Two youth body recovered - Anandabazar
  • নিজস্ব সংবাদদাতা
সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে

সীমান্তে উদ্ধার দুই যুবকের গুলিবিদ্ধ দেহ

Advertisement

অনুরাধারপুর সীমান্ত থেকে দুই যুবকের গুলিবিদ্ধ মৃতদেহ উদ্ধার করল পুলিশ। সোমবার সকালে মালদহের হবিবপুর থানা এলাকার ঘটনা।

মৃতদেহ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য মালদহ মেডিক্যাল কলেজ ও হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। যদিও কী ভাবে ওই দুই যুবক গুলিবিদ্ধ হলেন, তা নিয়ে মুখ খুলতে চাননি বিএসএফ কর্তারা। তাঁদের পরিচয়ও জানতে পারেনি পুলিশও। তাঁদের নাম ও পরিচয় জানার চেষ্টা করা হচ্ছে বলে জানিয়েছে পুলিশ।  মালদহের পুলিশ সুপার প্রসূন বন্দ্যোপাধ্যায় বলেন, ‘‘এঁরা কারা, কী ভাবে গুলিবিদ্ধ হল তা খতিয়ে দেখা হচ্ছে।’’

স্থানীয় সূত্রে জানা গিয়েছে, হবিবপুরের অনুরাধাপুর সীমান্ত এলাকায় প্রচুর গরু পাচার হয় বলে অভিযোগ। এই সীমান্ত কেন্দ্রের একাংশ কাঁটাতারহীন। সেখান দিয়েই রাতের দিকে গরু পাচার চলে বলে দাবি স্থানীয়দের। ওই অনুরাধাপুর সীমান্তে রয়েছে বিএসএফের ৮২ নম্বর ব্যাটালিয়নের জওয়ানেরা। এ দিন সকালে সীমান্ত থেকেই উদ্ধার হয় গুলিবিদ্ধ দুই যুবকের মৃতদেহ। স্থানীয় বাসিন্দারা ঝোপের মধ্যে দেহ দুটি পড়ে থাকতে দেখেন। পরে হবিবপুর থানার পুলিশ গিয়ে মৃতদেহ দুটি উদ্ধার করে ময়না তদন্তের জন্য পাঠায়।

পুলিশ জানিয়েছে, ওই দুই যুবকের দেহে একাধিক গুলির চিহ্ন রয়েছে। বুক থেকে পা পর্যন্ত গুলি করা হয়েছে ওই দুই যুবককে। হবিবপুর থানার পুলিশ জানিয়েছে, মৃতেরা বাংলাদেশের বাসিন্দা। তাঁদের বয়স ৩০ থেকে ৩২ এর মধ্যে। প্রাথমিক ভাবে অনুমান করা হচ্ছে, গরু পাচারের সঙ্গে যুক্ত ছিল তারা। পাচারের সময় বিএসএফের গুলিতে মৃত্যু হয়ে থাকতে পারে বলে অনুমান করা হচ্ছে। প্রাথমিক তদন্তে এও জানা গিয়েছে, স্বয়ংক্রিয় রাইফেল থেকেই গুলি করা হয়েছে। স্থানীয় সূত্রে জানা গিয়েছে, রবিবার রাত দেড়টা নাগাদ ২০ রাউন্ডের মতো গুলির শব্দ শোনা যায়। আতঙ্কে কেউ ঘর থেকে বর হওয়ার সাহস দেখাননি। তবে নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক এক বিএসএফ জওয়ান বলেন, রাত দেড়টা নাগাদ একদল পাচারকারী গরু পাচার করছিল। সেই সময় ওই এলাকায় টহলদারি চালাচ্ছিলেন দুই জওয়ান। বাধা দিতে গেলে হামলা চালানো হয়। পাল্টা হামলা চালালে দুই জনের মৃত্যু হয়। আর বাকিরা পালিয়ে যায়। পুলিশ জানিয়েছে, ঘটনার তদন্ত শুরু হয়েছে।

সবাই যা পড়ছেন

Advertisement

সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে
আরও পড়ুন
বাছাই খবর

সবাই যা পড়ছেন

আরও পড়ুন