সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে

টুকরো খবর

শিক্ষকের বদলি রুখতে আবেদন
নিজস্ব সংবাদদাতা • পুরুলিয়া

এক শিক্ষকের বদলি রোখার দাবিতে সরব হলেন পুরুলিয়া সিধো-কানহো-বীরসা বিশ্ববিদ্যালয়ের পড়ুয়ারা। বিশ্ববিদ্যালয়ের ইংরেজি বিভাগের শিক্ষক (অ্যাসিস্ট্যান্ট প্রফেসর) শম্ভুনাথ মাঝিকে এই বিশ্ববিদ্যালয়েই রাখতে হবে—এই দাবিতে দুই শতাধিক পড়ুয়া বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষের কাছে লিখিত আবেদন জমা দিয়েছেন। ইংরেজি বিভাগের পড়ুয়া সুদীপ পাল, অনিল রায়, সমরেশ পাত্র, অনিবার্ণ রায়, বিকাশ মণ্ডল বলেন, ‘‘আমাদের বিভাগের শিক্ষক শম্ভুনাথ মাইতি এই বিশ্ববিদ্যালয় ছেড়ে বর্ধমান বিশ্ববিদ্যালয়ে চলে যাচ্ছেন। তিনি চলে গেলে শুধু আমাদের বিভাগই নয়, অন্য বিভাগের পড়ুয়ারাও সমস্যায় পড়বে। তাই আমরা বিশ্বিদ্যালয় কর্তৃপক্ষের কাছে, তিনি যাতে এই বিশ্ববিদ্যালয়েই থাকেন সে জন্য লিখিত আবেদনও করেছি।’’ শিক্ষক শম্ভুনাথবাবু বলেন, ‘‘ইংরেজি বিভাগে চারজন শিক্ষক ছিলেন। তারমধ্যে একজন ইতিমধ্যেই আসানসোলে চলে গিয়েছেন। বর্তমানে তিনজন রয়েছেন। আমি বর্ধমান বিশ্ববিদ্যালয়ে আবেদন করেছিলাম। সেখানে আমি নিবার্চিত হয়েছি। বর্ধমানে যোগ দিলে আমার পদোন্নতি হবে। কিন্তু ছাত্রছাত্রীদের এই আবেদনের পরে আমি কী করব ঠিক করে উঠতে পারছি না।’’ বিশ্ববিদ্যালয়ের রেজিস্ট্রার নচিকেতা বন্দ্যোপাধ্যায় বলেন, ‘‘ছাত্রছাত্রীরা আমাদের কাছে ওই শিক্ষক যাতে এখানে থাকেন সেই আবেদন জানিয়েছে। আর শম্ভুনাথবাবুও তাঁর আবেদন জমা দিয়েছেন। দু’টি আবেদন নিয়েই আলোচনা হবে।’’

 

ভাঙা হল ইভিএম, ফের ভোট সাঁইথিয়াতেও
নিজস্ব সংবাদদাতা • সাঁইথিয়া

রাজ্য নির্বাচন কমিশনের নির্দেশে আজ, সোমবার পুনর্নিবাচন হবে সাঁইথিয়ার ১১ নম্বর ওয়ার্ডের ১১০ নম্বর বুথে। শনিবার ভোটের দিন দুষ্কৃতীরা ওই বুথের ইভিএম ভেঙে দিয়েছিল। তার পরেই সেখানে নির্বাচন বাতিল হয়ে গিয়েছিল। সিউড়ি সদর মহকুমাশাসক অরুন্ধতি ভৌমিক বলেন, ‘‘রাজ্য নির্বাচন কমিশনের নির্দেশ মোতাবেক সাঁইথিয়ার একটি বুথে ফের ভোট হবে। সকাল ৭টা থেকে দুপুর ৩টে পর্যন্ত ভোট গ্রহণ চলবে।’’ রবিবার সিপিএমের জেলা সম্পাদক রামচন্দ্র ডোমের দাবি, ‘‘ওই বুথে শাসকদল ছাপ্পা ভোট দিচ্ছিল। আমাদের এজেন্ট গৌতম রায় তার প্রতিবাদ করেন। বুথের ভিতরেই শাসক দলের দুষ্কৃতীরা তাঁকে মারধর করে। খবর পেয়ে আমাদের প্রার্থী দেবু চুনারী সেখানে ঢোকেন। তাঁকেও মারধর করে নিজেদের দোষ ঢাকতে শাসকদলের লোকেরা ইভিএম আছড়ে ভেঙে দেয়।’’ যদিও তৃণমূল ওই ঘটনায় সিপিএম প্রার্থীর দিকেই অভিযোগের আঙুল তুলেছে। তৃণমূলের জেলা সভাপতি অনুব্রত মণ্ডল বলেন, ‘‘একেবারে মিথ্যা অভিযোগ। সাঁইথিয়া কেন, আমরা জেলার কোথাও কোনও রকম সন্ত্রাস করিনি। ছাপ্পা ভোট দেওয়ারও চেষ্টা করেনি। বিরোধীরাই নানা ভাবে ভোট বানচাল করার চেষ্টা করেছে।’’ এ দিকে, বুথের প্রিসাইডিং অফিসার অমরেন্দ্রনাথ পালের দাবি, ‘‘নির্বিঘ্নে ভোট হচ্ছিল। দুপুর ১২টা নাগাদ আচমকা কয়েক জন বুথে ঢোকে। তাঁদের মধ্যে কেউ এক জন ইভিএম তুলে ফেলে দেয়। তখন বুথের ৭৫৪ জন ভোটারের মধ্যে ৪৯২ জন ভোট দিয়েছিলেন।’’

 

ভূমিকম্পে বাড়িতে ফাটল সাঁইথিয়ায়
নিজস্ব সংবাদদাতা • সাঁইথিয়া


এই সেই ফাটল।

ভূমিকম্পে সাঁইথিয়ার চৌরাস্তা মোড়ের কাছে ফাটল ধরল একটি চারতলা বাড়িতে। রবিবার ওই খবর ছড়িয়ে পড়তেই এলাকার মানুষ বাড়িটি দেখার জন্য ভিড় করে। বাড়ির মালিক শিশির কুমার দাস ও উত্তম কুমার দাস বলেন, ‘‘শনিবারের কম্পনে কিছু হয়নি। কিন্তু এ দিন ভূমিকম্প হতেই আমাদের বাড়ির তিন তলার লিনটনে প্রায় তিন ফুট মতো ফাটল দেখা দিয়েছে।’’


তখন চলছে ভূমিকম্প। দোকান, বাড়ি ছেড়ে রাস্তায় আতঙ্কিত জনতা। রবিবার সাঁইথিয়ায়।

—নিজস্ব চিত্র।

 

দুর্ঘটনায় জখম
নিজস্ব সংবাদদাতা • বান্দোয়ান

মোটরবাইক দুর্ঘটনায় জখম হলেন এক যুবক। রবিবার সকালে বান্দোয়ান-পুরুলিয়া রাস্তায় মধুপুর গ্রামের কাছে দুর্ঘটনাটি ঘটেছে। গণেশ মাহাতো নামে ওই যুবকের বাড়ি ঝাড়খণ্ডের ঘাটশিলা থানার পেড়িপাথর গ্রামে। পুলিশ জানায়, গণেশবাবু এ দিন শ্বশুরবাড়ি ঝাড়খণ্ডের পটমদা থানার চঁড়রা গ্রাম থেকে বাইকে বাড়ি ফিরছিলেন। তখন উল্টো দিক থেকে আসা একটি গাড়ির সঙ্গে বাইকের ধাক্কা লাগে।

 

ছাত্রের মৃত্যু

গলায় দড়ির ফাঁস লাগিয়ে আত্মহত্যা করল ইংরাজিতে সাম্মানিক নিয়ে পড়া বিএ প্রথম বর্ষের এক ছাত্র। ঘটনাটি ঘটে, রবিবার সকালে। পুলিশ জানায়, মৃত ওই ছাত্রের নাম মাণিক মণ্ডল (২০)। তাঁর কাছ থেকে একটি সুইসাইড নোট উদ্ধার করা হয়েছে। ওই নোটে সে জানায় পড়াশুনার চাপ সে নিতে পারছিল না। তাই আত্মহত্যার পথ বেছে নেয়। তার মৃত্যুর জন্য কেউ দায়ি নয়। পুলিশ জানায়, দেহটি ময়নাতদন্তের পর তাঁর পরিবারের হাতে তুলে দেওয়া হয়েছে।

সবাই যা পড়ছেন

সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে
আরও পড়ুন

সবাই যা পড়ছেন

আরও পড়ুন