• নিজস্ব সংবাদদাতা
সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে

বল ভেবে বোমায় লাঠি, জখম

Police
তদন্ত: গ্রামবাসীদের সঙ্গে কথা বলছেন পুলিশের তদন্তকারী অফিসারেরা। বালুরঘাটের হলিদাডাঙায়। নিজস্ব চিত্র

Advertisement

বল ভেবে বোমায় লাঠি মেরে খেলতে গিয়ে বিস্ফোরণে জখম হল দুই বালক। রবিবার সকালে বালুরঘাট থানার ডাঙা অঞ্চলের হলিদাডাঙা এলাকার ঘটনা। গুরুতর জখম নয় ও দশ বছরের রায়েন মণ্ডল এবং মোক্তার আলি মণ্ডল নামে দুই বালককে বালুরঘাট হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। রায়েনের মাথায় চোট লেগেছে। মোক্তারের হাতে ও পায়ে লেগেছে। দু’টি পরিবার তো বটেই, এলাকার মানুষও উদ্বিগ্ন।

এ দিন সকাল আটটা নাগাদ লাঠি নিয়ে গ্রামের একটি মাঠের ধারে খেলছিল ওই দুই বালক। সে সময় তাদের নজর পড়ে জঞ্জালের মধ্যে একটি ছোট প্লাস্টিকের বলের মতো কিছু পড়ে রয়েছে। তারা বলই ভেবেছিল। তাই তা কুড়িয়ে লাঠি দিয়ে মারতেই বিস্ফোরণ ঘটে। শব্দ শুনে স্থানীয় লোকজন ছুটে এসে রক্তাক্ত ও জখম দুই বালকদের উদ্ধার করে বালুরঘাট সুপার স্পেশ্যালিটি হাসপাতালে ভর্তি করান। হাসপাতাল সূত্রের খবর, এক জনের অবস্থা আশঙ্কাজনক। 

বালুরঘাট থানার বিশাল পুলিশবাহিনী ঘটনাস্থলে যায়। বোম্ব ডিটেক্টর মেশিন দিয়ে গোটা এলাকায় তল্লাশি চালানো হয়। কোথা থেকে ওই এলাকায় বোমা এল, তা নিয়ে স্থানীয় বাসিন্দাদের মধ্যে ধন্দ তৈরি হয়েছে। কোনও সমাজবিরোধী কার্যকলাপের জন্য বোমা মজুত করা হয় কি না, তা খতিয়ে দেখা হচ্ছে বলে জানান বালুরঘাট থানার আইসি জয়ন্ত দত্ত।

জখম রায়েনের বাবা আইজুল মণ্ডল জানান, তিনি কাজে মাহিনগর গিয়েছিলেন। সেই সময় খবর পান তাঁর ছেলের সঙ্গে অন্য একটি বাচ্চা বোমায় জখম হয়েছে। বল ভেবে খেলতে গিয়ে বোমাটি ফেটে যায়। কেমন করে ওই এলাকায় বোমা এল, তা তাঁদের জানা নেই। 

তবে এর আগেও ওই এলাকায় রাতের দিকে বোমা ফাটার আওয়াজ বাসিন্দারা শুনতে পেয়েছিলেন। তাতে তাঁরা উদ্বিগ্নও ছিলেন। সে কথা তাঁরা পুলিশকে জানান। এ বিষয়ে ডেপুটি পুলিশ সুপার ধীমান মিত্র জানান, খবর পাওয়ামাত্র তাঁরা ঘটনাস্থলে যান। ঘটনাটি খতিয়ে দেখতে তদন্ত শুরু হয়েছে বলে ধীমান জানান।

সবাই যা পড়ছেন

Advertisement

সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে
আরও পড়ুন

সবাই যা পড়ছেন

আরও পড়ুন