• নিজস্ব সংবাদদাতা
সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে

করোনা পরীক্ষা মেডিক্যালেও

File Photo
—ফাইল চিত্র
রামপুরহাট মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে এ বার করোনা সন্দেহজনক রোগীদের নমুনা পরীক্ষা চালু হল। ইন্ডিয়ান কাউন্সিল অব মেডিক্যাল রিসার্চ, সংক্ষেপে আইসিএমআর-এর অনুমোদনও পেয়েছে রামপুরহাট মেডিক্যাল। রাজ্যের স্বাস্থ্য দফতর রামপুরহাট মেডিক্যাল কলেজে করোনা টেস্ট করা হবে বলে জানিয়েছিল। 
কিছু দিন আগে, লকডাউনের মাঝেই রামপুরহাট মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের মাইক্রোবায়োলজি বিভাগে করোনা টেস্ট করার জন্য 'ট্রু ন্যাট' পদ্ধতিতে প্রয়োজনীয় যন্ত্র বসানো হয়। টেস্ট করার জন্য আইসিএমআর-এর অনুমতির অপেক্ষায় ছিলেন হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ। এ বার অনুমোদন মেলার পরে মঙ্গলবার দুপুরে হাসপাতালের বিভিন্ন ওয়ার্ডে চিকিৎসাধীন ৮ জন রোগীর করোনা টেস্ট করা হয়েছে। রামপুরহাট মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের এমএসভিপি সুজয় মিস্ত্রি জানান, আইসিএমআর-এর অনুমোদন পাওয়ার পরে ট্রু ন্যাট পদ্ধতিতে ৮ জনের নমুনা পরীক্ষা করা হয়েছে। প্রথম টেস্টের রিপোর্টও মিলেছে। সেই রিপোর্ট আইসিএমআর-এর পোর্টালে জানানো হয়েছে বলেও তিনি জানান। 
 
রামপুরহাট স্বাস্থ্য জেলার ডেপুটি সিএমওএইচ অমিতাভ সাহা জানান, 'ট্রু ন্যাট' পদ্ধতিতে এক দিনে ২০টির বেশি নমুনা টেস্ট করা যাবে না। এর আগে আইসিএমআর-এর গাইড লাইন অনুযায়ী, ট্রু ন্যাট পদ্ধতিতে কোনও রিপোর্ট পজিটিভ এলে সেটি পুনরায় পরীক্ষার জন্য আরটিপিসিআর যন্ত্রের মাধ্যমে পরীক্ষার জন্য কলকাতার নাইসেডে পাঠাতে হতো। নতুন গাইড লাইন অনুযায়ী, ট্রু ন্যাট পদ্ধতিতে কোনও নমুনা পরীক্ষায় পজিটিভ রিপোর্ট মিললে সেটার জন্য আর নাইসেডে পাঠাতে হবে না। 
এ দিকে, রামপুরহাট মেডিক্যালে করোনা সন্দেহজনক রোগীদের নমুনা পরীক্ষা করার ক্ষেত্রে রামপুরহাট স্বাস্থ্যজেলার অধীন বিভিন্ন ব্লক থেকে সংগ্রহ করা নমুনাগুলি টেস্ট করা হবে কিনা সেই ব্যাপারে পরিস্কার কোনও সিদ্ধান্ত হয়নি। জেলা স্বাস্থ্য দফতরের এক আধিকারিক জানান, রামপুরহাট মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে করোনার নমুনা পরীক্ষা চালু হয়েছে সেটা ভাল ব্যাপার। কিন্তু, যে পদ্ধতিতে করোনা নমুনা পরীক্ষা করা হবে, সেই পদ্ধতিতে ২০টির বেশি পরীক্ষা করা হবে না। সেক্ষেত্রে কেবলমাত্র রামপুরহাট মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন করোনা সন্দেহে ভর্তি হওয়া রোগীদের পরীক্ষা করা হবে, নাকি রামপুরহাট স্বাস্থ্যজেলা থেকে পাঠানো নমুনার পরীক্ষা হবে, সেটি এখনও পরিস্কার হয়নি বলে জেলা স্বাস্থ্য দফতরের এক আধিকারিক জানিয়েছেন।

সবাই যা পড়ছেন

সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে
আরও পড়ুন

সবাই যা পড়ছেন

আরও পড়ুন