উত্তরবঙ্গে কয়েক দিন ধরে প্রবল বৃষ্টির ফলে রেল লাইনে রেনকাট এবং কিছু ক্ষেত্রে মাটি ধসে যাওয়ার ঘটনা ঘটেছে। তার ফলে বিভিন্ন জায়গায় রেল পরিষেবা ব্যাহতও হয়েছে। বিশেষ করে ডুয়ার্স এলাকায় হয় ট্রেন দেরি করেছে যাতায়াতে, নয়তো ট্রেনের রুট ঘুরিয়ে দেওয়া হয়েছে। এর ফলে এনজেপি এবং গৌড়বঙ্গেও রেল পরিষেবার উপরে প্রভাব পড়েছে। রেল সূত্রে জানা গিয়েছে, দার্জিলিং মেল এবং পদাতিক এক্সপ্রেস এ দিন নির্ধারিত সময়ের কিছুটা দেরিতে চলেছে। একই ভাবে কিছুটা দেরিতে চলেছে শতাব্দী এক্সপ্রেসও। 

এনজেপি এবং শিলিগুড়ি জংশন স্টেশনে এ দিন সকাল থেকেই অসুবিধার মধ্যে পড়ে মানুষ। উত্তর-পূর্ব সীমান্ত রেলের আলিপুরদুয়ার ডিভিশনের বাগরাকোটে রেন কাটের জেরে আলিপুরদুয়ার এবং ডুয়ার্সের দিকে যাতায়াতকারী কিছু ট্রেন ঘুরপথে চালানো হচ্ছে জলপাইগুড়ি এবং ধূপগুড়ি দিয়ে। ফলে এই লাইনে ট্রেন চলাচলে বিস্তর দেরি হয় এ দিন। অন্য দিকে রংটং এবং তিনধারিয়ার মাঝে ধসের জেরে ব্যাহত হয়েছে টয়ট্রেন পরিষেবাও। তবে কার্শিয়াং-দার্জিলিংয়ের মধ্যে এখনও চালু রয়েছে টয়ট্রেন। একটি লাইন বন্ধ বলেই ফের ট্রেনের সূচি গোলমাল হতে শুরু করেছে বলে দাবি রেলের। উত্তর-পূর্ব সীমান্ত রেলের এডিআরএম পার্থপ্রতিম রায় বলেন, ‘‘কাটিহার ডিভিশনে কোনও রেন কাট নেই। প্রাকৃতিক দুর্যোগের জন্য কিছু পরিষেবা সময়ে চলছে না। টয়ট্রেন লাইনে ধস সরানোর কাজ করা হচ্ছে।’’ 

এনজেপি সূত্রে জানা গিয়েছে, এনজেপি-আলিপুরদুয়ার প্যাসেঞ্জার, দিল্লিগামী মহানন্দা এক্সপ্রেস বাতিল হয়। আলিপুরদুয়ারগামী মহানন্দা এক্সপ্রেস প্রায় ৫ ঘণ্টা দেরিতে এনজেপিতে ঢোকে। 

বুধবার রাতের বৃষ্টিতে হঠাৎ বাতিল হয়েছে শিলিগুড়ি জংশন-থেকে ডুয়ার্স, আলিপুরদুয়ার দিকে যাতায়াতকারী বেশ কিছু ট্রেন। তার আগাম নোটিস রেলের তরফে দেওয়া সম্ভব হয়নি বলে দাবি করা হয়েছে। এ দিন শিলিগুড়ি জংশনে এসে অনেকেই জানতে পারেন, ট্রেন চলছে না। তবে বৃষ্টিতে কোথায় কোন ট্রেন বাতিল হল বা ঘুরপথে চালানো হল, তা শুধু স্টেশনের ঘোষণা থেকেই জানতে হয়েছে মানুষকে। 

ডুয়ার্সের অবস্থা ছিল সব থেকে খারাপ। কিছু জায়গায় লাইনের মাটি সরে যাওয়ায় বুধবার রাত থেকেই ট্রেন চলাচল বন্ধ। বাগরাকোট ও ওদলাবাড়ি স্টেশনের মাঝে ৪০ নম্বর পিলার ফলকে ঘিস নদী লাগোয়া রেল কালভার্টের গা থেকে মাটি ঝুরঝুরে হয়ে পড়ে। জলের তোড়ে মাটি আরও ক্ষয়ে যায়। বৃহস্পতিবার সকাল থেকে মেরামত শুরু হয়। কিন্তু টানা বৃষ্টিতে সেই কাজ হয়েছে ঢিমে তালে।  রেলের আলিপুরদুয়ার ডিভিশনের সহকারী বিভাগীয় আধিকারিক মনোজ জিন্দল এ দিন ঘটনাস্থলে পৌঁছন। আলিপুরদুয়ার থেকে সংস্কার কাজের জন্যে মালগাড়িতে করে বড় বড় পাথরও সেখানে নিয়ে আসা হয়।

এ দিকে রাতে যখন এই বিপত্তি রেল জানতে পারে, তখন ডুয়ার্স রুটে আপ কবিগুরু ও মহানন্দা এক্সপ্রেস ঢুকে পড়েছিল। সেগুলিকে ঘুরপথে পাঠানো হয়। ডুয়ার্স রুট বন্ধ হওয়ার ফলে দূরপাল্লার ট্রেনগুলিকে বৃহস্পতিবার সকাল থেকেই এনজেপি, জলপাইগুড়ি রোড, ময়নাগুড়ি, ফালাকাটার পথে ঘুরিয়ে দেওয়া হয়। কাঞ্চনকন্যাকেও সেই পথেই পাঠিয়ে দেওয়া হয়। ৮টি ট্রেন বাতিল করে দেওয়া হয়। আলিপুরদুয়ার রেল বিভাগের বিভাগীয় বাণিজ্যিক আধিকারিক অমরমোহন ঠাকুর বলেন, “নদীর স্রোতে রেলের মাটি, পাথর ক্ষয়ে যাওয়ায় ডুয়ার্স রুটে ট্রেন চলাচল বন্ধ রাখতে বাধ্য হয়েছি।’’