এক পথচারীকে বাঁচাতে গিয়ে রাস্তার উপরেই উল্টে গেল বিয়ার বোঝাই একটি গাড়ি। বোতল ভেঙে রাস্তায় তখন কার্যত বিয়ারের স্রোত গড়াচ্ছে। খবর পেয়েই সেই গাড়িতে হামলে পড়লেন কিছু লোকজন। পুলিশ আসার আগেই লোকজন দু’হাত আঁকড়ে যতগুলি পারল বিয়ারের বোতল তুলে নিয়ে পালালেন। মঙ্গলবার সকালে পুরুলিয়া-বাঁকুড়া ৬০এ জাতীয় সড়কে হুড়া থানার লক্ষণপুর ও কুলগোড়া মোড়ের মাঝামাঝি এলাকায় এই দুর্ঘটনা ঘটে। পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে জানা গিয়েছে, বাঁকুড়ার দিক থেকে বিয়ারের বোতল বোঝাই এই লরি পুরুলিয়া শহরের দিকে যাচ্ছিল। যাওয়ার পথে কুলগোড়া মোড় পার হয়েই সেই গাড়ির সামনে পড়ে যান এক পথচারী। তাঁকে বাঁচানোর চেষ্টা করে গাড়িটি। শেষ রক্ষা অবশ্য হয়নি। ওই ব্যক্তিকে ধাক্কা মেরে গাড়িটি উল্টে যায়। আহতকে উদ্ধার করে পুরুলিয়া সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। গাড়িটিকে আটক করেছে পুলিশ। জেলা আবগারি দফতরের আধিকারিক বিকাশ বিশ্বাস বলেন, “যতদূর জানা গিয়েছে, বিয়ারের বোতল বোঝাই গাড়িটি ঝাড়খণ্ডে যাচ্ছিল। যাওয়ার পথে নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে গাড়িটি উল্টে গেলে বিপত্তি বাধে। ঘটনাটি শোনার পরেই পুলিশকে জানানো হয়েছে।”

সোমবার রাতে পথ দুর্ঘটনায় এক মোটরবাইক আরোহীর মৃত্যু হয়েছে। পুলিশ জানিয়েছে, মৃতের নাম হাবুলাল বাউরি (৪৯)। তাঁর বাড়ি রঘুনাথপুর থানার শাঁকা গ্রামে। দুর্ঘটনাটি ঘটে রঘুনাথপুর-সাঁওতালডিহি রাস্তায় রঘুনাথপুর দমকল কেন্দ্রের অদূরে। রঘুনাথপুর থেকে বাড়ি যাওয়ার পথে নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে রাস্তার পাশের একটি ল্যাম্পপোস্টে ধাক্কা মেরে তিনি পড়ে যান। পুলিশ তাঁকে উদ্ধার করে রঘুনাথপুর মহকুমা হাসপাতালে নিয়ে যাওয়ার পথেই তাঁর মৃত্যু হয়।

এ দিকে, বিষ্ণুপুর ও হুড়ায় দু’টি দোকানে গাড়ি ধাক্কা মেরেছে। এ দিন সকালে বিষ্ণুপুর থানার জয়রামপুর গ্রামে বিষ্ণুপুর-সোনামুখী রাস্তার পাশে একটি দোকানে ধাক্কা মারে পাথর কুঁচি ভর্তি একটি ডাম্পার। তখন দোকানের সামনে কয়েকজন দাঁড়িয়ে ছিলেন। ডাম্পারের ধাক্কায় তাঁদের মধ্যে সাতজন আহত হন। আহতদের বিষ্ণুপুর হাসপাতালে নিয়ে গেলে প্রাথমিক চিকিত্‌সার পরে ছেড়ে দেওয়া হয়। পুলিশ জানিয়েছে, গাড়িটি আটক করা হয়েছে।

সোমবার রাত সাড়ে নটা নাগাদ হুড়ায়, পুরুলিয়া-বাঁকুড়া ৬০এ জাতীয় সড়কে রাস্তার পাশে একটি দোকান ঘরের মধ্যে হুড়মুড়িয়ে ঢুকে পড়ে কয়লা বোঝাই একটি ট্রাক। তখন দোকানে কেউ না থাকায় বড় কোনও অঘটন ঘটেনি। পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে জানা দিয়েছে, দোকানের মালিক পিছনে বাড়িতে ছিলেন। ওই পরিবারের হীরালাল কর বলেন, “আচমকা বিকট শব্দ। গিয়ে দেখি একটি ট্রাক দোকান ভেঙে ঢুকে পড়েছে। সে সময়ে কেউ দোকানে না থাকায় রক্ষা পাওয়া গিয়েছে।” পুলিশ জানিয়েছে, ট্রাকটি বোকারো থেকে হলদিয়া যাচ্ছিল। বেসামাল হয়ে ট্রাকটি দেওয়াল ও গেট ভেঙে দোকানে ঢুকে পড়ে। দুর্ঘটনাগ্রস্থ ট্রাকের ভিতরে আটকে পড়েন বিহারের পটনার বাসিন্দা চালক সুধীর মাহাতো। প্রায় ঘণ্টা খানেক পরে চালককে উদ্ধার করা হয়।