হয়েছিল এনজেপি থেকে দার্জিলিং পর্যন্ত টয় ট্রেন পরিষেবা। কিন্তু শনিবার সকালে ধস নামায় ফের বিপর্যস্ত হয় ওই রুটে ট্রেন চলাচল। তার জেরে  রওনা হয়েও মাঝপথে আটকে পড়ে দু’দিকের ট্রেনগুলো। পরে ধস সরিয়ে রাস্তা পরিষ্কার করা হলে দুপুরের পরে ট্রেন চলাচল স্বাভাবিক হয়। রেল কর্তারা জানিয়েছেন, লাইনের উপর বড় বড় পাথর খসে পড়েছিল। লাইন পরীক্ষা করে দেখা হয়েছে, বড় ক্ষতি নেই বলেই জানিয়েছেন তাঁরা। ধসের জন্য বেশ কিছুক্ষণের জন্য আটকে পড়েছিল ৩১ নম্বর জাতীয় সড়কও। তার জেরে আটকে পড়েন যাত্রীরা। তবে ঘুম থেকে দার্জিলিং পর্যন্ত এ দিন ট্রেন চলাচল স্বাভাবিক ছিল। 

রেল সূত্রে দাবি করা হয়েছে, শনিবার বেলা ১০টা নাগাদ কার্শিয়াং এবং মহানদী স্টেশনের মাঝখানে হঠাৎ লাইনের উপর ধস নামে। তখনই দার্জিলিংগামী ট্রেনটিকে সুকনায় এবং এনজেপিগামী ট্রেনটিকে কার্শিয়াংয়ের আগেই আটকে দেওয়া হয়। দার্জিলিং হিমালয়ান রেলের অধিকর্তা এমকে নার্জারি বলেন, ‘‘লাইনের উপর থেকে বালি পাথর সরিয়ে পরিষেবা স্বাভাবিক করা হয়েছে। লাইন পরীক্ষা করে দেখে নিরাপত্তা সংক্রান্ত সার্টিফিকেট দেন ইঞ্জিনিয়াররা। নতুন কোনও প্রাকৃতিক দুর্যোগ না হলে আমরা রবিবারও পরিষেবা চালাব বলেই ঠিক করেছি।’’ এ মাসের শুরুতে তিনধারিয়া থেকে গয়াবাড়ি পর্যন্ত চারটি জায়গায় লাইনে ধস নেমে দীর্ঘ দিন ধরে এনজেপি-দার্জিলিং টয় ট্রেন পরিষেবা বন্ধ হয়ে গিয়েছিল। গত দু’সপ্তাহ ধরে ব্যাপক বৃষ্টির কারণে সেই ধস সরানো এবং লাইন মেরামতির কাজে অনেকটা সময় চলে যায়।